শোকের সংবাদে ছবি না থাকায় বিএনপি নেতার কাণ্ড!

  অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি ৩১ জানুয়ারি ২০২০, ১৫:২৭ | অনলাইন সংস্করণ

যশোর জেলা বিএনপির সাবেক নেতা মশিয়ার রহমান মশির
যশোর জেলা বিএনপির সাবেক নেতা মশিয়ার রহমান মশির। ছবি: যুগান্তর

যশোর জেলা বিএনপির সাবেক নেতা মশিয়ার রহমান মশির বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের মারতে তেড়ে আসার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নওয়াপাড়া নূরবাগ এলাকায় এ অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় অভয়নগরের সাংবাদিক সমাজে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় সাংবাদিকরা বলছেন, অভয়নগরে উপজেলা থেকে প্রকাশিত একটি আঞ্চলিক পত্রিকায় নিজের ছবিসহ নাম না পেয়ে সাংবাদিকদের ওপর ক্ষোভে ফেটে পড়েন বিএনপির সাবেক নেতা মশিয়ার রহমান মশি।

ওই দিন সন্ধ্যায় নওয়াপাড়ার নূরবাগ এলাকায় ওই পত্রিকার দুই সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টারের পথ আগলে তাদের ওপর মারমুখী হন মশিয়ার রহমান। এ সময় তিনি চিৎকার দিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্ন করেন- আমার ছবি পত্রিকায় ছাপানো হয়নি কেন? সাংবাদিকদের মারলে কি হয়?

বিএনপি নেতার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ভিড় জমায় ও তাকে শান্ত করে ওই দুই সাংবাদিককে রক্ষা করে।

জানা গেছে, বুধবার নওয়াপাড়া পীরবাড়ি মেঝ হুজুরের সহধর্মিণীর মৃত্যুতে শোক জানাতে উপস্থিত হন যশোর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপিকা নার্গিস ইসলাম। এ সময় তার সঙ্গে স্থানীয় অভয়নগর উপজেলা বিএনপির শতাধিক নেতৃবৃন্দ অংশ নেন। স্থানীয় সংবাদপত্র শোক সন্তপ্ত পরিবারের পাশে নার্গিস ইসলামের ছবি তুলে পত্রিকায় প্রকাশ করলেও মশিয়ার রহমান মশির ছবি বাদ পড়ে যায়।

পর দিন প্রকাশিত পত্রিকায় নিজের ছবি না দেখতে পেয়ে তেলেবেগুনে জ্বলে উঠেন ওই বিএনপি নেতা।

এ বিষয়ে পত্রিকাটির দুই সাংবাদিক সাকিব জিকো ও আরআই রাজা বলেন, এটি অনিচ্ছাকৃত। ওই সময় জেলা বিএনপির আহ্বায়কের কাছাকাছি ছিলেন না মশিয়ার রহমান। তাই ছবিতে তিনি আসেননি।

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৩৩০ ৩৩ ২১
বিশ্ব ১৬,০৪,৫৩৫ ৩,৫৬,৬৬০ ৯৫,৭৩৪
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত