চুয়াডাঙ্গায় ব্যবসায়ীর গুদামে ১২৬৬ বস্তা সরকারি চাল
jugantor
চুয়াডাঙ্গায় ব্যবসায়ীর গুদামে ১২৬৬ বস্তা সরকারি চাল

  চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি  

০৮ জুন ২০২০, ১৯:৫০:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার সাতগাড়ি গ্রামে এক ব্যবসায়ীর দুই গুদাম থেকে এক হাজার ২৬৬ বস্তা সরকারি চাল জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে গুদাম দুটি সিলগালা করে দেয়া হয়।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সোমবার সকালে ঘটনাস্থলে অভিযান চালায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসন ও জেলা খাদ্য অধিদফতরের যৌথ টিম।

ঘটনা তদন্তে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মুনিরা পারভিনকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

জেলা খাদ্য কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম বলেন, রোববার রাতে চুয়াডাঙ্গা শহরের চাল-গম ব্যবসায়ী নজরুল ইসলামের সাতগাড়ি গ্রামের গুদামে খাদ্য অধিদফতরের সরকারি চাল মজুদ করা হয়। প্রতিটি ৩০ কেজি ওজনের চালের বস্তার গায়ে লেখা রয়েছে ‘শেখ হাসিনার বাংলাদেশ ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ’। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সোমবার সকালে সেখানে অভিযান চালানো হয়। এসময় একটি গুদামে ৬০০ বস্তা এবং অন্য গুদামে ৬৬৬ বস্তা সরকারি চাল পাওয়া যায়। গুদাম মালিকের কথায় অসঙ্গতি থাকায় গুদাম দুটি তাৎক্ষণিকভাবে সিলগালা করে দেয়া হয়।

গুদাম মালিক নজরুল ইসলাম বলেন, আলমডাঙ্গার গৌতম ও অশোক নামের দুই ব্যক্তি এ চালের মালিক। তারা মেহেরপুরের গাংনী খাদ্য গুদাম থেকে চালগুলো নিয়ে এখানে রেখেছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ সাদিকুর রহমান বলেন, গুদাম মালিক নজরুলের কথামতো আলমডাঙ্গার ব্যবসায়ী অশোকের সঙ্গে কথা বলেছি। উভয়ের কথায় অসঙ্গতি থাকায় গুদাম দুটি সিলগালা করে দেয়া হয়। তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

চুয়াডাঙ্গায় ব্যবসায়ীর গুদামে ১২৬৬ বস্তা সরকারি চাল

 চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি 
০৮ জুন ২০২০, ০৭:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার সাতগাড়ি গ্রামে এক ব্যবসায়ীর দুই গুদাম থেকে এক হাজার ২৬৬ বস্তা সরকারি চাল জব্দ করা হয়েছে। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে গুদাম দুটি সিলগালা করে দেয়া হয়।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সোমবার সকালে ঘটনাস্থলে অভিযান চালায় চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসন ও জেলা খাদ্য অধিদফতরের যৌথ টিম।

ঘটনা তদন্তে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মুনিরা পারভিনকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

জেলা খাদ্য কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম বলেন, রোববার রাতে চুয়াডাঙ্গা শহরের চাল-গম ব্যবসায়ী নজরুল ইসলামের সাতগাড়ি গ্রামের গুদামে খাদ্য অধিদফতরের সরকারি চাল মজুদ করা হয়। প্রতিটি ৩০ কেজি ওজনের চালের বস্তার গায়ে লেখা রয়েছে ‘শেখ হাসিনার বাংলাদেশ ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ’। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সোমবার সকালে সেখানে অভিযান চালানো হয়। এসময় একটি গুদামে ৬০০ বস্তা এবং অন্য গুদামে ৬৬৬ বস্তা সরকারি চাল পাওয়া যায়। গুদাম মালিকের কথায় অসঙ্গতি থাকায় গুদাম দুটি তাৎক্ষণিকভাবে সিলগালা করে দেয়া হয়।

গুদাম মালিক নজরুল ইসলাম বলেন, আলমডাঙ্গার গৌতম ও অশোক নামের দুই ব্যক্তি এ চালের মালিক। তারা মেহেরপুরের গাংনী খাদ্য গুদাম থেকে চালগুলো নিয়ে এখানে রেখেছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ সাদিকুর রহমান বলেন, গুদাম মালিক নজরুলের কথামতো আলমডাঙ্গার ব্যবসায়ী অশোকের সঙ্গে কথা বলেছি। উভয়ের কথায় অসঙ্গতি থাকায় গুদাম দুটি সিলগালা করে দেয়া হয়। তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।