জগন্নাথপুরে মাড়াই নিয়ে সংঘর্ষে গুলি, গ্রেফতার হয়নি অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা

  জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি ২২ মে ২০২০, ২২:১৪:২৩ | অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামে অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের দৌরাত্ম্যে আতঙ্কিত স্থানীয়রা। প্রকাশ্যে গুলি ছুঁড়ে লোকদের আহত করলেও এখনও গ্রেফতার হয়নি অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা। অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, গত ২৭ এপ্রিল দুপুরে সাহেল আহমদ নিজ জমির ধান কেটে নিয়ে আসার পথে সফিক মিয়ার বাড়ির সামনে নিজস্ব জায়গায় ধান মাড়াই করতে গেলে সফিক মিয়া এতে বাঁধা প্রদান করেন। একপর্যায়ে দু’পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

অভিযোগ রয়েছে, সফিক মিয়ার পক্ষের লোকজনের বন্দুকের গুলিতে তিনজন গুলিবিদ্ধ হন এবং উভয়পক্ষের ১৫ জন আহত হন।

আহতদের মধ্যে সাহেল আহমদের পক্ষে রায়হান মিয়া (৩৫) বাবর মিয়া (২৬) ও রানা মিয়া (৩২) গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এবং সফিক মিয়ার পক্ষে সফিক মিয়া (৪৫) এবং জাহাঙ্গীর মিয়া (২৪) লাঠির আঘাতে আহত অবস্থায় সিলেটে এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অন্য আহতদের জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। খবর পেয়ে জগন্নাথপুর থানার এসআই আতিকুর রহমান সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এ ব্যাপারে সাহেল আহমদ বাদী হয়ে ২৯ এপ্রিল জগন্নাথপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে সহকারী পুলিশ সুপার (জগন্নাথপুর সার্কেল) মাহমুদুল হাসান চৌধুরীর সঙ্গে আলাপ হলে তিনি জানান, ইতিমধ্যে ওই মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতার ও অস্ত্র উদ্ধারে জোর প্রচেষ্টা চলছে।

জগন্নাথপুর থানার ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, মামলা রেকর্ডের পর প্রধান আসামি আজিজুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতার ও অস্ত্র উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত