শিবগঞ্জে ঘুড়ির সুতা কাটার জেরে ছুরিকাঘাতে কিশোর খুন

  বগুড়া ব্যুরো ২৯ জুন ২০২০, ২২:২৯:৩৮ | অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার শিবগঞ্জে ঘুড়ির সুতা কেটে দেয়া নিয়ে বাকবিতন্ডার জের ধরে পিয়াস (১৬) নামে এক কিশোর শ্রমিকের ছুরিকাঘাতে অপর কিশোর শ্রমিক হৃদয় (১৫) মারা গেছে।

সোমবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার মোকামতলা ইউনিয়নের পারআঁচলাই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ জিজ্ঞাসাদের জন্য পিয়াসের বাবা ও মাকে আটক করেছে। মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইন্সপেক্টর সনাতন সরকার এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হৃদয় শিবগঞ্জ উপজেলার পারআঁচলাই গ্রামের আজাহার আলীর ছেলে ও পিয়াস একই এলাকার জাহাঙ্গীর হোসেনের ছেলে। পিয়াস ও হৃদয় মোকামতলায় পাইকার জুটমিলের শ্রমিক।

সোমবার বিকালে হৃদয় বাড়ির কাছে ঘুড়ি ওড়াচ্ছিল। এ সময় পিয়াস তার (হৃদয়) কাছে নাটাই চেয়ে নিয়ে ঘুড়ি ওড়াচ্ছিল। এক পর্যায়ে পিয়াস দুষ্টামির ছলে সুতা কেটে দিলে ঘুড়ি উড়ে চলে যায়। এতে হৃদয় ক্ষিপ্ত হয়ে পিয়াসকে চড়থাপ্পড় দেয়। তখন পিয়াস বাড়িতে গিয়ে তার মা পেয়ারা খাতুনকে জানায়। সন্ধ্যা ৬টার দিকে হৃদয় বাড়ি ফিরছিল।

পিয়াসদের বাড়ির সামনে এলে পিয়াস ও তার মা তাকে আটক করে। এ সময় দুজনের মধ্যে আবারো হাতাহাতি হয়। পিয়াস মার খেয়ে বাড়িতে ঢুকে ছুরি নিয়ে এসে হৃদয়ের গলায় আঘাত করে। স্থানীয়রা হৃদয়কে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার চেষ্টা করলে পথিমধ্যে তার মৃত্যু হয়। পিয়াস পালিয়ে গেলে পুলিশ তার বাবা জাহাঙ্গীর হোসেন ও মা পেয়ারা খাতুনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইন্সপেক্টর সনাতন সরকার জানান, ঘুড়ি উড়ানো নিয়ে বাকবিতন্ডার জের ধরে কিশোর পিয়াসের ছুরিকাঘাতে কিশোর হৃদয় মারা গেছে। নিহত হৃদয়ের লাশ উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পিয়াসের মা ও বাবাকে থানায় আনা হয়েছে। পিয়াসকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত