পাকুন্দিয়ায় কামড়ে স্বামীর জিহ্বা কেটে দিল স্ত্রী
jugantor
পাকুন্দিয়ায় কামড়ে স্বামীর জিহ্বা কেটে দিল স্ত্রী

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো  

০১ জুন ২০২০, ০০:২৭:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় দাম্পত্য কলহের জেরে স্বামীর জিহ্বা কামড়ে কেটে দিয়েছে স্ত্রী নূপুর আক্তার। এ চাঞ্চল্যকর ঘটনা নিয়ে দেন-দরবারের একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

শনিবার রাতে উপজেলার সুখিয়া ইউনিয়নের চরপলাশ গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। আহত স্বামী মামুন মিয়া কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

তিনি একই গ্রামের মো.শামছ উদ্দিনের ছেলে।

জানা গেছে, পাকুন্দিয়া উপজেলার চণ্ডিপাশা গ্রামের জনৈক হারুন মিয়ার মেয়ে নূপুরের সঙ্গে একই উপজেলার চরপলাশ গ্রামের শামছ উদ্দিনের ছেলে মামুন ৭ মাস আগে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই এ নবদম্পতি কলহে জড়িয়ে পড়েন।

এ কলহের জের ধরে শনিবার রাত ১২টার দিকে ঘুমন্ত স্বামী মামুন মিয়ার গোপনাঙ্গ চেপে ধরেন স্ত্রী নূপুর আক্তার। এ সময় অসহ্য যন্ত্রণায় মামুন মিয়ার জিহ্বা বের হয়ে পরে। আর তখনই স্ত্রী নূপুর অণ্ডকোষ ছেড়ে জিহ্বায় সজোরে কামড় বসিয়ে অর্ধেকের বেশি কেটে ফেলে।

মামুনের চিৎকারে বাড়ির লোকজন ঘুম থেকে উঠে এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সুখিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবদুল হামিদ টিটু বলেন, স্ত্রীর কামড়ে স্বামীর অর্ধেক জিহ্বা কেটে দেয়ার ঘটনা এখন ‘টক অব দ্য ভিলেজ’।

পাকুন্দিয়া থানার ওসি মো. মফিজুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় এখনও থানায় কেউ অভিযোগ নিয়ে আসেননি। তবে এ ঘটনাটি লোকমুখে জানতে পারার কথা স্বীকার করেছেন তিনি।

পাকুন্দিয়ায় কামড়ে স্বামীর জিহ্বা কেটে দিল স্ত্রী

 কিশোরগঞ্জ ব্যুরো 
০১ জুন ২০২০, ১২:২৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় দাম্পত্য কলহের জেরে স্বামীর জিহ্বা কামড়ে কেটে দিয়েছে স্ত্রী নূপুর আক্তার। এ চাঞ্চল্যকর ঘটনা নিয়ে দেন-দরবারের একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।       

শনিবার রাতে উপজেলার সুখিয়া ইউনিয়নের চরপলাশ গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। আহত স্বামী মামুন মিয়া কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

তিনি একই গ্রামের মো.শামছ উদ্দিনের ছেলে। 

জানা গেছে, পাকুন্দিয়া উপজেলার চণ্ডিপাশা গ্রামের জনৈক হারুন মিয়ার মেয়ে নূপুরের সঙ্গে একই উপজেলার চরপলাশ গ্রামের শামছ উদ্দিনের ছেলে মামুন ৭ মাস আগে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই এ নবদম্পতি কলহে জড়িয়ে পড়েন।  

এ কলহের জের ধরে শনিবার রাত ১২টার দিকে ঘুমন্ত স্বামী মামুন মিয়ার গোপনাঙ্গ চেপে ধরেন স্ত্রী নূপুর আক্তার। এ সময় অসহ্য যন্ত্রণায় মামুন মিয়ার জিহ্বা বের হয়ে পরে। আর তখনই স্ত্রী নূপুর অণ্ডকোষ ছেড়ে জিহ্বায় সজোরে কামড় বসিয়ে অর্ধেকের বেশি কেটে ফেলে।

মামুনের চিৎকারে বাড়ির লোকজন ঘুম থেকে উঠে এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সুখিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আবদুল হামিদ টিটু বলেন, স্ত্রীর কামড়ে স্বামীর অর্ধেক জিহ্বা কেটে দেয়ার ঘটনা এখন ‘টক অব দ্য ভিলেজ’।

পাকুন্দিয়া থানার ওসি মো. মফিজুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় এখনও থানায় কেউ অভিযোগ নিয়ে আসেননি। তবে এ ঘটনাটি লোকমুখে জানতে পারার কথা স্বীকার করেছেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন