ঈশ্বরগঞ্জে পুরুষের নামে বরাদ্দকৃত প্রণোদনার অর্থ পেল নারী
jugantor
ঈশ্বরগঞ্জে পুরুষের নামে বরাদ্দকৃত প্রণোদনার অর্থ পেল নারী

  ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

০৮ জুন ২০২০, ০১:৫২:০৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে মহামারী করোনাভাইরাস দুর্যোগের কারণে কর্মহীন অসহায় ব্যক্তিদের নামে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ প্রণোদনার তালিকায় একজন পুরুষের নামে বরাদ্দ থাকলেও ওই সহায়তার অর্থ পেয়েছেন ভিন্ন এক নারী।

এমন ঘটনার অভিযোগ তুলে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকির হোসেনের কাছে প্রতিকার দাবি করেছেন প্রকৃত বরাদ্দপ্রাপ্ত ভোক্তভোগী দিনমজুর আবদুল হক।

উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের আলাদি আর আলগী গ্রামের মৃত শামসদ্দিনের পুত্র দিনমজুর আবদুল হকের অভিযোগে প্রকাশ, করোনাকালে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহায়তায় ২ হাজার ৫০০ টাকা প্রদানের তালিকায় তার নামটি অন্তর্ভুক্ত হয়। যার তালিকা নং-৪৭৮। আবদুল হকের মোবাইল নম্বর ০১৯৫৫৫৯৮৮২৫৮-এর স্থলে অন্য এক নারীর ০১৮৩৪১২৫৬৮৫১ নম্বরটি দেয়া হয়েছে।

এমন অভিযোগের সত্যতা যাছাইয়ে সরেজমিন অনুসন্ধানে দেখা যায়, একই ইউনিয়নের উত্তর মরিচারচর গ্রামের মৃত মগবুল হোসেনের স্ত্রী রোকেয়া বেগম প্রণোদনার টাকা পেয়েছেন। তবে কীভাবে একজনের নামের টাকা অন্য একজন পেয়েছেন, এর সঠিক কারণ জানা না গেলেও রোকেয়া বেগমের মোবাইল নম্বরে দিনমজুর আবদুল হকের নামে বরাদ্দকৃত প্রণোদনার ২ হাজার ৫শ’ টাকা চলে যাওয়ার সত্যতার প্রমাণ মিলেছে। শনিবার রোকেয়া বেগম এ টাকা তুলে নিয়েছেন বলে জানা যায়।

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলামের সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, অত্যন্ত স্বচ্ছভাবে তালিকা তৈরি করার জন্য সব ইউপি সদস্যকে কঠোর নির্দেশনা দেয়ার পরও যদি কেউ এ ধরনের অনিয়ম করে থাকেন তার জন্য সে নিজেই দায়ী।

ঈশ্বরগঞ্জে পুরুষের নামে বরাদ্দকৃত প্রণোদনার অর্থ পেল নারী

 ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
০৮ জুন ২০২০, ০১:৫২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে মহামারী করোনাভাইরাস দুর্যোগের কারণে কর্মহীন অসহায় ব্যক্তিদের নামে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ প্রণোদনার তালিকায় একজন পুরুষের নামে বরাদ্দ থাকলেও ওই সহায়তার অর্থ পেয়েছেন ভিন্ন এক নারী।

এমন ঘটনার অভিযোগ তুলে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকির হোসেনের কাছে প্রতিকার দাবি করেছেন প্রকৃত বরাদ্দপ্রাপ্ত ভোক্তভোগী দিনমজুর আবদুল হক।

উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের আলাদি আর আলগী গ্রামের মৃত শামসদ্দিনের পুত্র দিনমজুর আবদুল হকের অভিযোগে প্রকাশ, করোনাকালে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহায়তায় ২ হাজার ৫০০ টাকা প্রদানের তালিকায় তার নামটি অন্তর্ভুক্ত হয়। যার তালিকা নং-৪৭৮। আবদুল হকের মোবাইল নম্বর ০১৯৫৫৫৯৮৮২৫৮-এর স্থলে অন্য এক নারীর ০১৮৩৪১২৫৬৮৫১ নম্বরটি দেয়া হয়েছে।

এমন অভিযোগের সত্যতা যাছাইয়ে সরেজমিন অনুসন্ধানে দেখা যায়, একই ইউনিয়নের উত্তর মরিচারচর গ্রামের মৃত মগবুল হোসেনের স্ত্রী রোকেয়া বেগম প্রণোদনার টাকা পেয়েছেন। তবে কীভাবে একজনের নামের টাকা অন্য একজন পেয়েছেন, এর সঠিক কারণ জানা না গেলেও রোকেয়া বেগমের মোবাইল নম্বরে দিনমজুর আবদুল হকের নামে বরাদ্দকৃত প্রণোদনার ২ হাজার ৫শ’ টাকা চলে যাওয়ার সত্যতার প্রমাণ মিলেছে। শনিবার রোকেয়া বেগম এ টাকা তুলে নিয়েছেন বলে জানা যায়।

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলামের সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, অত্যন্ত স্বচ্ছভাবে তালিকা তৈরি করার জন্য সব ইউপি সদস্যকে কঠোর নির্দেশনা দেয়ার পরও যদি কেউ এ ধরনের অনিয়ম করে থাকেন তার জন্য সে নিজেই দায়ী।

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন