বিদ্যুৎস্পৃষ্টে বিজিবি সদস্যের মৃত্যু
jugantor
বিদ্যুৎস্পৃষ্টে বিজিবি সদস্যের মৃত্যু

  কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি  

১৯ জুন ২০২০, ২১:২৭:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নরসিংদীর মনোহরদীউপজেলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে সোহাগ রানা জলিল (৩২) নামে এক বিজিবি সদস্যের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার বিকালেমনোহরদীর খিদিরপুর ইউনিয়নের পীরপুর উজানপাড়া গ্রামে নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

জলিল ওই গ্রামের আব্দুল জব্বারের ছেলে। তিনি বিজিবিতে কুষ্টিয়া জেলায় কর্মরত ছিলেন।

মৃত জলিলের আত্মীয় আবুল কালাম ফারুক যুগান্তরকে জানান, এক সপ্তাহ আগে তিনি কর্মস্থল কুষ্টিয়া থেকে ছুটি নিয়ে বাড়িতে এসেছিলেন। শুক্রবার বিকালে নিজ বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ মেরামতের কাজ করার সময় অসাবধানতাবশত তিনি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন।

দ্রুত তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সোহাগ রানা জলিলের ৮ বছরের ১ ছেলে ও ৪ বছর বয়সী ১ মেয়ে রয়েছে। তার স্ত্রী উপজেলার উত্তর পীরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

মনোহরদী থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান যুগান্তরকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পরিবারের লোকজনের আবেদনের প্রেক্ষিতে কর্তৃপক্ষের অনুমতিসাপেক্ষে ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফনের অনুমতি দেয়া হয়েছে।

বিদ্যুৎস্পৃষ্টে বিজিবি সদস্যের মৃত্যু

 কটিয়াদী (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি 
১৯ জুন ২০২০, ০৯:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে সোহাগ রানা জলিল (৩২) নামে এক বিজিবি সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। 

শুক্রবার বিকালে মনোহরদীর খিদিরপুর ইউনিয়নের পীরপুর উজানপাড়া গ্রামে নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। 

জলিল ওই গ্রামের আব্দুল জব্বারের ছেলে। তিনি বিজিবিতে  কুষ্টিয়া জেলায় কর্মরত ছিলেন। 

মৃত জলিলের আত্মীয় আবুল কালাম ফারুক যুগান্তরকে জানান, এক সপ্তাহ আগে তিনি কর্মস্থল কুষ্টিয়া থেকে ছুটি নিয়ে বাড়িতে এসেছিলেন। শুক্রবার বিকালে নিজ বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ মেরামতের কাজ করার সময় অসাবধানতাবশত তিনি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। 

দ্রুত তাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সোহাগ রানা জলিলের ৮ বছরের ১ ছেলে ও ৪ বছর বয়সী ১ মেয়ে রয়েছে। তার স্ত্রী উপজেলার উত্তর পীরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। 

মনোহরদী থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান যুগান্তরকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পরিবারের লোকজনের আবেদনের প্রেক্ষিতে কর্তৃপক্ষের অনুমতিসাপেক্ষে ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফনের অনুমতি দেয়া হয়েছে।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন