কবুতর চুরির অপবাদে লোহার পাইপে বেঁধে কিশোরকে পিটিয়ে জখম
jugantor
কবুতর চুরির অপবাদে লোহার পাইপে বেঁধে কিশোরকে পিটিয়ে জখম

  স্টাফ রিপোর্টার, বরগুনা  

০৯ জুন ২০২০, ০০:২১:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

কবুতর চুরির অপবাদে সজিব নামের এক কিশোরকে লোহার পাইপের সঙ্গে হাত বেঁধে পিটিয়ে জখম করেছে কিরণ ও তার বাবা নিজাম সিকদার। এ ঘটনায় কিরণকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার বরগুনা সদর উপজেলার এম বালিয়াতলী ইউনিয়নের পরীরখাল গ্রামে এ ঘটনা ঘটলেও সোমবার ভিডিও ভাইরাল হলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

জানা যায়, ওই গ্রামের নিজাম সিকদারের ছেলে কিরণ কবুতর পালন করে। বৃহস্পতিবার তার কবুতর চুরি হয়। শুক্রবার সকালে কিরণ ও তার বাবা নিজাম সিকদার একই গ্রামের জলিলের ছেলে সজিবকে ধরে পরীরখাল বাজারে নিয়ে আসে। শত মানুষের সামনে কবুতর চুরির অপবাদে সজিবকে লোহার পাইপের সঙ্গে পিছনে হাত বেঁধে কিরণ ও তার বাবা নিজাম সিকদার বেধড়ক পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। বর্বরতার দৃশ্য শত মানুষ দেখে ভিডিও ধারণ করলেও কেহ প্রতিবাদ করতে সাহস পায়নি।

সজিবের মা রেণু বেগম যুগান্তরকে বলেন, আমি একজন মা হয়ে ছেলের নির্যাতন চোখের সামনে দেখতে হয়েছে। স্থানীয় ভাবে কারো কাছে বিচার না পেয়ে ছেলেকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে বরগুনা থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

বরগুনা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি হাচান ঝন্টু যুগান্তরকে বলেন, এই বর্বরতার উপযুক্ত বিচার হওয়া উচিৎ।

বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহজাহান হোসেন বলেন, আমরা কিরণের মায়ের অভিযোগ রেকর্ড করেছি। এ ঘটনায় জড়িত কিরণকে সোমবার গ্রেফতার করা হয়েছে। অপরাধী যেই হোক কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

কবুতর চুরির অপবাদে লোহার পাইপে বেঁধে কিশোরকে পিটিয়ে জখম

 স্টাফ রিপোর্টার, বরগুনা 
০৯ জুন ২০২০, ১২:২১ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কবুতর চুরির অপবাদে সজিব নামের এক কিশোরকে লোহার পাইপের সঙ্গে হাত বেঁধে পিটিয়ে জখম করেছে কিরণ ও তার বাবা নিজাম সিকদার। এ ঘটনায় কিরণকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার বরগুনা সদর উপজেলার এম বালিয়াতলী ইউনিয়নের পরীরখাল গ্রামে এ ঘটনা ঘটলেও সোমবার ভিডিও ভাইরাল হলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

জানা যায়, ওই গ্রামের নিজাম সিকদারের ছেলে কিরণ কবুতর পালন করে। বৃহস্পতিবার তার কবুতর চুরি হয়। শুক্রবার সকালে কিরণ ও তার বাবা নিজাম সিকদার একই গ্রামের জলিলের ছেলে সজিবকে ধরে পরীরখাল বাজারে নিয়ে আসে। শত মানুষের সামনে কবুতর চুরির অপবাদে সজিবকে লোহার পাইপের সঙ্গে পিছনে হাত বেঁধে কিরণ ও তার বাবা নিজাম সিকদার বেধড়ক পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। বর্বরতার দৃশ্য শত মানুষ দেখে ভিডিও ধারণ করলেও কেহ প্রতিবাদ করতে সাহস পায়নি।

সজিবের মা রেণু বেগম যুগান্তরকে বলেন, আমি একজন মা হয়ে ছেলের নির্যাতন চোখের সামনে দেখতে হয়েছে। স্থানীয় ভাবে কারো কাছে বিচার না পেয়ে ছেলেকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে বরগুনা থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

বরগুনা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি হাচান ঝন্টু যুগান্তরকে বলেন, এই বর্বরতার উপযুক্ত বিচার হওয়া উচিৎ।

বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহজাহান হোসেন বলেন, আমরা কিরণের মায়ের অভিযোগ রেকর্ড করেছি। এ ঘটনায় জড়িত কিরণকে সোমবার গ্রেফতার করা হয়েছে। অপরাধী যেই হোক কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন