স্ত্রীকে হত্যা করে বন্যার পানিতে ভাসিয়ে দিল স্বামী!
jugantor
স্ত্রীকে হত্যা করে বন্যার পানিতে ভাসিয়ে দিল স্বামী!

  গাইবান্ধা প্রতিনিধি  

০১ জুলাই ২০২০, ১৮:৩৮:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

বন্যার পানি

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চলে পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে বন্যার পানিতে ভাসিয়ে দিয়েছে স্বামী।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের দুর্গম চরাঞ্চল পাড়া সাধুয়া গ্রামে এ ঘটনার পর স্বামী পালিয়ে গেছে। পুলিশ বুধবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।

জানা গেছে, ওই গ্রামের শুকুর আলীর বিধবা কন্যা নাছিমা আকতার ছবিরনের সঙ্গে ঢাকায় গার্মেন্টসে চাকরির সুবাদে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার হরিপুর গ্রামের ফুল মিয়ার ছেলে মধু মিয়ার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তারা ঢাকায় অবস্থান করে।

করোনা পরিস্থিতিতে এক মাস ধরে তারা চরাঞ্চলে ছবিরনের বাড়িতে অবস্থান করছিল। বন্যার কারণে গত কয়েকদিন ধরে বাড়ির পাশে উঁচু ভিটার মধ্যে টং পেতে দিনাতিপাত করছে তারা। মঙ্গলবার ছবিরনের কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে তার ভাই জাহাঙ্গীর সন্ধ্যায় উঁচু ভিটায় গিয়ে দেখতে পায় তার বোনের লাশ হাত-পা বাঁধা অবস্থায় বানের পানিতে ভাসছে এবং দুলাভাই বাড়িতে নেই। এ নিয়ে জাহাঙ্গীর বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছে।

সুন্দরগঞ্জ থানার ওসি আবদুল্লাহিল জামান জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক কলহের জের পরিকল্পিতভাবে স্ত্রীকে হত্যা করে বন্যা পানিতে ভাসিয়ে দিয়ে স্বামী পালিয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

স্ত্রীকে হত্যা করে বন্যার পানিতে ভাসিয়ে দিল স্বামী!

 গাইবান্ধা প্রতিনিধি 
০১ জুলাই ২০২০, ০৬:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বন্যার পানি
বন্যার পানি। ফাইল ছবি

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চলে পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে বন্যার পানিতে ভাসিয়ে দিয়েছে স্বামী।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের দুর্গম চরাঞ্চল পাড়া সাধুয়া গ্রামে এ ঘটনার পর স্বামী পালিয়ে গেছে। পুলিশ বুধবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে।

জানা গেছে, ওই গ্রামের শুকুর আলীর বিধবা কন্যা নাছিমা আকতার ছবিরনের সঙ্গে ঢাকায় গার্মেন্টসে চাকরির সুবাদে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার হরিপুর গ্রামের ফুল মিয়ার ছেলে মধু মিয়ার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তারা ঢাকায় অবস্থান করে।

করোনা পরিস্থিতিতে এক মাস ধরে তারা চরাঞ্চলে ছবিরনের বাড়িতে অবস্থান করছিল। বন্যার কারণে গত কয়েকদিন ধরে বাড়ির পাশে উঁচু ভিটার মধ্যে টং পেতে দিনাতিপাত করছে তারা। মঙ্গলবার ছবিরনের কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে তার ভাই জাহাঙ্গীর সন্ধ্যায় উঁচু ভিটায় গিয়ে দেখতে পায় তার বোনের লাশ হাত-পা বাঁধা অবস্থায় বানের পানিতে ভাসছে এবং দুলাভাই বাড়িতে নেই। এ নিয়ে জাহাঙ্গীর বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছে।

সুন্দরগঞ্জ থানার ওসি আবদুল্লাহিল জামান জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক কলহের জের পরিকল্পিতভাবে স্ত্রীকে হত্যা করে বন্যা পানিতে ভাসিয়ে দিয়ে স্বামী পালিয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন