কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়া সেই প্রতারক লোকমান গ্রেফতার
jugantor
কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়া সেই প্রতারক লোকমান গ্রেফতার

  হোসেনপুর (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি  

৩০ জুন ২০২০, ০০:০৭:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে গরিব লোকজনকে সরকারি ঘর পাইয়ে দেয়ার কথা বলে কয়েক কোটি কোটি হাতিয়ে নেয়া প্রতারক চক্রের মূলহোতা লোকমানকে (৪৮) অবশেষে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোমবার সকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তার বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে।

লোকমান উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ পানান গ্রামের রমজান আলীর ছেলে।

পুলিশ জানায়, গ্রামবাসীর টাকা আত্মসাৎ করে প্রতারক লোকমান দীর্ঘদিন ধরে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার বাড়ি আসার বিষয়টি পুলিশ জানতে পেরে সকালে তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে ধরা হয়। তার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলাসহ প্রতারণার অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে।
জানা যায়, লোকমান নিজের গ্রামের বাড়ি দক্ষিণ পানান গ্রাম থেকে সরকারি ঘর পাইয়ে দেয়ার লোভ দেখিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। গ্রামে গেলে এখনো চোখে পড়ে এখানে সেখানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা অসংখ্য পরিত্যক্ত ভিটে। দেখে মনে হবে, এখান থেকে বোধ হয় লোকজনকে উচ্ছেদ করা হয়েছে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে পরিত্যক্ত এই ভিটেগুলো লোকমানের অভিনব এক প্রতারণার সাক্ষ্য বহন করছে।

গত দেড়-দুই বছর আগে পুরো গ্রামের লোকজনকে সরকারি ঘর দেয়ার নাম করে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে যান তিনি। এর পর থেকে গ্রামের লোকজন খুঁজছিলেন তাকে। তার বিরুদ্ধে ভুক্তভোগীরা বেশ কয়েটি মামলাও করেছিল। কিন্তু পালিয়ে যাওয়ায় তাকে ধরতে পারেনি পুলিশ। তার এসব অপকর্ম নিয়ে দৈনিক যুগান্তরে ওই সময় প্রতিবেদনও ছাপা হয়।  

স্থানীয়রা জানায়, লোকমান একা নয়, একটি সংঘবদ্ধ চক্র প্রতারণার ফাঁদে ফেলে এ গ্রামের হাজার হাজার পরিবারকে সর্বস্বান্ত করেছে। প্রথমে তারা কেবল আংশিক ভিটে ও কয়েকটি পিলার তুলে দিয়ে কিছু মানুষের আস্থা অর্জন করত। পরে এভাবেই ওই গ্রামের কয়েকশ পরিবারের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিয়ে লোকমানের নেতৃত্বে চক্রটি আত্মগোপনে চলে যায়।

তারা বলেন, টাকা দিয়ে নতুন ঘরের আশায় যখন দিন গুনছিল হতদরিদ্র লোকজন, ঠিক তখনই গ্রামবাসীকে হতাশায় ডুবিয়ে পালিয়ে যায় লোকমানসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা। 

স্থানীয় বাসিন্দা জয়নাল গাজি জানান, প্রতারক লোকমানের গ্রেফতারের সংবাদে এলাকার মানুষের মাঝে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরে এসেছে।

এ বিষয়ে হোসেনপুর থানার ওসি শেখ মোস্তাফিজুর রহমান প্রতারক লোকমানকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অনেক দিন ধরেই লোকমানকে পুলিশ খুঁজছিল। তার বিরুদ্ধে কয়েকটি মামলাসহ প্রতারণার অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এখন তদন্ত হবে। প্রতারণার সঙ্গে জড়িত অন্যদের আইনের আওতায় আনা হবে।

কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়া সেই প্রতারক লোকমান গ্রেফতার

 হোসেনপুর (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি 
৩০ জুন ২০২০, ১২:০৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে গরিব লোকজনকে সরকারি ঘর পাইয়ে দেয়ার কথা বলে কয়েক কোটি কোটি হাতিয়ে নেয়া প্রতারক চক্রের মূলহোতা লোকমানকে (৪৮) অবশেষে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোমবার সকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে তার বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করে।

লোকমান উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ পানান গ্রামের রমজান আলীর ছেলে।

পুলিশ জানায়, গ্রামবাসীর টাকা আত্মসাৎ করে প্রতারক লোকমান দীর্ঘদিন ধরে পালিয়ে বেড়াচ্ছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার বাড়ি আসার বিষয়টি পুলিশ জানতে পেরে সকালে তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে ধরা হয়। তার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকটি মামলাসহ প্রতারণার অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে।
জানা যায়, লোকমান নিজের গ্রামের বাড়ি দক্ষিণ পানান গ্রাম থেকে সরকারি ঘর পাইয়ে দেয়ার লোভ দেখিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। গ্রামে গেলে এখনো চোখে পড়ে এখানে সেখানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা অসংখ্য পরিত্যক্ত ভিটে। দেখে মনে হবে, এখান থেকে বোধ হয় লোকজনকে উচ্ছেদ করা হয়েছে। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে পরিত্যক্ত এই ভিটেগুলো লোকমানের অভিনব এক প্রতারণার সাক্ষ্য বহন করছে।

গত দেড়-দুই বছর আগে পুরো গ্রামের লোকজনকে সরকারি ঘর দেয়ার নাম করে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে যান তিনি। এর পর থেকে গ্রামের লোকজন খুঁজছিলেন তাকে। তার বিরুদ্ধে ভুক্তভোগীরা বেশ কয়েটি মামলাও করেছিল। কিন্তু পালিয়ে যাওয়ায় তাকে ধরতে পারেনি পুলিশ। তার এসব অপকর্ম নিয়ে দৈনিক যুগান্তরে ওই সময় প্রতিবেদনও ছাপা হয়।

স্থানীয়রা জানায়, লোকমান একা নয়, একটি সংঘবদ্ধ চক্র প্রতারণার ফাঁদে ফেলে এ গ্রামের হাজার হাজার পরিবারকে সর্বস্বান্ত করেছে। প্রথমে তারা কেবল আংশিক ভিটে ও কয়েকটি পিলার তুলে দিয়ে কিছু মানুষের আস্থা অর্জন করত। পরে এভাবেই ওই গ্রামের কয়েকশ পরিবারের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিয়ে লোকমানের নেতৃত্বে চক্রটি আত্মগোপনে চলে যায়।

তারা বলেন, টাকা দিয়ে নতুন ঘরের আশায় যখন দিন গুনছিল হতদরিদ্র লোকজন, ঠিক তখনই গ্রামবাসীকে হতাশায় ডুবিয়ে পালিয়ে যায় লোকমানসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা।

স্থানীয় বাসিন্দা জয়নাল গাজি জানান, প্রতারক লোকমানের গ্রেফতারের সংবাদে এলাকার মানুষের মাঝে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরে এসেছে।

এ বিষয়ে হোসেনপুর থানার ওসি শেখ মোস্তাফিজুর রহমান প্রতারক লোকমানকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অনেক দিন ধরেই লোকমানকে পুলিশ খুঁজছিল। তার বিরুদ্ধে কয়েকটি মামলাসহ প্রতারণার অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এখন তদন্ত হবে। প্রতারণার সঙ্গে জড়িত অন্যদের আইনের আওতায় আনা হবে।