পোস্ট অফিসের সিঁড়িতে দুই কিশোরী বান্ধবীর ঝুলন্ত লাশ
jugantor
পোস্ট অফিসের সিঁড়িতে দুই কিশোরী বান্ধবীর ঝুলন্ত লাশ

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কসবা প্রতিনিধি  

১৭ জুন ২০২০, ২১:১৬:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলা থেকে সোনিয়া ও সুমাইয়া নামে দুই কিশোরী বান্ধবীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার কুটি ইউনিয়নের কুটি পোস্ট অফিসের পেছন থেকে লাশ দুটি উদ্ধার করা হয়।

নিহতদের বয়স আনুমানিক ১৩-১৪ বছর বলে জানিয়েছে পুলিশ। নিহত সুমাইয়া কুটি গ্রামের উত্তরপাড়ার বাবুল মিয়ার মেয়ে ও সোনিয়া একই এলাকার বিল্লাল মিয়ার মেয়ে।

কসবা থানার ওসি মো. লোকমান হোসেন জানান, কুটি পোস্ট অফিসের পেছনে রাখা একটি লোহার সিঁড়ির সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ওই দুই কিশোরীর লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

তিনি বলেন, নিহতদের পরিবারের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। এই দুই কিশোরী সারা দিন এক সঙ্গেই চলাফেরা করে। তারা পরস্পরের বান্ধবী বলে পরিবারের লোকজন জানিয়েছে।

প্রাথমিকভাবে ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে মনে হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। সুরতহাল রিপোর্টেও তাদের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

কী কারণে তারা আত্মহণনের পথ বেছে নিয়েছে তা কেউ বলতে পারছেন না। লাশ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পোস্ট অফিসের সিঁড়িতে দুই কিশোরী বান্ধবীর ঝুলন্ত লাশ

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কসবা প্রতিনিধি 
১৭ জুন ২০২০, ০৯:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলা থেকে সোনিয়া ও সুমাইয়া নামে দুই কিশোরী বান্ধবীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার কুটি ইউনিয়নের কুটি পোস্ট অফিসের পেছন থেকে লাশ দুটি উদ্ধার করা হয়। 

নিহতদের বয়স আনুমানিক ১৩-১৪ বছর বলে জানিয়েছে পুলিশ। নিহত সুমাইয়া কুটি গ্রামের উত্তরপাড়ার বাবুল মিয়ার মেয়ে ও সোনিয়া একই এলাকার বিল্লাল মিয়ার মেয়ে।

কসবা থানার ওসি মো. লোকমান হোসেন জানান, কুটি পোস্ট অফিসের পেছনে রাখা একটি লোহার সিঁড়ির সঙ্গে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ওই দুই কিশোরীর লাশ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

তিনি বলেন, নিহতদের পরিবারের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। এই দুই কিশোরী সারা দিন এক সঙ্গেই চলাফেরা করে। তারা পরস্পরের বান্ধবী বলে পরিবারের লোকজন জানিয়েছে। 

প্রাথমিকভাবে ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে মনে হচ্ছে। তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। সুরতহাল রিপোর্টেও তাদের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। 

কী কারণে তারা আত্মহণনের পথ বেছে নিয়েছে তা কেউ বলতে পারছেন না। লাশ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন