মুক্তিযোদ্ধার জমিতে ঢোকার পথে বেড়া দিলেন বিএনপি নেতা
jugantor
মুক্তিযোদ্ধার জমিতে ঢোকার পথে বেড়া দিলেন বিএনপি নেতা

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২২ জুন ২০২০, ১৮:৩২:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

মুক্তিযোদ্ধার জমিতে ঢোকার পথে বেড়া দিলেন বিএনপি নেতা

কুমিল্লার দাউদকান্দিতে মুক্তিযোদ্ধার বাড়ির জমিতে ঢোকার প্রবেশপথ বন্ধ করে বেড়া দিয়েছেন মুজিবুর রহমান ভূঁইয়া নামে এক স্থানীয় বিএনপি নেতা।

এর আগেও ওই মুক্তিযোদ্ধা ও তার চাচাতো ভাইয়ের জমিতে ধর্মীয় স্থাপনা এবং দেয়াল নির্মাণ করেছেন ওই বিএনপি নেতা।

এ নিয়ে স্থানীয় থানায় একটি মামলা চলমান রয়েছে। এরপরও এবার জমিতে বেড়া দেয়ার ঘটনা ঘটল।

রোববার সকালে বেড়া দেয়ার বিষয়টি দেখতে পান ভুক্তভোগী ওই মুক্তিযোদ্ধার পরিবার। পরে এ বিষয়ে স্থানীয়দের জানালে তারা মুজিবুরকে বেড়া না দিতে অনুরোধ করেন। কিন্তু কারও কথা কানে নেননি তিনি।

পরে এ বিষয়ে মুক্তযোদ্ধা পরিবারের পক্ষ থেকে স্থানীয় মেম্বার, চেয়ারম্যান ও দাউদকান্দি থানার ওসিকে জানানো হলে পুলিশের হস্তক্ষেপে বেড়াটি সরানো হয়েছেবলে জানা গেছে।

ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা রনজিৎ রায় বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে আমার ও চাচাতো ভাইয়ের বসতবাড়ির অব্যবহৃত জমিতে বৃক্ষরোপনের প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। পরে জানতে পারি মুজিব আমার বাড়ির প্রবেশবন্ধ করে বেড়া নির্মাণ করছেন। স্থানীয়দের জানালে তারা তাকে নিষেধ করে। কিন্তু তিনি কারও কথা শোনেননি। আমাদের জমি দখলের জন্যই দীর্ঘদিন ধরে এই বেড়া দিয়েছে।

এ বিষয়ে বিএনপি নেতা মুজিবুর রহমান ভুঁইয়া বলেন, আদালতে মামলা চলমান থাকা অবস্থায় রনজিৎ রায় ও তার চাচাতো ভাই নিত্যানন্দ রায় আমার জায়গা জোড়পূর্বক দখল করতে চায়। ১৯৯৫ সালে জমিটি তাদের থেকে কিনে নিই আমি। ওই ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে একটি চাঁদাবাজির মামলা চলমান আছে।

বারপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনির তালুকদার বলেন, মুজিবুর রহমান ভূঁইয়ার সঙ্গে রনজিৎ রায় ও তার চাচাতো ভাই নিত্যানন্দ রায়ের কয়েক বছর ধরে সম্পত্তি নিয়ে মামলা মোকাদ্দমা চলে আসছে। এ ব্যাপারে আদালতের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত।

স্থানীয়রা জানান, দাউদকান্দি উপজেলার বারইকান্দি গ্রামের বাসীন্দা মুক্তিযোদ্ধা রনজিৎ রায় ও তার চাচাতো ভাই নিত্যানন্দ রায়ের জমি দখলে নিতে দীর্ঘদিন ধরেই পায়তারা করে আসছিলেন স্থানীয় বিএনপি নেতা মজিবুর রহমান ভূঁইয়া। এ নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে চলমান বিবাদ গড়ায় থানা-পুলিশ পর্যন্ত।

থানা-পুলিশের হস্তক্ষেপে মুজিব কিছুদিন চুপ ছিলো। তবে করোনা মহামারীর মধ্যেই বিএনপি নেতা মজিবুর নতুন করে জমি দখলের পায়তারা শুরু করেছে। সর্বশেষ মুক্তিযোদ্ধার জমির প্রবেশপথে টিনের বেড়া দিয়ে পুরোপুরি আটকে দিয়েছে মজিবুর।

এলাকাবাসীরা জানায়, বিএনপি নেতা মজিবুর দীর্ঘদিন ধরেই রনজিৎ রায় ও নিত্যানন্দের বাড়ি-জমি হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছে। ইতিমধ্যে বেশকিছু জমি দখল করেও নিয়েছেন তিনি। সেই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় দীর্ঘদিন পলাতক ছিলেন মুজিব। সম্প্রতি করোনা পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে ফের এলাকায় ফেরত আসেন। এরপর থেকেই আবারও নতুন করে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারটির জমি দখলের পায়তারা শুরু করেন তিনি।


মুক্তিযোদ্ধার জমিতে ঢোকার পথে বেড়া দিলেন বিএনপি নেতা

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২২ জুন ২০২০, ০৬:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মুক্তিযোদ্ধার জমিতে ঢোকার পথে বেড়া দিলেন বিএনপি নেতা
মুজিবুর রহমান ভূঁইয়ার দেয়া সেই বেড়া। ছবি: যুগান্তর

কুমিল্লার দাউদকান্দিতে মুক্তিযোদ্ধার বাড়ির জমিতে ঢোকার প্রবেশপথ বন্ধ করে বেড়া দিয়েছেন মুজিবুর রহমান ভূঁইয়া নামে এক স্থানীয় বিএনপি নেতা। 

এর আগেও ওই মুক্তিযোদ্ধা ও তার চাচাতো ভাইয়ের জমিতে ধর্মীয় স্থাপনা এবং দেয়াল নির্মাণ করেছেন ওই বিএনপি নেতা। 

এ নিয়ে স্থানীয় থানায় একটি মামলা চলমান রয়েছে।  এরপরও এবার জমিতে বেড়া দেয়ার ঘটনা ঘটল।

রোববার সকালে বেড়া দেয়ার বিষয়টি দেখতে পান ভুক্তভোগী ওই মুক্তিযোদ্ধার পরিবার। পরে এ বিষয়ে স্থানীয়দের জানালে তারা মুজিবুরকে বেড়া না দিতে অনুরোধ করেন। কিন্তু কারও কথা কানে নেননি তিনি।

পরে এ বিষয়ে মুক্তযোদ্ধা পরিবারের পক্ষ থেকে স্থানীয় মেম্বার, চেয়ারম্যান ও দাউদকান্দি থানার ওসিকে জানানো হলে পুলিশের হস্তক্ষেপে বেড়াটি সরানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা রনজিৎ রায় বলেন, মুজিববর্ষ উপলক্ষে আমার ও চাচাতো ভাইয়ের বসতবাড়ির অব্যবহৃত জমিতে বৃক্ষরোপনের প্রস্তুতি নিয়েছিলাম।  পরে জানতে পারি মুজিব আমার বাড়ির প্রবেশবন্ধ করে বেড়া নির্মাণ করছেন।  স্থানীয়দের জানালে তারা তাকে নিষেধ করে। কিন্তু তিনি কারও কথা শোনেননি।  আমাদের জমি দখলের জন্যই দীর্ঘদিন ধরে এই বেড়া দিয়েছে। 

এ বিষয়ে বিএনপি নেতা মুজিবুর রহমান ভুঁইয়া বলেন, আদালতে মামলা চলমান থাকা অবস্থায় রনজিৎ রায় ও তার চাচাতো ভাই নিত্যানন্দ রায় আমার জায়গা জোড়পূর্বক দখল করতে চায়। ১৯৯৫ সালে জমিটি তাদের থেকে কিনে নিই আমি। ওই ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে একটি চাঁদাবাজির মামলা চলমান আছে।

বারপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনির তালুকদার বলেন, মুজিবুর রহমান ভূঁইয়ার সঙ্গে রনজিৎ রায় ও তার চাচাতো ভাই নিত্যানন্দ রায়ের কয়েক বছর ধরে সম্পত্তি নিয়ে মামলা মোকাদ্দমা চলে আসছে। এ ব্যাপারে আদালতের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত।

স্থানীয়রা জানান, দাউদকান্দি উপজেলার বারইকান্দি গ্রামের বাসীন্দা মুক্তিযোদ্ধা রনজিৎ রায় ও তার চাচাতো ভাই নিত্যানন্দ রায়ের জমি দখলে নিতে দীর্ঘদিন ধরেই পায়তারা করে আসছিলেন স্থানীয় বিএনপি নেতা মজিবুর রহমান ভূঁইয়া। এ নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে চলমান বিবাদ গড়ায় থানা-পুলিশ পর্যন্ত।

থানা-পুলিশের হস্তক্ষেপে মুজিব কিছুদিন চুপ ছিলো। তবে করোনা মহামারীর মধ্যেই বিএনপি নেতা মজিবুর নতুন করে জমি দখলের পায়তারা শুরু করেছে। সর্বশেষ মুক্তিযোদ্ধার জমির প্রবেশপথে টিনের বেড়া দিয়ে পুরোপুরি আটকে দিয়েছে মজিবুর।

এলাকাবাসীরা জানায়, বিএনপি নেতা মজিবুর দীর্ঘদিন ধরেই রনজিৎ রায় ও নিত্যানন্দের বাড়ি-জমি হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছে। ইতিমধ্যে বেশকিছু জমি দখল করেও নিয়েছেন তিনি। সেই ঘটনায় দায়ের করা মামলায় দীর্ঘদিন পলাতক ছিলেন মুজিব।  সম্প্রতি করোনা পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে ফের এলাকায় ফেরত আসেন।  এরপর থেকেই আবারও নতুন করে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারটির জমি দখলের পায়তারা শুরু করেন তিনি। 


 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন