লালমনিরহাটে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশির মৃত্যু
jugantor
লালমনিরহাটে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশির মৃত্যু

  লালমনিরহাট প্রতিনিধি  

২৫ জুন ২০২০, ১৭:৫৮:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলায় ভারত থেকে গরু আনতে গিয়ে বিএসএফের গুলিতে এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার পূর্ব জগতবেড় সীমান্তের ৮৬২ নম্বর মেইন পিলারের নিকট এ ঘটনাটি ঘটে।

নিহত মিজানুর রহমান মিজান (২০) উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মুংলীবাড়ি গ্রামের নাসির উদ্দিন ভুট্টুর ছেলে।

জানা গেছে, ভারত থেকে গরু আনতে যায় একটি দল। গরু নিয়ে ফেরার সময় ১৪০ রানীনগর বিএসএফ ব্যাটালিয়নের চুয়াংগারখাতা ক্যাম্পের টহলরত বিএসএফের সদস্যরা তাদেরকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এতে মিজানুর রহমান মিজান গুলিবিদ্ধ হন। পরে সহযোগীরা তাকে উদ্ধার করে পাটগ্রাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে পাটগ্রাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. কালী প্রসাদ সরকার বলেন, মিজানুরের মাথায় গুলি লাগে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

এ বিষয়ে পাটগ্রাম থানার ওসি সুমন কুমার মহন্ত বলেন, নিহত যুবকের বড় ভাই জাহাঙ্গীর হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে থানায় মামলা করেছেন। লাশের সুরতহাল রিপোর্ট করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ৬১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের শমসেরনগর ক্যাম্পের সুবেদার সুলতান মুন্সি বলেন, এরকম একটি ঘটনা ঘটেছে। বিএসএফকে এ ব্যাপারে প্রতিবাদ জানিয়ে পতাকা বৈঠক আয়োজনের চেষ্টা চলছে।

লালমনিরহাটে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশির মৃত্যু

 লালমনিরহাট প্রতিনিধি 
২৫ জুন ২০২০, ০৫:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলায় ভারত থেকে গরু আনতে গিয়ে বিএসএফের গুলিতে এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার পূর্ব জগতবেড় সীমান্তের ৮৬২ নম্বর মেইন পিলারের নিকট এ ঘটনাটি ঘটে।

নিহত মিজানুর রহমান মিজান (২০) উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মুংলীবাড়ি গ্রামের নাসির উদ্দিন ভুট্টুর ছেলে।

জানা গেছে, ভারত থেকে গরু আনতে যায় একটি দল। গরু নিয়ে ফেরার সময় ১৪০ রানীনগর বিএসএফ ব্যাটালিয়নের চুয়াংগারখাতা ক্যাম্পের টহলরত বিএসএফের সদস্যরা তাদেরকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এতে মিজানুর রহমান মিজান গুলিবিদ্ধ হন। পরে সহযোগীরা তাকে উদ্ধার করে পাটগ্রাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্মরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে পাটগ্রাম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. কালী প্রসাদ সরকার বলেন, মিজানুরের মাথায় গুলি লাগে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ায় হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

এ বিষয়ে পাটগ্রাম থানার ওসি সুমন কুমার মহন্ত বলেন, নিহত যুবকের বড় ভাই জাহাঙ্গীর হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে থানায় মামলা করেছেন। লাশের সুরতহাল রিপোর্ট করা হয়েছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ ৬১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের শমসেরনগর ক্যাম্পের সুবেদার সুলতান মুন্সি বলেন, এরকম একটি ঘটনা ঘটেছে। বিএসএফকে এ ব্যাপারে প্রতিবাদ জানিয়ে পতাকা বৈঠক আয়োজনের চেষ্টা চলছে।