আইনমন্ত্রীকে ‘ভোটার বিহীন এমপি’ বলায় তরুণের বিরুদ্ধে মামলা
jugantor
আইনমন্ত্রীকে ‘ভোটার বিহীন এমপি’ বলায় তরুণের বিরুদ্ধে মামলা

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি  

০৯ জুন ২০২০, ০০:০০:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

আইনমন্ত্রী আনিসুল হককে ‘ভোটার বিহীন এমপি’, ‘খলনায়ক’ বলে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় মাঈন উদ্দিন সরকার (২২) নামে এক তরুণের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

কসবা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ইব্রাহিম মিয়া বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। রোববার মামলাটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে নথিভুক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কসবা থানার ওসি মো. লোকমান হোসেন।

অভিযুক্ত মাঈন উদ্দিন সরকার কসবা উপজেলার কায়েমপুর ইউনিয়নের কায়েমপুর গ্রামের ইয়াকুব আলী সরকারের ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ‘হক কথা তিতা লাগে’ নামীয় একটি ফেসবুক আইডি থেকে গত ৪ জুন সন্ধ্যা ৭টা ২৭ মিনিটে মন্ত্রী আনিসুল হককে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ স্ট্যাটাস পোস্ট দেয়া হয়। ওই পোস্টে মন্ত্রীকে ‘ভোটার বিহীন এমপি’ এবং ‘অঘোষিত নাস্তিক’ উল্লেখ করে গুজব ছড়ানো হয়। অভিযুক্ত মাঈন উদ্দিন সরকার ‘হক কথা তিতা লাগে’ ফেসবুক আইডি খুলে ওই পোস্ট করেছেন।

ভাইরাল হওয়া ওই পোস্টের মাধ্যমে এলাকা, দেশ ও বহির্বিশ্বে মন্ত্রী আনিসুল হকের মানহানি করা হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। এর ফলে স্থানীয়দের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ নিয়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার শঙ্কার কথাও উল্লেখ করা হয় এজাহারে।

মামলার বাদী ও কসবা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি মো. ইব্রাহিম মিয়া বলেন, জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে আনিসুল হক এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি নিরলসভাবে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। ফেসবুকে মিথ্যা ও বানোয়াট পোস্ট দিয়ে মন্ত্রী মহোদয়ের সম্মানহানি করে মানুষের কাছে হেয় করা হয়েছে। এতে আমি সংক্ষুব্ধ হয়েছি, এ ঘটনায় সুষ্ঠু বিচার চাই।

কসবা থানার ওসি লোকমান হোসেন জানান, ইতিমধ্যে মামলার তদন্ত কাজ শুরু হয়েছে। অভিযুক্ত মাঈন উদ্দিন সরকারকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আইনমন্ত্রীকে ‘ভোটার বিহীন এমপি’ বলায় তরুণের বিরুদ্ধে মামলা

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি 
০৯ জুন ২০২০, ১২:০০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আইনমন্ত্রী আনিসুল হককে ‘ভোটার বিহীন এমপি’, ‘খলনায়ক’ বলে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলায় মাঈন উদ্দিন সরকার (২২) নামে এক তরুণের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

কসবা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ইব্রাহিম মিয়া বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। রোববার মামলাটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে নথিভুক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কসবা থানার ওসি মো. লোকমান হোসেন।

অভিযুক্ত মাঈন উদ্দিন সরকার কসবা উপজেলার কায়েমপুর ইউনিয়নের কায়েমপুর গ্রামের ইয়াকুব আলী সরকারের ছেলে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ‘হক কথা তিতা লাগে’ নামীয় একটি ফেসবুক আইডি থেকে গত ৪ জুন সন্ধ্যা ৭টা ২৭ মিনিটে মন্ত্রী আনিসুল হককে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ স্ট্যাটাস পোস্ট দেয়া হয়। ওই পোস্টে মন্ত্রীকে ‘ভোটার বিহীন এমপি’ এবং ‘অঘোষিত নাস্তিক’ উল্লেখ করে গুজব ছড়ানো হয়। অভিযুক্ত মাঈন উদ্দিন সরকার ‘হক কথা তিতা লাগে’ ফেসবুক আইডি খুলে ওই পোস্ট করেছেন।

ভাইরাল হওয়া ওই পোস্টের মাধ্যমে এলাকা, দেশ ও বহির্বিশ্বে মন্ত্রী আনিসুল হকের মানহানি করা হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। এর ফলে স্থানীয়দের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ নিয়ে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার শঙ্কার কথাও উল্লেখ করা হয় এজাহারে।

মামলার বাদী ও কসবা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি মো. ইব্রাহিম মিয়া বলেন, জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে আনিসুল হক এমপি নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি নিরলসভাবে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। ফেসবুকে মিথ্যা ও বানোয়াট পোস্ট দিয়ে মন্ত্রী মহোদয়ের সম্মানহানি করে মানুষের কাছে হেয় করা হয়েছে। এতে আমি সংক্ষুব্ধ হয়েছি, এ ঘটনায় সুষ্ঠু বিচার চাই।

কসবা থানার ওসি লোকমান হোসেন জানান, ইতিমধ্যে মামলার তদন্ত কাজ শুরু হয়েছে। অভিযুক্ত মাঈন উদ্দিন সরকারকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন