চাচাত ভাইয়ের দায়ের কোপে আইনজীবী খুন
jugantor
চাচাত ভাইয়ের দায়ের কোপে আইনজীবী খুন

  টাঙ্গাইল ও ভূঞাপুর প্রতিনিধি  

১৮ জুন ২০২০, ২৩:০১:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে চাচাত ভাইয়ের দায়ের কোপে মেহেদী মোস্তফা রাজিব (৩২) নামে শিক্ষানবিশ এক আইনজীবী খুন হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আহত হওয়ার পর টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে তাকে আনা হয়। বিকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়ার সময় তিনি মারা যান।

নিহত মেহেদী ভূঞাপুর উপজেলার ফলদা ইউনিয়নের গাড়াবাড়ি গ্রামের গোলাম মোস্তফা দুলালের ছেলে। গোলাম মোস্তফা সিরাজগঞ্জে গ্রামীণ ব্যাংকে কর্মরত। নিহত মেহেদী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর শেষ করে ঢাকায় একজন জ্যেষ্ঠ আইনজীবীর সঙ্গে শিক্ষানবিশ হিসেবে কাজ করতেন।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে বাড়ির গাছের আম পাড়া নিয়ে মেহেদী মোস্তফার সঙ্গে তার চাচা মফিজুল হকের ছেলে জিহাদের (২৮) কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে জিহাদ দা দিয়ে মেহেদীকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়। স্বজনরা প্রথমে তাকে ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) শফিকুল ইসলাম জানান, মেহেদীকে টাঙ্গাইলে আনার পর রক্ত দেয়া হয়। তারপর তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। ঢাকায় নেয়ার সময় বিকাল ৫টার দিকে টাঙ্গাইল হাসপাতাল চত্বরেই তার মৃত্যু হয়। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণের তার মৃত্যু হয়েছে বলে আরএমও জানান।

ভূঞাপুর থানার ওসি মো. রাশিদুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত মামলা হয়নি। হামলাকারী জিহাদ পলাতক রয়েছে। লাশ টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

চাচাত ভাইয়ের দায়ের কোপে আইনজীবী খুন

 টাঙ্গাইল ও ভূঞাপুর প্রতিনিধি 
১৮ জুন ২০২০, ১১:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে চাচাত ভাইয়ের দায়ের কোপে মেহেদী মোস্তফা রাজিব (৩২) নামে শিক্ষানবিশ এক আইনজীবী খুন হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আহত হওয়ার পর টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে তাকে আনা হয়। বিকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়ার সময় তিনি মারা যান।

নিহত মেহেদী ভূঞাপুর উপজেলার ফলদা ইউনিয়নের গাড়াবাড়ি গ্রামের গোলাম মোস্তফা দুলালের ছেলে। গোলাম মোস্তফা সিরাজগঞ্জে গ্রামীণ ব্যাংকে কর্মরত। নিহত মেহেদী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর শেষ করে ঢাকায় একজন জ্যেষ্ঠ আইনজীবীর সঙ্গে শিক্ষানবিশ হিসেবে কাজ করতেন।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে বাড়ির গাছের আম পাড়া নিয়ে মেহেদী মোস্তফার সঙ্গে তার চাচা মফিজুল হকের ছেলে জিহাদের (২৮) কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে জিহাদ দা দিয়ে মেহেদীকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়। স্বজনরা প্রথমে তাকে ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) শফিকুল ইসলাম জানান, মেহেদীকে টাঙ্গাইলে আনার পর রক্ত দেয়া হয়। তারপর তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়ার পরামর্শ দেয়া হয়। ঢাকায় নেয়ার সময় বিকাল ৫টার দিকে টাঙ্গাইল হাসপাতাল চত্বরেই তার মৃত্যু হয়। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণের তার মৃত্যু হয়েছে বলে আরএমও জানান।

ভূঞাপুর থানার ওসি মো. রাশিদুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত মামলা হয়নি। হামলাকারী জিহাদ পলাতক রয়েছে। লাশ টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন