টাঙ্গাইলে পঙ্গপাল সদৃশ পোকার আক্রমণ
jugantor
টাঙ্গাইলে পঙ্গপাল সদৃশ পোকার আক্রমণ

  টাঙ্গাইল প্রতিনিধি  

৩১ মে ২০২০, ২৩:২৯:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার মাইজবাড়ি গ্রামের একটি বাড়ির সুপারি ও নারিকেল গাছের পাতায় পঙ্গপাল সদৃশ পোকার আক্রমণ দেখা দিয়েছে। এতে বাড়ির লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বাড়িটি পরিদর্শন করে পোকাটি পঙ্গপাল নয় বলে জানান।

জানা গেছে, ভূঞাপুর উপজেলার মাইজবাড়ি গ্রামের জুব্বার আলীর বেশকিছু সুপারি ও নারিকেল গাছের কচি পাতায় কয়েকদিন ধরে পঙ্গপাল সদৃশ এক জাতীয় পোকা আক্রমণ করে। সপ্তাহখানেক আগে দুই শতাধিক পোকা কয়েকটি সুপারি ও নারিকেল গাছে আক্রমণ করে। ধীরে ধীরে পোকাগুলো গাছের সব পাতা খেয়ে ফেলে। এতে বাড়ির মালিক ও স্থানীয়রা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। পরে ভয়ে তারা গাছের ডাল কেটে ফেলেন।

বিষয়টি আশপাশে ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এলাকাবাসী এ ধরনের পোকা আগে কখনও দেখেনি।

বাড়ির মালিক জুব্বার আলীর ছেলে রবিউল ইসলাম বলেন, বেশ কয়েকদিন হল পোকাগুলো বাড়ির নারিকেল ও সুপারি গাছে আক্রমণ করেছে। দিন দিন পোকাগুলোর আক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় ডাল কেটে ফেলা হয়েছে। এতে বাড়ির অন্যান্য গাছ নিয়ে আতঙ্কে রয়েছি।

ভূঞাপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান বলেন, বিষয়টি জানার পরই ওই বাড়িতে গিয়ে পোকাগুলো দেখা হয়েছে। দেখে নিশ্চিত হয়েছি যে, এটি পঙ্গপাল নয়। এটি ক্যাটার ফিটার বা খোলস জাতীয় ক্ষতিকর পোকা। যা দ্রুত এক গাছ থেকে অন্য গাছে ছড়াতে পারে।

টাঙ্গাইলে পঙ্গপাল সদৃশ পোকার আক্রমণ

 টাঙ্গাইল প্রতিনিধি 
৩১ মে ২০২০, ১১:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার মাইজবাড়ি গ্রামের একটি বাড়ির সুপারি ও নারিকেল গাছের পাতায় পঙ্গপাল সদৃশ পোকার আক্রমণ দেখা দিয়েছে। এতে বাড়ির লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা বাড়িটি পরিদর্শন করে পোকাটি পঙ্গপাল নয় বলে জানান।

জানা গেছে, ভূঞাপুর উপজেলার মাইজবাড়ি গ্রামের জুব্বার আলীর বেশকিছু সুপারি ও নারিকেল গাছের কচি পাতায় কয়েকদিন ধরে পঙ্গপাল সদৃশ এক জাতীয় পোকা আক্রমণ করে। সপ্তাহখানেক আগে দুই শতাধিক পোকা কয়েকটি সুপারি ও নারিকেল গাছে আক্রমণ করে। ধীরে ধীরে পোকাগুলো গাছের সব পাতা খেয়ে ফেলে। এতে বাড়ির মালিক ও স্থানীয়রা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। পরে ভয়ে তারা গাছের ডাল কেটে ফেলেন।

বিষয়টি আশপাশে ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এলাকাবাসী এ ধরনের পোকা আগে কখনও দেখেনি।

বাড়ির মালিক জুব্বার আলীর ছেলে রবিউল ইসলাম বলেন, বেশ কয়েকদিন হল পোকাগুলো বাড়ির নারিকেল ও সুপারি গাছে আক্রমণ করেছে। দিন দিন পোকাগুলোর আক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় ডাল কেটে ফেলা হয়েছে। এতে বাড়ির অন্যান্য গাছ নিয়ে আতঙ্কে রয়েছি।

ভূঞাপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান বলেন, বিষয়টি জানার পরই ওই বাড়িতে গিয়ে পোকাগুলো দেখা হয়েছে। দেখে নিশ্চিত হয়েছি যে, এটি পঙ্গপাল নয়। এটি ক্যাটার ফিটার বা খোলস জাতীয় ক্ষতিকর পোকা। যা দ্রুত এক গাছ থেকে অন্য গাছে ছড়াতে পারে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন