পদ্মা সেতুর ৪৫০০ মিটার দৃশ্যমান

  শরীয়তপুর প্রতিনিধি ৩০ মে ২০২০, ১১:৩৫:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

ছবি: যুগান্তর

করোনা মহামারীর মধ্য দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের স্বপ্নের পদ্মা সেতুর ৩০তম স্প্যানটি শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে ২৬-২৭ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে সেতুর ৪ হাজার ৫০০ মিটার দৃশ্যমান হয়েছে।

শনিবার সকাল ১০টায় জাজিরা প্রান্তে ২৬-২৭ নম্বর পিলারের ওপর ওই স্প্যানটি বসানো হয়।

বাকি থাকলো ১১টি স্প্যান বা দেড় কিলোমিটারের একটু বেশি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে করোনার মধ্যেই পদ্মা সেতুর কাজ এগিয়ে চলছে।

পদ্মা সেতু বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবীর জানান, শুক্রবার সকাল ৭টায় পদ্মা সেতু ৩০তম স্প্যানটি নিয়ে মুন্সিগঞ্জের কুমারভোগ জেটি থেকে শক্তিশালী ভাসমান ক্রেন তিয়ানিহাউ শরীয়তপুরের জাজিরার উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়।

ওইদিন দুপুর ১২টায় ২৬-২৭ নাম্বার পিলারের কাছে পৌঁছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় শনিবার সকাল ৭টা থেকে স্প্যানটি পিলারের ওপর বসানোর কাজ শুরু হয়। বেলা ১০টায় স্প্যানটি ২৬-২৭ নাম্বার পিলারের ওপর বসানো হয়।

করোনার কারণে পদ্মা সেতুর কাজে তেমন কোনো অসুবিধা হয়নি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে করোনার মধ্যেও পদ্মা সেতুর কাজ এগিয়ে চলছে। করোনার কারণে পুরো প্রকল্পটি আইসোলেটেড রাখা হয়েছে। তাই এখানকার দেশি-বিদেশি কর্মীরা অনেকটা নিরাপদ। বাইরের কাউকেই এখানে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।

২০১৭ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর সেতুর প্রথম স্প্যান বসানো হয়। চলতি বছরের ২৮ মার্চ ২৭তম স্প্যান বসানো হয়। ১১ এপ্রিল ২৮তম স্পেন ও ৪ মে ২৯তম স্প্যান সেতুর মাওয়া প্রান্তে বসানো হয়।

এ নিয়ে পদ্মা সেতুর কাজের অগ্রগতি হয়েছে ৮৭ ভাগ। নদী শাসনের কাজের অগ্রগতি হয়েছে ৭১ ভাগ। সেতুর সার্বিক কাজের অগ্রগতি হয়েছে ৭৯ ভাগ।

৩০তম স্প্যানের মধ্যে জাজিরা প্রান্তে ১৯টি আর মাওয়া প্রান্তে ১১টি স্প্যান বসানো হলো। বাকি ১১টি স্প্যান বা দেড় কিলোমিটার বাকি রইল। বর্ষার আগেই ৩১তম স্প্যান জাজিরা প্রন্তে বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে।

এ স্পেনটি বসানো হলে জাজিরা প্রান্তে সবকটি স্প্যান বসানোর কাজ শেষ হবে। শুধু মাওয়া প্রান্তে ১০টি স্প্যান বসানোর বাকি থাকবে।

সেতু বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান আ. কাদের বলেন, শনিবার পদ্মা সেতুর ৩০তম স্প্যানটি বসানো হলো। ইতোমধ্যে সেতুর প্রায় ৮৭.০৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। বর্ষার পূর্বে ৩১তম স্প্যানটি বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে। বাকি সব শিগগিরই বসিয়ে সেতুটি দৃশ্যমান করে তুলবো বলে আশা করছি।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত