সীমান্তে গরু আনতে গিয়ে নিহত হলে দায় নেবে না সরকার: খাদ্যমন্ত্রী
jugantor
সীমান্তে গরু আনতে গিয়ে নিহত হলে দায় নেবে না সরকার: খাদ্যমন্ত্রী

  রাজশাহী ব্যুরো  

২৫ জানুয়ারি ২০২০, ২০:৪৬:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার
খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। ফাইল ছবি

ভারতে অনুপ্রবেশ করে গরু আনতে গিয়ে গুলিতে কেউ নিহত হলে সরকার কোনো দায়িত্ব নেবে না বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।

শনিবার দুপুরে রাজশাহীর পবা উপজেলার দামকুড়াহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের হীরক জয়ন্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। 

এর আগে বৃহস্পতিবার ভোরে নওগাঁর পোরশা উপজেলার দুয়ারপাল সীমান্ত এলাকায় বিএসএফ জওয়ানদের গুলিতে তিন বাংলাদেশি নিহত হন। এর মধ্যে দুজনের লাশ নিয়ে গেছে বিএসএফ। পোরশা সীমান্ত খাদ্যমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকা। এদিন সেই প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘আসলে আমাদের চরিত্র ভালো না হলে পরের দোষ দিয়ে লাভ নেই।’

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ভারত থেকে গরু আনতে দেব না। এ জন্য আমাদের উপজেলা ও জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটি এবং বিজিবির রেজ্যুলেশন করা হয়েছে। এরপরও কেউ যদি জোর করে কাঁটাতারের বেড়া কেটে গরু আনতে গিয়ে গুলি খেয়ে মারা যায়, তার দায়দায়িত্ব বাংলাদেশ সরকার নেবে না।’

মন্ত্রী জানান, বৃহস্পতিবার নিহতদের মধ্যে দুই বাংলাদেশির মরদেহ ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা চলছে।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ফেসবুক ও ইউটিউবের কারণে যুবকদের নৈতিক অবক্ষয় ঘটছে। তাই এগুলো ব্যবহারের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের সতর্ক থাকতে হবে। অভিভাবকদেরও এ ব্যাপারে নজরদারি থাকতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়তে ভূমিকা রাখতে হবে।  তিনি বলেন, ছোটবেলা থেকেই শিক্ষার্থীদের মাঝে দেশপ্রেম গড়ে তুলতে হবে। এ ব্যাপারে অভিভাবক এবং শিক্ষার্থীদের যথাযথ ভূমিকা রাখতে হবে। শিক্ষার্থীদের মাঝে দেশপ্রেম না থাকলে শিক্ষার কোনো মূল্য নেই।

দামকুড়াহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের গৌরবের ৭৩ বছরে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান মকবুল হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান মনসুর রহমান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শাহাদাত হোসেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশনের সাবেক অতিরিক্ত মহাব্যবস্থাপক আবদুল লতিফ। স্বাগত বক্তব্য দেন স্কুলটির প্রধান শিক্ষক ফেরদৌস আলী। এক দিনের এই অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় অধিবেশনে গুণীজন সংবর্ধনা এবং মনোজ্ঞ সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

সীমান্তে গরু আনতে গিয়ে নিহত হলে দায় নেবে না সরকার: খাদ্যমন্ত্রী

 রাজশাহী ব্যুরো 
২৫ জানুয়ারি ২০২০, ০৮:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার
খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। ফাইল ছবি

ভারতে অনুপ্রবেশ করে গরু আনতে গিয়ে গুলিতে কেউ নিহত হলে সরকার কোনো দায়িত্ব নেবে না বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।

শনিবার দুপুরে রাজশাহীর পবা উপজেলার দামকুড়াহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের হীরক জয়ন্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার ভোরে নওগাঁর পোরশা উপজেলার দুয়ারপাল সীমান্ত এলাকায় বিএসএফ জওয়ানদের গুলিতে তিন বাংলাদেশি নিহত হন। এর মধ্যে দুজনের লাশ নিয়ে গেছে বিএসএফ। পোরশা সীমান্ত খাদ্যমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকা। এদিন সেই প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, ‘আসলে আমাদের চরিত্র ভালো না হলে পরের দোষ দিয়ে লাভ নেই।’

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ভারত থেকে গরু আনতে দেব না। এ জন্য আমাদের উপজেলা ও জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটি এবং বিজিবির রেজ্যুলেশন করা হয়েছে। এরপরও কেউ যদি জোর করে কাঁটাতারের বেড়া কেটে গরু আনতে গিয়ে গুলি খেয়ে মারা যায়, তার দায়দায়িত্ব বাংলাদেশ সরকার নেবে না।’

মন্ত্রী জানান, বৃহস্পতিবার নিহতদের মধ্যে দুই বাংলাদেশির মরদেহ ফিরিয়ে আনতে চেষ্টা চলছে।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ফেসবুক ও ইউটিউবের কারণে যুবকদের নৈতিক অবক্ষয় ঘটছে। তাই এগুলো ব্যবহারের ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের সতর্ক থাকতে হবে। অভিভাবকদেরও এ ব্যাপারে নজরদারি থাকতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়তে ভূমিকা রাখতে হবে। তিনি বলেন, ছোটবেলা থেকেই শিক্ষার্থীদের মাঝে দেশপ্রেম গড়ে তুলতে হবে। এ ব্যাপারে অভিভাবক এবং শিক্ষার্থীদের যথাযথ ভূমিকা রাখতে হবে। শিক্ষার্থীদের মাঝে দেশপ্রেম না থাকলে শিক্ষার কোনো মূল্য নেই।

দামকুড়াহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের গৌরবের ৭৩ বছরে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক ছিলেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান মকবুল হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান মনসুর রহমান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শাহাদাত হোসেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশনের সাবেক অতিরিক্ত মহাব্যবস্থাপক আবদুল লতিফ। স্বাগত বক্তব্য দেন স্কুলটির প্রধান শিক্ষক ফেরদৌস আলী। এক দিনের এই অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় অধিবেশনে গুণীজন সংবর্ধনা এবং মনোজ্ঞ সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।