বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ কবিতা: রফিকুল হক দাদুভাই
jugantor
বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ কবিতা: রফিকুল হক দাদুভাই

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো  

০৫ মার্চ ২০২০, ২০:১৪:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

রফিকুল হক দাদুভাই
রফিকুল হক দাদুভাই। ছবি: যুগান্তর

দৈনিক যুগান্তরের ফিচার সম্পাদক খ্যাতিমান ছড়াকার ও শিশুসাহিত্যিক রফিকুল হক দাদুভাই বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ কবিতা। তর্জনী ঊর্ধ্বে তুলে দেয়া শ্বাসরুদ্ধকর ওই ভাষণ একদিকে মুক্তিকামী বাঙালি জাতিকে মন্ত্রমুগ্ধের মতো জাগিয়ে তুলেছিল, অপরদিকে নাড়িয়ে দিয়েছিল পশ্চিমা শাসকগোষ্ঠীর ভীত। 

তিনি বলেন, ৭ মার্চের ভাষণ আজ বাঙালি জাতির মুখে মুখে উচ্চারিত এক অজর কবিতা, অবিনাশী গান। বঙ্গবন্ধুর সেদিনের ওই ভাষণের মহিমা ও শিল্প সৌন্দর্য্ ভাষায় প্রকাশ করার নয়। 

বৃহস্পতিবার সকালে তিন দিনব্যাপী ১৬তম কিশোরগঞ্জ ছড়া উৎসব ও চন্দ্রাবতী  মেলার উদ্বোধক হিসেবে বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি এ সব কথা বলছিলেন।

দাদুভাই বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের সময়ও অসংখ্য ছড়া-কবিতা ও গান রচিত হয়েছে। এ সব সৃষ্টি মহান মুক্তিযুদ্ধে রনাঙ্গণের লড়াকু মুক্তিযোদ্ধাদের মা-মাটি ও মানুষের প্রতি দায়বদ্ধতার বার্তা দিয়েছে। তাদের অনুপ্রাণিত ও উজ্জ্বীবিত করেছে। বলতে গেলে ছড়া হল মায়ের মুখের ভাষা।

তিনি বলেন, কিশোরগঞ্জ হচ্ছে বাংলাদেশের ছড়া-সাহিত্যের সূতিকাগার। এই মাটিতেই জন্ম নিয়েছেন ছড়া-সাহিত্যের প্রবাদপুরুষ সুকুমার রায়, উপেন্দ্র কিশোর রায় চৌধুরী এবং বাঙলা সাহিত্যের প্রথম মহিলা কবি চন্দ্রাবতী। বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তী অস্কার বিজয়ী চলচ্চিত্র নির্মাতা সত্যজিৎ রায়ের শেকড়ও এ পবিত্র মাটিতেই প্রোথিত। 

‘ছড়ায় হোক অঙ্গীকার, দুর্নীতি রুখিবার’ স্লোগানের মধ্য দিয়ে আজ বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে তিন দিনব্যাপী কিশোরগঞ্জ ছড়া উৎসব ও চন্দ্রাবতী মেলা। 

দৈনিক যুগান্তরের ফিচার সম্পাদক রফিকুল হক দাদুভাই এ উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। 

ছড়া উৎসব পরিচালনা পর্ষদের আহ্বায়ক দৈনিক শতাব্দীর কণ্ঠের সম্পাদক আহমেদ উল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী।  

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট কামরুল আহসান শাহজাহান, মাসিক কিশোর ভারতীর নির্বাহী সম্পাদক ও পত্র ভারতীর পরিচালক চুমকি চট্টোপাধ্যায়, অধ্যাপক আবুল কাশেম সালতু। অনুষ্ঠান সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন কবি আবুল এহসান অপু।

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ কবিতা: রফিকুল হক দাদুভাই

 কিশোরগঞ্জ ব্যুরো 
০৫ মার্চ ২০২০, ০৮:১৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রফিকুল হক দাদুভাই
রফিকুল হক দাদুভাই। ছবি: যুগান্তর

দৈনিক যুগান্তরের ফিচার সম্পাদক খ্যাতিমান ছড়াকার ও শিশুসাহিত্যিক রফিকুল হক দাদুভাই বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ কবিতা। তর্জনী ঊর্ধ্বে তুলে দেয়া শ্বাসরুদ্ধকর ওই ভাষণ একদিকে মুক্তিকামী বাঙালি জাতিকে মন্ত্রমুগ্ধের মতো জাগিয়ে তুলেছিল, অপরদিকে নাড়িয়ে দিয়েছিল পশ্চিমা শাসকগোষ্ঠীর ভীত।

তিনি বলেন, ৭ মার্চের ভাষণ আজ বাঙালি জাতির মুখে মুখে উচ্চারিত এক অজর কবিতা, অবিনাশী গান। বঙ্গবন্ধুর সেদিনের ওই ভাষণের মহিমা ও শিল্প সৌন্দর্য্ ভাষায় প্রকাশ করার নয়।

বৃহস্পতিবার সকালে তিন দিনব্যাপী ১৬তম কিশোরগঞ্জ ছড়া উৎসব ও চন্দ্রাবতী মেলার উদ্বোধক হিসেবে বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি এ সব কথা বলছিলেন।

দাদুভাই বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের সময়ও অসংখ্য ছড়া-কবিতা ও গান রচিত হয়েছে। এ সব সৃষ্টি মহান মুক্তিযুদ্ধে রনাঙ্গণের লড়াকু মুক্তিযোদ্ধাদের মা-মাটি ও মানুষের প্রতি দায়বদ্ধতার বার্তা দিয়েছে। তাদের অনুপ্রাণিত ও উজ্জ্বীবিত করেছে। বলতে গেলে ছড়া হল মায়ের মুখের ভাষা।

তিনি বলেন, কিশোরগঞ্জ হচ্ছে বাংলাদেশের ছড়া-সাহিত্যের সূতিকাগার। এই মাটিতেই জন্ম নিয়েছেন ছড়া-সাহিত্যের প্রবাদপুরুষ সুকুমার রায়, উপেন্দ্র কিশোর রায় চৌধুরী এবং বাঙলা সাহিত্যের প্রথম মহিলা কবি চন্দ্রাবতী। বাংলা চলচ্চিত্রের কিংবদন্তী অস্কার বিজয়ী চলচ্চিত্র নির্মাতা সত্যজিৎ রায়ের শেকড়ও এ পবিত্র মাটিতেই প্রোথিত।

‘ছড়ায় হোক অঙ্গীকার, দুর্নীতি রুখিবার’ স্লোগানের মধ্য দিয়ে আজ বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে তিন দিনব্যাপী কিশোরগঞ্জ ছড়া উৎসব ও চন্দ্রাবতী মেলা।

দৈনিক যুগান্তরের ফিচার সম্পাদক রফিকুল হক দাদুভাই এ উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

ছড়া উৎসব পরিচালনা পর্ষদের আহ্বায়ক দৈনিক শতাব্দীর কণ্ঠের সম্পাদক আহমেদ উল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান খালেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট কামরুল আহসান শাহজাহান, মাসিক কিশোর ভারতীর নির্বাহী সম্পাদক ও পত্র ভারতীর পরিচালক চুমকি চট্টোপাধ্যায়, অধ্যাপক আবুল কাশেম সালতু। অনুষ্ঠান সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন কবি আবুল এহসান অপু।