‘টাকার মেশিন’ সেই অধ্যক্ষ মিজান কারাগারে
jugantor
‘টাকার মেশিন’ সেই অধ্যক্ষ মিজান কারাগারে

  চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি  

২৬ জানুয়ারি ২০২০, ২২:৫৫:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

চাটমোহর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান

শতবর্ষী গাছ কাটার মামলায় পাবনার চাটমোহর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমানের জামিন না-মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার পাবনা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু সালেহ মো. সালাহউদ্দিন খাঁ শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

জানা গেছে, অধ্যক্ষ মিজানের বিরুদ্ধে একই কলেজের সহকারী অধ্যাপক মো. আবদুল মান্নান কলেজের শতবর্ষীসহ বেশকিছু গাছ কাটার অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার শুনানি শেষে আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

এরপর অধ্যক্ষ মিজান উচ্চ আদালতে আগাম জামিনের আবেদন করলে বিচারপতি ৬ সপ্তাহের আগাম জামিন প্রদান করেন এবং জামিনের মেয়াদ শেষে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন।

শনিবার উচ্চ আদালতের জামিনের মেয়াদ শেষ হলে রোববার পাবনা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে হাজির হয়ে আইনজীবীর মাধ্যমে জামিন আবেদন করলে উভয়পক্ষের আইনজীবীদের বক্তব্য শুনানি শেষে নথি পর্যালোচনা করে অধ্যক্ষ মিজানের জামিন আবেদন না-মঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক।

উল্লেখ্য, যুগান্তরে গত ২৭ অক্টোবর ‘টাকার মেশিন’ অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান’ শিরোনামে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ হয়।

‘টাকার মেশিন’ সেই অধ্যক্ষ মিজান কারাগারে

 চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি 
২৬ জানুয়ারি ২০২০, ১০:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
চাটমোহর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান
চাটমোহর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান

শতবর্ষী গাছ কাটার মামলায় পাবনার চাটমোহর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমানের জামিন না-মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

রোববার পাবনা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আবু সালেহ মো. সালাহউদ্দিন খাঁ শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। 

জানা গেছে, অধ্যক্ষ মিজানের বিরুদ্ধে একই কলেজের সহকারী অধ্যাপক মো. আবদুল মান্নান কলেজের শতবর্ষীসহ বেশকিছু গাছ কাটার অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার শুনানি শেষে আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

এরপর অধ্যক্ষ মিজান উচ্চ আদালতে আগাম জামিনের আবেদন করলে বিচারপতি ৬ সপ্তাহের আগাম জামিন প্রদান করেন এবং জামিনের মেয়াদ শেষে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেন।

শনিবার উচ্চ আদালতের জামিনের মেয়াদ শেষ হলে রোববার পাবনা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে হাজির হয়ে আইনজীবীর মাধ্যমে জামিন আবেদন করলে উভয়পক্ষের আইনজীবীদের বক্তব্য শুনানি শেষে নথি পর্যালোচনা করে অধ্যক্ষ মিজানের জামিন আবেদন না-মঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক।

উল্লেখ্য, যুগান্তরে গত ২৭ অক্টোবর ‘টাকার মেশিন’ অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান’ শিরোনামে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন