সাবেক সংসদ সদস্য ইরতিজা আহসান মারা গেছেন
jugantor
সাবেক সংসদ সদস্য ইরতিজা আহসান মারা গেছেন

  বামনা (বরগুনা) প্রতিনিধি  

১৩ এপ্রিল ২০২০, ২৩:০৫:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

সৈয়দ রাহমাতুর রব ইরতিজা আহসান

সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য (বরগুনা-২) সৈয়দ রাহমাতুর রব ইরতিজা আহসান হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টায় ঢাকার এ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।

তিনি বরগুনার বামনার সম্ভ্রান্ত জমিদার পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম সৈয়দ নাজমুল আহসান বামনার জমিদার ছিলেন। তিনি পারিবারিক ধারাবাহিকতায় ১৯৬৪ সন থেকে ১৯৮৩ সন পর্যন্ত অবিচ্ছিন্নভাবে বামনা সদর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৮৫ সনে বামনা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং ১৯৮৬ সালে জাতীয় পার্টি থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হিসেবে রাষ্ট্রপতির স্বর্ণপদক লাভ করেন।

তিনি পর পর দুই বার জাতীয় পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় ফেডারেশনের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধে বামনায় তার ও তার পরিবারের অবদান অবিস্মরণীয়। তিনি একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা।

মৃত্যুকালে তিনি তিন পুত্র, চার কন্যা, দুই ভাই, এক বোন ও বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

তার মৃত্যুতে গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করে শোক প্রকাশ করেছেন সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন, সংসদ সদস্য সুলতানা নাদিরা, সাবেক সংসদ সদস্য নূরুল ইসলাম মণি, সাবেক সংসদ সদস্য হুমায়ুন কবীর হিরু, সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম সারওয়ার হিরু, সাবেক সংসদ সদস্য নাসিমা ফেরদৌস, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাবেক সংসদ সদস্য দেলোয়ার হোসেন, সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির এবং বামনা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. সাইতুল ইসলাম লিটু প্রমুখ।

সাবেক সংসদ সদস্য ইরতিজা আহসান মারা গেছেন

 বামনা (বরগুনা) প্রতিনিধি 
১৩ এপ্রিল ২০২০, ১১:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সৈয়দ রাহমাতুর রব ইরতিজা আহসান
সৈয়দ রাহমাতুর রব ইরতিজা আহসান। ফাইল ছবি

সাবেক জাতীয় সংসদ সদস্য (বরগুনা-২) সৈয়দ রাহমাতুর রব ইরতিজা আহসান হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টায় ঢাকার এ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।

তিনি বরগুনার বামনার সম্ভ্রান্ত জমিদার পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম সৈয়দ নাজমুল আহসান বামনার জমিদার ছিলেন। তিনি পারিবারিক ধারাবাহিকতায় ১৯৬৪ সন থেকে ১৯৮৩ সন পর্যন্ত অবিচ্ছিন্নভাবে বামনা সদর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৮৫ সনে বামনা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং ১৯৮৬ সালে জাতীয় পার্টি থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।  তিনি বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হিসেবে রাষ্ট্রপতির স্বর্ণপদক লাভ করেন।

তিনি পর পর দুই বার জাতীয় পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় ফেডারেশনের  নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধে বামনায় তার ও তার পরিবারের অবদান অবিস্মরণীয়। তিনি একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা।

মৃত্যুকালে তিনি তিন পুত্র, চার কন্যা, দুই ভাই, এক বোন ও বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

তার মৃত্যুতে গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করে শোক প্রকাশ করেছেন সংসদ সদস্য ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, সংসদ সদস্য শওকত হাচানুর রহমান রিমন, সংসদ সদস্য সুলতানা নাদিরা, সাবেক সংসদ সদস্য নূরুল ইসলাম মণি, সাবেক সংসদ সদস্য হুমায়ুন কবীর হিরু, সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম সারওয়ার হিরু, সাবেক সংসদ সদস্য নাসিমা ফেরদৌস, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও সাবেক সংসদ সদস্য দেলোয়ার হোসেন, সাবেক জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির এবং  বামনা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. সাইতুল ইসলাম লিটু প্রমুখ।

 
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন