এবার ধান কাটতে মাঠে নেমেছেন এসপিসহ পুলিশ কর্মকর্তারা
jugantor
এবার ধান কাটতে মাঠে নেমেছেন এসপিসহ পুলিশ কর্মকর্তারা

  শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি  

০২ মে ২০২০, ১৯:২০:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে শেরপুর জেলা পুলিশের উদ্যোগে পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীমের উপস্থিতিতে বর্গাচাষী মোজাম্মেল হকের ধান কেটে মাড়াই করে দিয়েছেন পুলিশ সদস্যরা।

'আমরা আছি কৃষকের পাশে, মানবিক পুলিশের চোখে জনতার আকাঙ্ক্ষা লেখা থাকে'- এ স্লোগানকে ধারণ করে শ্রীবরদী থানা পুলিশ, কমিউনিটি পুলিশিং ফোরাম ও সামাজিক সংগঠন লোকাল বয়েজের সহযোগিতায় উপজেলার উত্তর ষাইটকাকড়া গ্রামের ওই অসহায় বর্গাচাষীর ২৫ শতক জমির ধান কেটে ঘরে তুলে দেয়া হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) বিল্লাল হোসেন, নালিতাবাড়ি সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর আলম, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি মোখলেছুর রহমান, শ্রীবরদী থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার, ওসি (তদন্ত) বন্দে আলী, তাঁতিহাটি ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুল্লাহ বিল্লাল, থানা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম জুয়েল, পৌর কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সভাপতি লিয়াকত হোসেন লিটন, লোকাল বয়েজের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক এজেড রুমানসহ থানা পুলিশের কর্মকর্তারা।

বর্গচাষী অসহায় কৃষক মোফাজ্জল হক বলেন, আমি গরীব মানুষ। শ্রমিক ও টাকার সংকটে ধান কাটতে পারছিলাম না। শ্রীবরদী থানা পুলিশ খবর পেয়ে আমার ধান কেটে ঘরে তুলে দিয়েছেন।

জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) বিল্লাল হোসেন, ওই বর্গচাষী আমাদের পুলিশকে অবগত করেছিল যে, শ্রমিক ও টাকার সংকটে সে ধান কেটে ঘরে তুলতে পারছেন না। পরে জেলা পুলিশের উদ্যোগে তার ক্ষেতের ধান কেটে ঘরে তুলে দেয়া হয়েছে।

এবার ধান কাটতে মাঠে নেমেছেন এসপিসহ পুলিশ কর্মকর্তারা

 শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি 
০২ মে ২০২০, ০৭:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে শেরপুর জেলা পুলিশের উদ্যোগে পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীমের উপস্থিতিতে বর্গাচাষী মোজাম্মেল হকের ধান কেটে মাড়াই করে দিয়েছেন পুলিশ সদস্যরা। 

'আমরা আছি কৃষকের পাশে, মানবিক পুলিশের চোখে জনতার আকাঙ্ক্ষা লেখা থাকে'- এ স্লোগানকে ধারণ করে শ্রীবরদী থানা পুলিশ, কমিউনিটি পুলিশিং ফোরাম ও সামাজিক সংগঠন লোকাল বয়েজের সহযোগিতায় উপজেলার উত্তর ষাইটকাকড়া গ্রামের ওই অসহায় বর্গাচাষীর ২৫ শতক জমির ধান কেটে ঘরে তুলে দেয়া হয়। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) বিল্লাল হোসেন, নালিতাবাড়ি সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর আলম, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি মোখলেছুর রহমান, শ্রীবরদী থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার, ওসি (তদন্ত) বন্দে আলী, তাঁতিহাটি ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুল্লাহ বিল্লাল, থানা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম জুয়েল, পৌর কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সভাপতি লিয়াকত হোসেন লিটন, লোকাল বয়েজের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক এজেড রুমানসহ থানা পুলিশের কর্মকর্তারা। 

বর্গচাষী অসহায় কৃষক মোফাজ্জল হক বলেন, আমি গরীব মানুষ। শ্রমিক ও টাকার সংকটে ধান কাটতে পারছিলাম না। শ্রীবরদী থানা পুলিশ খবর পেয়ে আমার ধান কেটে ঘরে তুলে দিয়েছেন।

জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) বিল্লাল হোসেন, ওই বর্গচাষী আমাদের পুলিশকে অবগত করেছিল যে, শ্রমিক ও টাকার সংকটে সে ধান কেটে ঘরে তুলতে পারছেন না। পরে জেলা পুলিশের উদ্যোগে তার ক্ষেতের ধান কেটে ঘরে তুলে দেয়া হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন