ঈদের মাংস কিনতে বেরিয়ে লাশ হলেন যুবক
jugantor
ঈদের মাংস কিনতে বেরিয়ে লাশ হলেন যুবক

  দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি  

২৫ মে ২০২০, ১৬:২৩:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় ঈদের মাংস কিনতে বেরিয়ে লাশ হলেন সাইফুল ইসলাম (৩৮) নামে এক যুবক।

সোমবার সকাল ১০ টার দিকে উপজেলা সীমান্তের কুতুবপুর বিজিবি ক্যাম্পের পাশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশের ধারণা, তাকে শ্বসরোধে হত্যা করা হয়েছে।

নিহত সাইফুল ইসলাম উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের পীরপুরকুল্লা গ্রামের আব্দার হোসেনের ছেলে। তিনি ব্র্যাক এনজিওর চাপাইনবাবগঞ্জ শাখার মাঠকর্মী।

নিহতের পরিবার জানায়, রোববার বিকাল ৫টার দিকে সাইফুল ইসলাম ঈদের জন্য মাংস কিনতে বাড়ি থেকে বের হন। রাত হলেও তিনি বাড়ি না ফেরায় তাকে খোঁজাখুঁজি করা হয়। না পেয়ে রাতেই বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়।

স্থানীয়রা জানায়, সোমবার সকালে উপজেলা সীমান্তের কুতুবপুর বিজিবি ক্যাম্পের পাশে সাইফুলের লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়া হয়। পুলিশ এসে তার লাশ উদ্ধার করে।

দামুড়হুদা থানার ওসি আব্দুল খালেক বলেন, সাইফুল ইসলামের গলায় লাল দাগ আছে। নাক ও কান দিয়ে রক্ত বের হয়ে আছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় সন্দেহজনকভাবে মাংস বিক্রেতা রুহুল ও কসাই নজরুলকে আটক করা হয়েছে।

ঈদের মাংস কিনতে বেরিয়ে লাশ হলেন যুবক

 দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি 
২৫ মে ২০২০, ০৪:২৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় ঈদের মাংস কিনতে বেরিয়ে লাশ হলেন সাইফুল ইসলাম (৩৮) নামে এক যুবক।

সোমবার সকাল ১০ টার দিকে উপজেলা সীমান্তের কুতুবপুর বিজিবি ক্যাম্পের পাশ থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পুলিশের ধারণা, তাকে শ্বসরোধে হত্যা করা হয়েছে।

নিহত সাইফুল ইসলাম উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের পীরপুরকুল্লা গ্রামের আব্দার হোসেনের ছেলে। তিনি ব্র্যাক এনজিওর চাপাইনবাবগঞ্জ শাখার মাঠকর্মী।

নিহতের পরিবার জানায়, রোববার বিকাল ৫টার দিকে সাইফুল ইসলাম ঈদের জন্য মাংস কিনতে বাড়ি থেকে বের হন। রাত হলেও তিনি বাড়ি না ফেরায় তাকে খোঁজাখুঁজি করা হয়। না পেয়ে রাতেই বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়।

স্থানীয়রা জানায়, সোমবার সকালে উপজেলা সীমান্তের কুতুবপুর বিজিবি ক্যাম্পের পাশে সাইফুলের লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়া হয়। পুলিশ এসে তার লাশ উদ্ধার করে। 

দামুড়হুদা থানার ওসি আব্দুল খালেক বলেন, সাইফুল ইসলামের গলায় লাল দাগ আছে। নাক ও কান দিয়ে রক্ত বের হয়ে আছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় সন্দেহজনকভাবে মাংস বিক্রেতা রুহুল ও কসাই নজরুলকে আটক করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন