গোপন বৈঠককালে আ’লীগ নেতাসহ গ্রেফতার ১৩
jugantor
গোপন বৈঠককালে আ’লীগ নেতাসহ গ্রেফতার ১৩

  নলছিটি (ঝালকাঠি) প্রতিনিধি  

০২ জুলাই ২০২০, ১৮:৫০:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

ঝালকাঠির নলছিটিতে গোপন বৈঠকের সময় মোল্লারহাট ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান আক্কাস সরদারকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা মামলার আসামি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানাসহ ১৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকালে তাদের ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন এলাকায় বৈঠক চলাকালে তাদের গ্রেফতার করা হয়।
 
জানা গেছে, গত ১০ জুন রাতে মোল্লারহাট বাজারে একা পেয়ে প্যানেল চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক আক্কাস সরদারকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা করে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা ও তার সহযোগীরা। গুরুতর অবস্থায় তাকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় ইউপি মেম্বার মিজানুর রহমান বাদী হয়ে ১৩ জুন নলছিটি থানায় ১৭ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলেন সোহেল রানাসহ মামলার আসামিরা।

বৃহস্পতিবার সকালে আসামিরা মোল্লারহাট ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন এলাকায় গোপন বৈঠক করছিলেন। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় হত্যাচেষ্টা মামলার প্রধান আসামি সোহেল রানা ও ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা সেলিম হাওলাদারসহ  ১৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোল্লারহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই  নূরে আলম বলেন, সকাল সোয়া ৫টার দিকে গোপন বৈঠক করছিলেন সোহেল রানার নেতৃত্বে আসামিরা। পুলিশ তাদের চারদিক থেকে ঘিরে গ্রেফতার করে।

নলছিটি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আ. হালিম তালুকদার বলেন, এ মামলার মূল আসামিসহ ১৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

গোপন বৈঠককালে আ’লীগ নেতাসহ গ্রেফতার ১৩

 নলছিটি (ঝালকাঠি) প্রতিনিধি 
০২ জুলাই ২০২০, ০৬:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঝালকাঠির নলছিটিতে গোপন বৈঠকের সময় মোল্লারহাট ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান আক্কাস সরদারকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা মামলার আসামি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানাসহ ১৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকালে তাদের ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন এলাকায় বৈঠক চলাকালে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

জানা গেছে, গত ১০ জুন রাতে মোল্লারহাট বাজারে একা পেয়ে প্যানেল চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সম্পাদক আক্কাস সরদারকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা করে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা ও তার সহযোগীরা। গুরুতর অবস্থায় তাকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় ইউপি মেম্বার মিজানুর রহমান বাদী হয়ে ১৩ জুন নলছিটি থানায় ১৭ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে পলাতক ছিলেন সোহেল রানাসহ মামলার আসামিরা।

বৃহস্পতিবার সকালে আসামিরা মোল্লারহাট ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন এলাকায় গোপন বৈঠক করছিলেন। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় হত্যাচেষ্টা মামলার প্রধান আসামি সোহেল রানা ও ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা সেলিম হাওলাদারসহ ১৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোল্লারহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এসআই নূরে আলম বলেন, সকাল সোয়া ৫টার দিকে গোপন বৈঠক করছিলেন সোহেল রানার নেতৃত্বে আসামিরা। পুলিশ তাদের চারদিক থেকে ঘিরে গ্রেফতার করে।

নলছিটি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আ. হালিম তালুকদার বলেন, এ মামলার মূল আসামিসহ ১৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন