শেরপুরে পুলিশ-চিকিৎসকসহ ৬ জনের করোনা শনাক্ত
jugantor
শেরপুরে পুলিশ-চিকিৎসকসহ ৬ জনের করোনা শনাক্ত

  শেরপুর প্রতিনিধি  

১৭ এপ্রিল ২০২০, ২১:২০:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরে ২ চিকিৎসক ও ১ পুলিশ কর্মকর্তাসহ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৬ জন। শুক্রবার রাতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ইউনিটের ফলাফলের বরাত দিয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেন শেরপুরের সিভিল সার্জন ডা. একেএম আনওয়ারুর রউফ।

আক্রান্তরা হচ্ছেন নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দু'জন চিকিৎসক, ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, জেলা সদর হাসপাতালের এক অ্যাম্বুলেন্সচালক, সিভিল সার্জন অফিসের এক অফিস সহায়ক এবং নারায়ণগঞ্জফেরত শেরপুর সদর উপজেলার ধলা ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের এক যুবক।

এদের সবাইকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর তাৎক্ষণিকভাবে নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কার্যক্রম আপাতত স্থগিত করা হয়েছে, ঝিনাইগাতী থানায় বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে এবং আক্রান্তদের সংস্পর্শে থাকা অর্ধশতাধিক লোককে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রন্ত ১৫ জনের মধ্যে ৮ জনই স্বাস্থ্য বিভাগের। তবে প্রথম আক্রান্ত দুই নারী সুস্থ্য হয়ে বৃহস্পতিবার বাড়ি ফিরেছেন।

সিভিল সার্জন আরও জানান, বৃহস্পতিবার শেরপুর থেকে যে ৩৯ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছিল। এদের মধ্যে শুক্রবার রাত ৮ পর্যন্ত দুই দফা ফলাফলে ৬ জনের করোনাভাইরাস পজেটিভ আসে। এ ছাড়া শুক্রবার জেলা থেকে আরও ৩৭ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য সেখানে পাঠানো হয়েছে।

শেরপুরে পুলিশ-চিকিৎসকসহ ৬ জনের করোনা শনাক্ত

 শেরপুর প্রতিনিধি 
১৭ এপ্রিল ২০২০, ০৯:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরে ২ চিকিৎসক ও ১ পুলিশ কর্মকর্তাসহ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৬ জন। শুক্রবার রাতে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ইউনিটের ফলাফলের বরাত দিয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করেন শেরপুরের সিভিল সার্জন ডা. একেএম আনওয়ারুর রউফ। 

আক্রান্তরা হচ্ছেন নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দু'জন চিকিৎসক, ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, জেলা সদর হাসপাতালের এক অ্যাম্বুলেন্সচালক, সিভিল সার্জন অফিসের এক অফিস সহায়ক এবং নারায়ণগঞ্জফেরত শেরপুর সদর উপজেলার ধলা ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের এক যুবক। 

এদের সবাইকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর তাৎক্ষণিকভাবে নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কার্যক্রম আপাতত স্থগিত করা হয়েছে, ঝিনাইগাতী থানায় বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে এবং আক্রান্তদের সংস্পর্শে থাকা অর্ধশতাধিক লোককে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। 

এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রন্ত ১৫ জনের মধ্যে ৮ জনই স্বাস্থ্য বিভাগের। তবে প্রথম আক্রান্ত দুই নারী সুস্থ্য হয়ে বৃহস্পতিবার বাড়ি ফিরেছেন। 

সিভিল সার্জন আরও জানান, বৃহস্পতিবার শেরপুর থেকে যে ৩৯ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছিল। এদের মধ্যে শুক্রবার রাত ৮ পর্যন্ত দুই দফা ফলাফলে ৬ জনের করোনাভাইরাস পজেটিভ আসে। এ ছাড়া শুক্রবার জেলা থেকে আরও ৩৭ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য সেখানে পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন