সিদ্ধিরগঞ্জে মুক্তিপণের দাবিতে অপহৃত যুবক ৮ দিন পর উদ্ধার
jugantor
সিদ্ধিরগঞ্জে মুক্তিপণের দাবিতে অপহৃত যুবক ৮ দিন পর উদ্ধার
অপরহণকারী দম্পতি গ্রেফতার

  হোসেন চিশতী সিপলু, সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) থেকে   

২১ জুন ২০২০, ১৫:১৪:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের আটি হাউজিং এলাকায় অভিযান চালিয়ে অপহৃত মো. রাসেল (২৮) নামে এক যুবককে উদ্ধার করেছেন র‌্যাব ১১-এর সদস্যরা।


অপহরণকারীরা মুক্তিপণের দাবিতে ওই যুবককে আট দিন আটকে রেখেছিল। এ সময় সংঘবদ্ধ অপহরণকারী চক্রের দুই সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো– মো. আল আমিন (২৪) ও তার স্ত্রী ইরা ইসলাম (২২)।


শুক্রবার বিকালে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে র‌্যাব। দুই লাখ টাকা মুক্তিপণের দাবিতে রাসেলকে অপহরণ করা হয়েছিল। র‌্যাব ১১-এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্নেল ইমরান উল্লাহ সরকার যুগান্তরকে এ তথ্য জানান।


লে. কর্নেল ইমরান উল্লাহ সরকার জানান, গ্রেফতারকৃত আসামিরা গত ১১ জুন সিদ্ধিরগঞ্জের চিটাগাং রোড (শিমরাইল মোড়) থেকে রাসেলকে অপহরণ নিয়ে যায়।


সেখান থেকে তাকে চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগ করে অচেতন করে তাদের ভাড়া করা একটি ফ্ল্যাট বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে একটি গোপন কক্ষে হাত-পা ও চোখ বেঁধে রাসেলকে বিভিন্ন শারীরিক নির্যাতন করতে থাকে।


এ সময় তারা মুক্তিপণের দুই লাখ টাকার জন্য রাসেলের পরিবারের কাছে ফোন করে। এ বিষয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য রাসেলের পরিবারকে হুমকি দেয়।


পুলিশকে বললে রাসেলকে হত্যা করা হবে বলেও হুমকি দেয়া হয়। অপহরণকারী চক্রের সদস্যরা অপহৃত রাসেলের মুখের ভেতর কাপড় ঢুকিয়ে দেয় এবং গামছা দিয়ে চোখ, মুখ, হাত-পা বেঁধে লাঠি ও কাঠের তৈরি ব্রাশ দিয়ে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত করে।


এমনকি হত্যার উদ্দেশ্যে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় সুই দিয়ে খোঁচাতে থাকে। পরে রাসেলের পরিবার গত ১৫ জুন রাতে বিকাশের মাধ্যমে ১০ হাজার টাকা তাদের কাছে পাঠায় এবং বাকি টাকা নগদে পরিশোধ করবে বলে জানানো হয়।


পরে অপহৃত রাসেলের মা গত ১৮ জুন র‌্যাব-১১ বরাবর একটি অভিযোগ দেন। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে অপহৃতকে উদ্ধার ও অপহরণকারী চক্রের ওই দুই সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়।


র‌্যাব ১১-এর অধিনায়ক আরও জানান, আসামিরা পরস্পর স্বামী-স্ত্রী। তাদের বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপ থানাধীন সাতঘরিয়া এলাকায়। তারা একটি পেশাদার অপহরণকারী চক্রের সদস্য এবং তারা দীর্ঘদিন ধরে সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় এই ধরনের অপহরণ করে আসছিল। এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলা করা হয়েছে।

সিদ্ধিরগঞ্জে মুক্তিপণের দাবিতে অপহৃত যুবক ৮ দিন পর উদ্ধার

অপরহণকারী দম্পতি গ্রেফতার
 হোসেন চিশতী সিপলু, সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) থেকে  
২১ জুন ২০২০, ০৩:১৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের আটি হাউজিং এলাকায় অভিযান চালিয়ে অপহৃত মো. রাসেল (২৮) নামে এক যুবককে উদ্ধার করেছেন র‌্যাব ১১-এর সদস্যরা। 


অপহরণকারীরা মুক্তিপণের দাবিতে ওই যুবককে আট দিন আটকে রেখেছিল। এ সময় সংঘবদ্ধ অপহরণকারী চক্রের দুই সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো– মো. আল আমিন (২৪) ও তার স্ত্রী ইরা ইসলাম (২২)। 


শুক্রবার বিকালে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে র‌্যাব। দুই লাখ টাকা মুক্তিপণের দাবিতে রাসেলকে অপহরণ করা হয়েছিল। র‌্যাব ১১-এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্নেল ইমরান উল্লাহ সরকার যুগান্তরকে এ তথ্য জানান।


লে. কর্নেল ইমরান উল্লাহ সরকার জানান, গ্রেফতারকৃত আসামিরা গত ১১ জুন সিদ্ধিরগঞ্জের চিটাগাং রোড (শিমরাইল মোড়) থেকে রাসেলকে অপহরণ নিয়ে যায়। 


সেখান থেকে তাকে চেতনানাশক ওষুধ প্রয়োগ করে অচেতন করে তাদের ভাড়া করা একটি ফ্ল্যাট বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে একটি গোপন কক্ষে হাত-পা ও চোখ বেঁধে রাসেলকে বিভিন্ন শারীরিক নির্যাতন করতে থাকে। 


এ সময় তারা মুক্তিপণের দুই লাখ টাকার জন্য রাসেলের পরিবারের কাছে ফোন করে। এ বিষয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য রাসেলের পরিবারকে হুমকি দেয়।


পুলিশকে বললে রাসেলকে হত্যা করা হবে বলেও হুমকি দেয়া হয়। অপহরণকারী চক্রের সদস্যরা অপহৃত রাসেলের মুখের ভেতর কাপড় ঢুকিয়ে দেয় এবং গামছা দিয়ে চোখ, মুখ, হাত-পা বেঁধে লাঠি ও কাঠের তৈরি ব্রাশ দিয়ে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত করে। 


এমনকি হত্যার উদ্দেশ্যে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় সুই দিয়ে খোঁচাতে থাকে। পরে রাসেলের পরিবার গত ১৫ জুন রাতে বিকাশের মাধ্যমে ১০ হাজার টাকা তাদের কাছে পাঠায় এবং বাকি টাকা নগদে পরিশোধ করবে বলে জানানো হয়। 


পরে অপহৃত রাসেলের মা গত ১৮ জুন র‌্যাব-১১ বরাবর একটি অভিযোগ দেন। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে অপহৃতকে উদ্ধার ও অপহরণকারী চক্রের ওই দুই সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। 


র‌্যাব ১১-এর অধিনায়ক আরও জানান, আসামিরা পরস্পর স্বামী-স্ত্রী। তাদের বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপ থানাধীন সাতঘরিয়া এলাকায়। তারা একটি পেশাদার অপহরণকারী চক্রের সদস্য এবং তারা দীর্ঘদিন ধরে সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় এই ধরনের অপহরণ করে আসছিল। এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলা করা হয়েছে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন