নরসিংদীতে মাদ্রাসাছাত্রীকে পিটিয়ে হত্যা, ৪ ভাই-বোন আটক
jugantor
নরসিংদীতে মাদ্রাসাছাত্রীকে পিটিয়ে হত্যা, ৪ ভাই-বোন আটক

  নরসিংদী প্রতিনিধি  

১৮ মার্চ ২০২০, ২১:৪২:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

পিটিয়ে হত্যা

নরসিংদীর পলাশে আফিয়া (১৬) নামে এক মাদ্রাসাছাত্রীকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তার মাথায় একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

বুধবার পলাশ থানা পুলিশ গজারিয়া মধ্যপাড়া এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে তfর লাশ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় নিহতের দুই ভাই ও দুই বোনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ আটক করেছে।

নিহত আফিয়া (১৬) পলাশ উপজেলার গজারিয়া মধ্যপাড়া গ্রামের আজাহার মিয়ার ছোট মেয়ে। সে গজারিয়া দাখিল মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্রী।

পুলিশ, নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, কয়েক মাস আগে রাসেল নামে এক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে আফিয়া। রাসেল আফিয়াকে বিয়ের করা জন্য তাদের বাড়িতে প্রস্তাব দেয়।

কিন্তু রাসেল আগে থেকেই অন্য একটি মেয়েকে বিয়ে করেছে এমন খবর জানতে পেরে আফিয়ার পরিবার এই সম্পর্ক মেনে নেয়নি। পরবর্তীকালে আফিয়ার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি তার বড়ভাই আলম গত এক মাস যাবৎ তার নিজের কাছে রেখে দেয়। মাঝে মধ্যে রাসেল ওই মোবাইলে কল দিলে ফোনটি আফিয়ার বড়ভাই আলম রিসিভ করত।

এ নিয়ে আফিয়া ও তার পরিবারের মধ্য প্রায়ই ঝগড়া হতো। ঘটনার দিন রাতে মঙ্গলবার আফিয়ার সঙ্গে তার দুই বোন ও একই ঘরের পার্টিশন রুমে তার দুই ভাই শাখাওয়াত ও আলম এবং দুই বোনের জামাই মোশারফ ও তারেক একসঙ্গে ঘুমাতে যায়।

তবে আশপাশের বাড়ির লোকজন জানান, গভীর রাতে নিহতের পিতা আজাহার ও নিহতের মায়ের চিৎকারে আশপাশের বাড়ির লোকজন ছুটে আসে। তখন আফিয়ার বাড়ির লোকজন কিছু হয়নি বলে জানায়।

পরবর্তীকালে ভোরবেলা আবার নিহতের পরিবারে কান্নাকাটির শব্দ পেয়ে আশপাশের বাড়ির লোকজন ছুটে আসে। এবার আফিয়ার পরিবার থেকে জানানো হয়, ঘরের সিঁধ কেটে কে বা কারা ঘুমন্ত অবস্থায় আফিয়াকে তুলে নিয়ে হত্যা করে বাড়ির পাশে লাশ ফেলে রেখে গেছে।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। নিহত আফিয়ার মাথায় একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

তবে এলাকাবাসীর দাবি, এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড।

পলাশ থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন ও খুনিদের গ্রেফতার করতে পুলিশ সবরকম চেষ্টা করছে।

নরসিংদীতে মাদ্রাসাছাত্রীকে পিটিয়ে হত্যা, ৪ ভাই-বোন আটক

 নরসিংদী প্রতিনিধি 
১৮ মার্চ ২০২০, ০৯:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
পিটিয়ে হত্যা
পিটিয়ে হত্যা। প্রতীকী ছবি

নরসিংদীর পলাশে আফিয়া (১৬) নামে এক মাদ্রাসাছাত্রীকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তার মাথায় একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। 

বুধবার পলাশ থানা পুলিশ গজারিয়া মধ্যপাড়া এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে তfর লাশ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় নিহতের দুই ভাই ও দুই বোনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ আটক করেছে।

নিহত আফিয়া (১৬) পলাশ উপজেলার গজারিয়া মধ্যপাড়া গ্রামের আজাহার মিয়ার ছোট মেয়ে। সে গজারিয়া দাখিল মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্রী। 

পুলিশ, নিহতের স্বজন ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, কয়েক মাস আগে রাসেল নামে এক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে আফিয়া। রাসেল আফিয়াকে বিয়ের করা জন্য তাদের বাড়িতে প্রস্তাব দেয়। 

কিন্তু রাসেল আগে থেকেই অন্য একটি মেয়েকে বিয়ে করেছে এমন খবর জানতে পেরে আফিয়ার পরিবার এই সম্পর্ক মেনে নেয়নি। পরবর্তীকালে আফিয়ার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি তার বড়ভাই আলম গত এক মাস যাবৎ তার নিজের কাছে রেখে দেয়। মাঝে মধ্যে রাসেল ওই মোবাইলে কল দিলে ফোনটি আফিয়ার বড়ভাই আলম রিসিভ করত। 

এ নিয়ে আফিয়া ও তার পরিবারের মধ্য প্রায়ই ঝগড়া হতো। ঘটনার দিন রাতে মঙ্গলবার আফিয়ার সঙ্গে তার দুই বোন ও একই ঘরের পার্টিশন রুমে তার দুই ভাই শাখাওয়াত ও আলম এবং দুই বোনের জামাই মোশারফ ও তারেক একসঙ্গে ঘুমাতে যায়।

তবে আশপাশের বাড়ির লোকজন জানান, গভীর রাতে নিহতের পিতা আজাহার ও নিহতের মায়ের চিৎকারে আশপাশের বাড়ির লোকজন ছুটে আসে। তখন আফিয়ার বাড়ির লোকজন কিছু হয়নি বলে জানায়। 

পরবর্তীকালে ভোরবেলা আবার নিহতের পরিবারে কান্নাকাটির শব্দ পেয়ে আশপাশের বাড়ির লোকজন ছুটে আসে। এবার আফিয়ার পরিবার থেকে জানানো হয়, ঘরের সিঁধ কেটে কে বা কারা ঘুমন্ত অবস্থায় আফিয়াকে তুলে নিয়ে হত্যা করে বাড়ির পাশে লাশ ফেলে রেখে গেছে। 

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। নিহত আফিয়ার মাথায় একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানায় পুলিশ। 

তবে এলাকাবাসীর দাবি, এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড।

পলাশ থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন বলেন, এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন ও খুনিদের গ্রেফতার করতে পুলিশ সবরকম চেষ্টা করছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন