টেকনাফের গহীন পাহাড়ে যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ
jugantor
টেকনাফের গহীন পাহাড়ে যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ

  টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি  

২৪ জুন ২০২০, ০৯:৫৫:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

টেকনাফের গহীন পাহাড়ে যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার গহীন পাহাড় থেকে যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত সোয়া ৮টার দিকে হ্নীলা ইউনিয়নের রঙ্গিখালী পাহাড় থেকে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে।

নিহত যুবক হচ্ছে রঙ্গিখালী এলাকার গুরা মিয়ার ছেলে জসিমউদ্দিন (২৮)।

টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে। পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানান তিনি।

নিহতের স্বজনরা জানান, সকালে জসিমউদ্দিন কয়েকজন শ্রমিক নিয়ে রঙ্গিখালী পাহাড়ের কাছে নিজস্ব জমিতে কৃষিকাজ করতে যায়।

এ সময় প্রতিপক্ষের একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্ত তাকে অস্ত্রের মুখে পাহাড়ে ধরে নিয়ে যায়। এ সময় তার সঙ্গে থাকা শ্রমিকরা ফিরে এসে খবরটি পরিবারকে জানান।

তখন অপহৃতের পরিবার বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করে। এর পর দুপুর থেকে টেকনাফ থানা পুলিশের একটি দল পাহাড়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে।

একপর্যায়ে সন্ধ্যার দিকে রঙ্গিখালী পাহাড়ের গহীনে ধইল্যার ঝিরি নামক এলাকার গুলিবিদ্ধ জসিমের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে। রাত সোয়া ৮টার দিকে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হ্নীলা রঙ্গিখালী এলাকায় পাহাড়ি জমি দখল, জবরদখল ও আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে দুই বিবদমান গ্রুপের বিরোধ চলে আসছিল। তারই জের ধরে প্রতিপক্ষের হাতে এ হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয়ে থাকতে পারে।

টেকনাফের গহীন পাহাড়ে যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ

 টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি 
২৪ জুন ২০২০, ০৯:৫৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
টেকনাফের গহীন পাহাড়ে যুবকের গুলিবিদ্ধ লাশ
ফাইল ছবি

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার গহীন পাহাড় থেকে যুবকের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত সোয়া ৮টার দিকে হ্নীলা ইউনিয়নের রঙ্গিখালী পাহাড় থেকে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে।

নিহত যুবক হচ্ছে রঙ্গিখালী এলাকার গুরা মিয়ার ছেলে জসিমউদ্দিন (২৮)।

টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে। পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানান তিনি।

নিহতের স্বজনরা জানান, সকালে জসিমউদ্দিন কয়েকজন শ্রমিক নিয়ে রঙ্গিখালী পাহাড়ের কাছে নিজস্ব জমিতে কৃষিকাজ করতে যায়।
 
এ সময় প্রতিপক্ষের একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্ত তাকে অস্ত্রের মুখে পাহাড়ে ধরে নিয়ে যায়। এ সময় তার সঙ্গে থাকা শ্রমিকরা ফিরে এসে খবরটি পরিবারকে জানান।

তখন অপহৃতের পরিবার বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করে। এর পর দুপুর থেকে টেকনাফ থানা পুলিশের একটি দল পাহাড়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে।

একপর্যায়ে সন্ধ্যার দিকে রঙ্গিখালী পাহাড়ের গহীনে ধইল্যার ঝিরি নামক এলাকার গুলিবিদ্ধ জসিমের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে। রাত সোয়া ৮টার দিকে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, হ্নীলা রঙ্গিখালী এলাকায় পাহাড়ি জমি দখল, জবরদখল ও আধিপত্য বিস্তার কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে দুই বিবদমান গ্রুপের বিরোধ চলে আসছিল। তারই জের ধরে প্রতিপক্ষের হাতে এ হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হয়ে থাকতে পারে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন