ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা
jugantor
ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

  খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি  

২৪ জুন ২০২০, ১৩:৪৮:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা
ফাইল ছবি

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় মো. ফারুক হোসেন (২৫) নামে এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

বুধবার সকালে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের চক্রপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মো. ফারুক হোসেন মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের চক্রপাড়া এলাকার মো. আবুল কাশেমের ছেলে।

মৃত্যুর কয়েক দিন আগে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এক স্ট্যাটাসে ফারুক লিখেছেন– 'ডিপ্রেশন শব্দের অর্থ তারাই বোঝে! যারা প্রতিনিয়ত নিজের ভেতরে নিজেকে দাফন করে! ডিপ্রেশনে থাকা মানুষগুলো! সবার মতোই স্বাভাবিক জীবনযাপন করে! তাদের দেখে কেউ বুঝবে না, কত কষ্ট লুকিয়ে তারা অভিনয় করে যাচ্ছেন! তারা মুখ ফুটে কখনই বলবে না, আমি ভালো নেই! মিথ্যা অভিনয় দিয়ে তারা সবাইকে খুশি রাখে! এভাবেই হয়তো তাদের দিন কেটে যায়! কিন্তু রাত হলেই তাদের ডিপ্রেশন বাড়তে থাকে! একাকিত্বের কষ্ট তাদের মস্তিষ্ককে গ্রাস করে! তাদের ভেতরে আটকে থাকা কষ্টগুলো অশ্রু হয়ে গড়িয়ে পড়ে! আত্মহত্যা মহাপাপ ভেবেই হয়তো, তারা নিজেদের মোড়াতে পারে না, দাফনের কাফনে!'

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে বাবাকে ব্যবসায় সহযোগিতা করে আসছিলেন মো. ফারুক হোসেন। তারই সূত্র ধরে চক্রপাড়ায় বাড়ির পাশে বাবার দোকানেই রাতযাপন করতেন তিনি।

মঙ্গলবার রাতের কোনো একসময় দোকানের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। বুধবার সকালে পরিবারের সদস্যরা পুলিশকে জানালে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মাটিরাঙা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শাহানুর আলম বলেন, মরদেহ উদ্ধার শেষে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

 খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি 
২৪ জুন ২০২০, ০১:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা
ফাইল ছবি

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় মো. ফারুক হোসেন (২৫) নামে এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন।

বুধবার সকালে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের চক্রপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মো. ফারুক হোসেন মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের চক্রপাড়া এলাকার মো. আবুল কাশেমের ছেলে।

মৃত্যুর কয়েক দিন আগে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এক স্ট্যাটাসে ফারুক লিখেছেন– 'ডিপ্রেশন শব্দের অর্থ তারাই বোঝে! যারা প্রতিনিয়ত নিজের ভেতরে নিজেকে দাফন করে! ডিপ্রেশনে থাকা মানুষগুলো! সবার মতোই স্বাভাবিক জীবনযাপন করে! তাদের দেখে কেউ বুঝবে না, কত কষ্ট লুকিয়ে তারা অভিনয় করে যাচ্ছেন! তারা মুখ ফুটে কখনই বলবে না, আমি ভালো নেই! মিথ্যা অভিনয় দিয়ে তারা সবাইকে খুশি রাখে! এভাবেই হয়তো তাদের দিন কেটে যায়! কিন্তু রাত হলেই তাদের ডিপ্রেশন বাড়তে থাকে! একাকিত্বের কষ্ট তাদের মস্তিষ্ককে গ্রাস করে! তাদের ভেতরে আটকে থাকা কষ্টগুলো অশ্রু হয়ে গড়িয়ে পড়ে! আত্মহত্যা মহাপাপ ভেবেই হয়তো, তারা নিজেদের মোড়াতে পারে না, দাফনের কাফনে!'

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে বাবাকে ব্যবসায় সহযোগিতা করে আসছিলেন মো. ফারুক হোসেন। তারই সূত্র ধরে চক্রপাড়ায় বাড়ির পাশে বাবার দোকানেই রাতযাপন করতেন তিনি।

মঙ্গলবার রাতের কোনো একসময় দোকানের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। বুধবার সকালে পরিবারের সদস্যরা পুলিশকে জানালে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মাটিরাঙা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শাহানুর আলম বলেন, মরদেহ উদ্ধার শেষে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।