সাগরপথে ফের মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টা, ১৭ রোহিঙ্গা উদ্ধার
jugantor
সাগরপথে ফের মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টা, ১৭ রোহিঙ্গা উদ্ধার

  টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি  

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:২৪:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

সাগরপথে ফের মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টা, ১৭ রোহিঙ্গা উদ্ধার
ফাইল ছবি

সাগরপথে অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার প্রস্তুতিকালে কক্সবাজারের টেকনাফ উপকূল থেকে ১৭ রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে টেকনাফের শামলাপুরবাজার ও এর আশপাশের এলাকা থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়।
 
অভিযানে পরিচালনাকারী বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক লিয়াকত আলী জানান, দালাল চক্রের প্রলোভনে সমুদ্রপথে ট্রলারে রোহিঙ্গাদের ফের মালয়েশিয়া পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে, এমন খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে ১৭ জনকে আটক করা হয়েছে। তারা সবাই রোহিঙ্গা। তাদের যাচাই-বাচাই চলছে।  
 
এর আগে গত ১১ ফেব্রুয়ারি অবৈধভাবে সাগরপথে মালয়েশিয়া যাওয়ার সময় ১৩৮ যাত্রী নিয়ে একটি ট্রলার সেন্টমার্টিনসংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে পাথরের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ডুবে যায়।

দুর্ঘটনার পর ওই দিনই ১৫ রোহিঙ্গা ও পরে আরও ছয়জনসহ ২১ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়া জীবিত উদ্ধার করা হয় ৭৩ জনকে। এ ঘটনায় ১৯ দালালকে অভিযুক্ত করে থানায় মামলা করেছে কোস্টগার্ড। সেই মামলায় ৯ জনকে আটক করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

সাগরপথে ফের মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টা, ১৭ রোহিঙ্গা উদ্ধার

 টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি 
১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সাগরপথে ফের মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টা, ১৭ রোহিঙ্গা উদ্ধার
ফাইল ছবি

সাগরপথে অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার প্রস্তুতিকালে কক্সবাজারের টেকনাফ উপকূল থেকে ১৭ রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে টেকনাফের শামলাপুরবাজার ও এর আশপাশের এলাকা থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়।

অভিযানে পরিচালনাকারী বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক লিয়াকত আলী জানান, দালাল চক্রের প্রলোভনে সমুদ্রপথে ট্রলারে রোহিঙ্গাদের ফের মালয়েশিয়া পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে, এমন খবর পেয়ে অভিযান চালিয়ে ১৭ জনকে আটক করা হয়েছে। তারা সবাই রোহিঙ্গা। তাদের যাচাই-বাচাই চলছে।

এর আগে গত ১১ ফেব্রুয়ারি অবৈধভাবে সাগরপথে মালয়েশিয়া যাওয়ার সময় ১৩৮ যাত্রী নিয়ে একটি ট্রলার সেন্টমার্টিনসংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে পাথরের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ডুবে যায়।

দুর্ঘটনার পর ওই দিনই ১৫ রোহিঙ্গা ও পরে আরও ছয়জনসহ ২১ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়া জীবিত উদ্ধার করা হয় ৭৩ জনকে। এ ঘটনায় ১৯ দালালকে অভিযুক্ত করে থানায় মামলা করেছে কোস্টগার্ড। সেই মামলায় ৯ জনকে আটক করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

 

ঘটনাপ্রবাহ : রোহিঙ্গা বর্বরতা