স্ত্রীর পরকীয়ার খবরে স্বর্ণ ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা
jugantor
স্ত্রীর পরকীয়ার খবরে স্বর্ণ ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

  নোয়াখালী প্রতিনিধি  

২৪ জুন ২০২০, ২২:১৬:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের রাজগঞ্জে স্ত্রীর পরকীয়ার খবরে স্বর্ণ ব্যবসায়ী রাজিব চন্দ্র কুরি আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজের শয়নকক্ষে সিলিং ফ্যানে ঝুলে তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

নিহতের ছোট ভাই পলাশ কুরি জানান, তার বড় ভাই রাজিব চন্দ্র কুরি স্থানীয় রাজগঞ্জ বাজারে স্বর্ণের ব্যবসা করতেন। দু'বছর আগে সোনাইমুড়ী পৌর এলাকায় প্রিয়ন্তী রানী কুরির সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাদের বনিবনা হচ্ছিল না।

ইতিমধ্যে তাদের ১ কন্যা সন্তান জন্মগ্রহণ করে। কয়েক মাস আগে রাজিব তার স্ত্রীকে নিয়ে বোনের বাড়ি বেড়াতে গেলে প্রিয়ন্তী সেখান থেকে ৫০ তোলা স্বর্ণের গয়না চুরি করে রাতে সোনাইমুড়ী বাপের বাড়ি চলে যান। এরপর থেকে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য আরও বেড়ে যায়।

এরই মধ্যে প্রিয়ন্তী তার বাবার বাড়ি এলাকায় পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছে এমন খবরে মেয়ের কথা বলে স্ত্রীকে অনেক বুঝানোর চেষ্টা করেন রাজিব। তিনি আত্মীয়দের সহযোগিতা নিয়েও স্ত্রী-কন্যাকে বাড়ি আনতে না পেরে বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজের বসতঘরে নিজ সিলিং ফ্যানে ঝুলে আত্মহত্যা করেন।

রাজিবের ছোট ভাই পলাশ কুরি আরও জানান, তার ভাইয়ের লাশ সৎকারের পর তার ভাইয়ের হত্যা প্ররোচণার অভিযোগ এনে প্রিয়ন্তি রানী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে মামলার ব্যাপারে আইনজীবীর সঙ্গে সিদ্ধান্ত নেবেন।

থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইকবার বাহার চৌধুরী জানান, লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার ময়নাতদন্তের পর লাশ তার স্বজনদের বুঝিয়ে দেয়া হবে।

স্ত্রীর পরকীয়ার খবরে স্বর্ণ ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

 নোয়াখালী প্রতিনিধি 
২৪ জুন ২০২০, ১০:১৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের রাজগঞ্জে স্ত্রীর পরকীয়ার খবরে স্বর্ণ ব্যবসায়ী রাজিব চন্দ্র কুরি আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজের শয়নকক্ষে সিলিং ফ্যানে ঝুলে তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

নিহতের ছোট ভাই পলাশ কুরি জানান, তার বড় ভাই রাজিব চন্দ্র কুরি স্থানীয় রাজগঞ্জ বাজারে স্বর্ণের ব্যবসা করতেন। দু'বছর আগে সোনাইমুড়ী পৌর এলাকায় প্রিয়ন্তী রানী কুরির সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাদের বনিবনা হচ্ছিল না। 

ইতিমধ্যে তাদের ১ কন্যা সন্তান জন্মগ্রহণ করে। কয়েক মাস আগে রাজিব তার স্ত্রীকে নিয়ে বোনের বাড়ি বেড়াতে গেলে প্রিয়ন্তী সেখান থেকে ৫০ তোলা স্বর্ণের গয়না চুরি করে রাতে সোনাইমুড়ী বাপের বাড়ি চলে যান। এরপর থেকে তাদের মধ্যে মনোমালিন্য আরও বেড়ে যায়। 

এরই মধ্যে প্রিয়ন্তী তার বাবার বাড়ি এলাকায় পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছে এমন খবরে মেয়ের কথা বলে স্ত্রীকে অনেক বুঝানোর চেষ্টা করেন রাজিব। তিনি আত্মীয়দের সহযোগিতা নিয়েও স্ত্রী-কন্যাকে বাড়ি আনতে না পেরে বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজের বসতঘরে নিজ সিলিং ফ্যানে ঝুলে আত্মহত্যা করেন। 

রাজিবের ছোট ভাই পলাশ কুরি আরও জানান, তার ভাইয়ের লাশ সৎকারের পর তার ভাইয়ের হত্যা প্ররোচণার অভিযোগ এনে প্রিয়ন্তি রানী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে মামলার ব্যাপারে আইনজীবীর সঙ্গে সিদ্ধান্ত নেবেন।

থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইকবার বাহার চৌধুরী জানান, লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার ময়নাতদন্তের পর লাশ তার স্বজনদের বুঝিয়ে দেয়া হবে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন