নেত্রকোনায় ধানবোঝাই লড়ি উল্টে ২ শিশু নিহত
jugantor
নেত্রকোনায় ধানবোঝাই লড়ি উল্টে ২ শিশু নিহত

  মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি  

২৪ এপ্রিল ২০২০, ২২:৫৬:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার মদন উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের তলার হাওরে শুক্রবার সকালে বোরো ধানবোঝাই লড়ি উল্টে ২ শিশু নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ৩ জন।

শুক্রবার সকালে উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের জলভংগা নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হল দেওসহিলা গ্রামের লায়ন চৌধুরী ছেলে সৌরভ (৭) ও তাড়াইল উপজেলার আল আমিন মিয়ার ছেলে রোমান (৭)। রোমান নানা আ. করিমের বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল। আহতরা মদন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সকালে ফতেপুর ইউনিয়নের তলার হাওর থেকে দেওসহিলা গ্রামের কৃষক কাশেম মিয়ার ধান বাড়িতে আনার সময় পথে সৌরভ, রোমান, লায়ন মিয়া, রিয়াদ বাড়ি আসার জন্য লড়িতে উঠে পড়ে। সকালে বৃষ্টি হওয়ায় রাস্তা পিচ্ছিল থাকায় ধানবোঝাই লড়িটি জলভংগা নামক স্থানে এসে উল্টে যায়।

এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে মদন হাসপাতালে নিয়ে গেলে সৌরভ ও রোমানকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত ডা. অলিজা আক্তার। বাকি আহত রিয়াদ, লায়ন চৌধুরী, কাশেম মিয়া মদন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ব্যাপারে মদন থানার ওসি মো. রমিজুল হক জানান, লড়িচালক রিপন মিয়া পলাতক রয়েছে। লড়িটি আটক করে জনপ্রতিনিধির জিম্মায় রাখা হয়েছে।

নেত্রকোনায় ধানবোঝাই লড়ি উল্টে ২ শিশু নিহত

 মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি 
২৪ এপ্রিল ২০২০, ১০:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার মদন উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের তলার হাওরে শুক্রবার সকালে বোরো ধানবোঝাই লড়ি উল্টে ২ শিশু নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ৩ জন।

শুক্রবার সকালে উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের জলভংগা নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হল দেওসহিলা গ্রামের লায়ন চৌধুরী ছেলে সৌরভ (৭) ও তাড়াইল উপজেলার আল আমিন মিয়ার ছেলে রোমান (৭)। রোমান নানা আ. করিমের বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল। আহতরা মদন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সকালে ফতেপুর ইউনিয়নের তলার হাওর থেকে দেওসহিলা গ্রামের কৃষক কাশেম মিয়ার ধান বাড়িতে আনার সময় পথে সৌরভ, রোমান, লায়ন মিয়া, রিয়াদ বাড়ি আসার জন্য লড়িতে উঠে পড়ে। সকালে বৃষ্টি হওয়ায় রাস্তা পিচ্ছিল থাকায় ধানবোঝাই লড়িটি জলভংগা নামক স্থানে এসে উল্টে যায়।

এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে মদন হাসপাতালে নিয়ে গেলে সৌরভ ও রোমানকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত ডা. অলিজা আক্তার। বাকি আহত রিয়াদ, লায়ন চৌধুরী, কাশেম মিয়া মদন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ব্যাপারে মদন থানার ওসি মো. রমিজুল হক জানান, লড়িচালক রিপন মিয়া পলাতক রয়েছে। লড়িটি আটক করে জনপ্রতিনিধির জিম্মায় রাখা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন