দেওয়ানগঞ্জে ৩টি কবরস্থানের ৮ লাশ চুরি
jugantor
দেওয়ানগঞ্জে ৩টি কবরস্থানের ৮ লাশ চুরি

  দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি  

০৩ মার্চ ২০২০, ২২:১১:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

দেওয়ানগঞ্জে ৩টি কবরস্থানের ৮ লাশ চুরি

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা ৩টি কবরস্থান থেকে ৮টি লাশ চুরির ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার সকালে চিকাজানী ইউনিয়নের যমুনা নদী তীরবর্তী এলাকা বড়খাল গ্রামের ভোরে মৃত্ ব্যক্তির স্বজনরা কবর জিয়ারত করতে গেলে কবরস্থান খোঁড়া অবস্থায় দেখা যায়। বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে কবরস্থানে মানুষের ভিড় জমে। কবর খুঁড়ে ৫টি লাশ চুরি হয়ে গেছে।

চিকাজানী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মমতাজ উদ্দিন জানান, আ. রহমানের বড় ছেলে সুরুজ আলী, হযরত আলীর ছেলে শাহালম, ইদ্রিস আলীর ছেলে জালাল এবং ২ জন নারী ফুরি বেগম ও সেহেরন বেগমকে প্রায় ৩ মাস আগে দাফন করা হয়। মঙ্গলবার ভোর রাতে লাশগুলো চুরি হয়।

এ ছাড়া দেওয়ানগঞ্জ ইউনিয়নের খড়মা গোরস্থান থেকে ২টি লাশ ও গামারিয়া গোরস্থান থেকে ১টি লাশ চুরি হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দেওয়ানগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছামিউল ইসলাম।

স্থানীয় লোকজনদের ধারণা সংঘবদ্ধ কঙ্কাল চোর অথবা নেশাখোরেরা টাকার জন্য এ ধরনের কঙ্কাল চুরি করতে পারে।

দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার ওসি এম এম ময়নুল ইসলাম জানান, এ ব্যাপারে লিখিত কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েছিল। আসামিদের ধরতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

দেওয়ানগঞ্জে ৩টি কবরস্থানের ৮ লাশ চুরি

 দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি 
০৩ মার্চ ২০২০, ১০:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
দেওয়ানগঞ্জে ৩টি কবরস্থানের ৮ লাশ চুরি
দেওয়ানগঞ্জে ৩টি কবরস্থানের ৮ লাশ চুরি

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা ৩টি কবরস্থান থেকে ৮টি লাশ চুরির ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার সকালে চিকাজানী ইউনিয়নের যমুনা নদী তীরবর্তী এলাকা বড়খাল গ্রামের ভোরে মৃত্ ব্যক্তির স্বজনরা কবর জিয়ারত করতে গেলে কবরস্থান খোঁড়া অবস্থায় দেখা যায়। বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে কবরস্থানে মানুষের ভিড় জমে। কবর খুঁড়ে ৫টি লাশ চুরি হয়ে গেছে।

চিকাজানী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মমতাজ উদ্দিন জানান, আ. রহমানের বড় ছেলে সুরুজ আলী, হযরত আলীর ছেলে শাহালম, ইদ্রিস আলীর ছেলে জালাল এবং ২ জন নারী ফুরি বেগম ও সেহেরন বেগমকে প্রায় ৩ মাস আগে দাফন করা হয়। মঙ্গলবার ভোর রাতে লাশগুলো চুরি হয়।

এ ছাড়া দেওয়ানগঞ্জ ইউনিয়নের খড়মা গোরস্থান থেকে ২টি লাশ ও গামারিয়া গোরস্থান থেকে ১টি লাশ চুরি হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দেওয়ানগঞ্জ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছামিউল ইসলাম।

স্থানীয় লোকজনদের ধারণা সংঘবদ্ধ কঙ্কাল চোর অথবা নেশাখোরেরা টাকার জন্য এ ধরনের কঙ্কাল চুরি করতে পারে।

দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার ওসি এম এম ময়নুল ইসলাম জানান, এ ব্যাপারে লিখিত কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েছিল। আসামিদের ধরতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন