চট্টগ্রামে ইউপি সদস্যকে গুলি করে হত্যা
jugantor
চট্টগ্রামে ইউপি সদস্যকে গুলি করে হত্যা

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

২৫ মে ২০২০, ১৮:৪৮:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে মো. জব্বার (২৮) নামে ইউনিয়ন পরিষদের এক সদস্যকে গুলি করে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। সোমবার সকাল ১০টার দিকে তাকে গুলি করে পালিয়ে যায় হামলাকারীরা।

মো. জব্বার উপজেলার খিরাম ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য। এ ঘটনায় বিকাল পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, গত বছর অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সোহরাব হোসেন জয়ী হয়। এর পর থেকে পরাজিত প্রার্থী শহীদুল আলমের সঙ্গে চেয়ারম্যানের বিরোধ শুরু হয়। নিহত জব্বার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বিদ্রোহী হিসেবে পরিচিত। গত ১৮ মার্চ প্রতিপক্ষের হামলায় গুলিবিদ্ধ হন চেয়ারম্যান সোহরাব।

ফটিকছড়ি থানার ওসি বাবুল আক্তার যুগান্তরকে বলেন, রোববার চেয়ারম্যান সোহরাবের বিদ্রোহীরা তার এক লোককে অপহরণ করে বলে পুলিশকে জানায়। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। এরই জের ধরে জব্বারকে হত্যা করা হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার পর থেকে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। হামলাকারীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

চট্টগ্রামে ইউপি সদস্যকে গুলি করে হত্যা

 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
২৫ মে ২০২০, ০৬:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে মো. জব্বার (২৮) নামে ইউনিয়ন পরিষদের এক সদস্যকে গুলি করে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। সোমবার সকাল ১০টার দিকে তাকে গুলি করে পালিয়ে যায় হামলাকারীরা।

মো. জব্বার উপজেলার খিরাম ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য। এ ঘটনায় বিকাল পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, গত বছর অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সোহরাব হোসেন জয়ী হয়। এর পর থেকে পরাজিত প্রার্থী শহীদুল আলমের সঙ্গে চেয়ারম্যানের বিরোধ শুরু হয়। নিহত জব্বার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বিদ্রোহী হিসেবে পরিচিত। গত ১৮ মার্চ প্রতিপক্ষের হামলায় গুলিবিদ্ধ হন চেয়ারম্যান সোহরাব।

ফটিকছড়ি থানার ওসি বাবুল আক্তার যুগান্তরকে বলেন, রোববার চেয়ারম্যান সোহরাবের বিদ্রোহীরা তার এক লোককে অপহরণ করে বলে পুলিশকে জানায়। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। এরই জের ধরে জব্বারকে হত্যা করা হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার পর থেকে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। হামলাকারীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন