নোয়াখালীতে পুলিশের ধাওয়ায় পুকুরে ডুবে ব্যবসায়ীর মৃত্যু
jugantor
নোয়াখালীতে পুলিশের ধাওয়ায় পুকুরে ডুবে ব্যবসায়ীর মৃত্যু

  নোয়াখালী প্রতিনিধি  

২২ জুন ২০২০, ২২:২১:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের দুর্গাপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীনারায়ণ পুরে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পুকুরে ডুবে চৌমুহনীর প্রেস ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

বেগমগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, রোববার রাত ১১/১২ টার দিকে এসআই শহিদ ফোর্সসহ আসামি গ্রেফতার করার জন্য দুর্গাপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীনারায়ণ পুরের জহির উদ্দিন পাটোয়ারী বাড়িতে যায়। মামলার আসামি চৌমুহনীর প্রেস ব্যবসায়ী মোহাম্মদ উল্লা (৫০) পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ঘরের ছাদ দিয়ে পুকুরের ওপর থাকা আম গাছের ডালে লুকিয়ে থাকে। পুলিশ বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসার পর মোহাম্মদ উল্লা গাছ থেকে পানিতে পড়ে যায়।

এর পর পুলিশ ও স্থানীয় জনতা তাকে পুকুর থেকে তুলে আনলে সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তখন তার আত্মীয়রা তাকে নিয়ে চৌমুহনীর কয়েকটি হাসপাতালে যায়। কোনো হাসপাতালে তাকে চিকিৎসা দিতে রাজী না হওয়ায় তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

মৃত ব্যবসায়ী মোহাম্মদ উল্লার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আত্মীয় জানান, পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পুকুরে ডুবে তার মৃত্যু হয়েছে।

বেগমগঞ্জ সার্কেল পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাজাহান শেখ, বেগমগঞ্জ থানার ওসি হারুন রশীদ চৌধুরী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ওসি হারুন রশীদ চৌধুরী জানান, লাশ ময়নাতদন্তের পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নোয়াখালীতে পুলিশের ধাওয়ায় পুকুরে ডুবে ব্যবসায়ীর মৃত্যু

 নোয়াখালী প্রতিনিধি 
২২ জুন ২০২০, ১০:২১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের দুর্গাপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীনারায়ণ পুরে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পুকুরে ডুবে চৌমুহনীর প্রেস ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

বেগমগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, রোববার রাত ১১/১২ টার দিকে এসআই শহিদ ফোর্সসহ আসামি গ্রেফতার করার জন্য দুর্গাপুর ইউনিয়নের লক্ষ্মীনারায়ণ পুরের জহির উদ্দিন পাটোয়ারী বাড়িতে যায়। মামলার আসামি চৌমুহনীর প্রেস ব্যবসায়ী মোহাম্মদ উল্লা (৫০) পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ঘরের ছাদ দিয়ে পুকুরের ওপর থাকা আম গাছের ডালে লুকিয়ে থাকে। পুলিশ বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসার পর মোহাম্মদ উল্লা গাছ থেকে পানিতে পড়ে যায়।

এর পর পুলিশ ও স্থানীয় জনতা তাকে পুকুর থেকে তুলে আনলে সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তখন তার আত্মীয়রা তাকে নিয়ে চৌমুহনীর কয়েকটি হাসপাতালে যায়। কোনো হাসপাতালে তাকে চিকিৎসা দিতে রাজী না হওয়ায় তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

মৃত ব্যবসায়ী মোহাম্মদ উল্লার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আত্মীয় জানান, পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পুকুরে ডুবে তার মৃত্যু হয়েছে।

বেগমগঞ্জ সার্কেল পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাজাহান শেখ, বেগমগঞ্জ থানার ওসি হারুন রশীদ চৌধুরী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ওসি হারুন রশীদ চৌধুরী জানান, লাশ ময়নাতদন্তের পর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন