বাসাইলে সালিশে যুবককে পিটিয়ে হত্যা
jugantor
বাসাইলে সালিশে যুবককে পিটিয়ে হত্যা

  বাসাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি  

০৮ জুন ২০২০, ১২:৫৫:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

বাসাইলে সালিশে যুবককে পিটিয়ে হত্যা
ফাইল ছবি

টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলায় জমির টাকা নিয়ে বিরোধের জের ধরে গ্রাম্য সালিশে আবদুল মিয়া (৩৭) নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার হাবলা ইউনিয়নের সোনালিয়া মিয়াবাড়ী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আবদুল মিয়া ওই গ্রামের খোরশেদ মিয়ার ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার সোনালিয়া মিয়াবাড়ীর আবদুল মিয়া জমি বিক্রির জন্য এনামুল হক লিটন নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে চার লাখ ৯০ হাজার টাকা নেন।

আবদুল মিয়া জমি না দিয়ে টাকা ফেরত দিতে তালবাহানা করছিলেন। পরে এ ঘটনায় রোববার বিকালে গ্রাম্য সালিশের আয়োজন করা হয়।

সালিশে এনামুল হক লিটনের পাওনা চার লাখ ৯০ হাজার টাকা ফেরত ও তার কাছে ক্ষমা চাওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু প্রতিপক্ষ বিচার না মেনে আবদুল মিয়া ও তার ভাইসহ তিনজনকে এলোপাতাড়িভাবে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে।

পরে তাদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আবদুল মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য পলাশ বলেন, সালিশে আবদুল মিয়াকে এনামুল হক লিটনের পাওনা চার লাখ ৯০ হাজার টাকা ফেরত ও ক্ষমা চাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু এনামুল হক লিটনসহ তার পক্ষের লোকজন সেটি না মেনে তাকে সালিশ থেকে কিছু দূরে নিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করে। এ সময় আমরা তাদের ফেরানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছি।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের পুলিশ বক্সের এএসআই মো. নবিন বলেন, সালিশি বৈঠকে একজনকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। নিহতের মরদেহ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

বাসাইল থানার ওসি এসএম তুহীন আলী বলেন, ঘটনাটি শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

বাসাইলে সালিশে যুবককে পিটিয়ে হত্যা

 বাসাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি 
০৮ জুন ২০২০, ১২:৫৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বাসাইলে সালিশে যুবককে পিটিয়ে হত্যা
ফাইল ছবি

টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলায় জমির টাকা নিয়ে বিরোধের জের ধরে গ্রাম্য সালিশে আবদুল মিয়া (৩৭) নামে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার হাবলা ইউনিয়নের সোনালিয়া মিয়াবাড়ী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আবদুল মিয়া ওই গ্রামের খোরশেদ মিয়ার ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার সোনালিয়া মিয়াবাড়ীর আবদুল মিয়া জমি বিক্রির জন্য এনামুল হক লিটন নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে চার লাখ ৯০ হাজার টাকা নেন।

আবদুল মিয়া জমি না দিয়ে টাকা ফেরত দিতে তালবাহানা করছিলেন। পরে এ ঘটনায় রোববার বিকালে গ্রাম্য সালিশের আয়োজন করা হয়।

সালিশে এনামুল হক লিটনের পাওনা চার লাখ ৯০ হাজার টাকা ফেরত ও তার কাছে ক্ষমা চাওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু প্রতিপক্ষ বিচার না মেনে আবদুল মিয়া ও তার ভাইসহ তিনজনকে এলোপাতাড়িভাবে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে।

পরে তাদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আবদুল মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য পলাশ বলেন, সালিশে আবদুল মিয়াকে এনামুল হক লিটনের পাওনা চার লাখ ৯০ হাজার টাকা ফেরত ও ক্ষমা চাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু এনামুল হক লিটনসহ তার পক্ষের লোকজন সেটি না মেনে তাকে সালিশ থেকে কিছু দূরে নিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করে। এ সময় আমরা তাদের ফেরানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছি।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের পুলিশ বক্সের এএসআই মো. নবিন বলেন, সালিশি বৈঠকে একজনকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। নিহতের মরদেহ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

বাসাইল থানার ওসি এসএম তুহীন আলী বলেন, ঘটনাটি শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।