বিরল দিয়ে রেলযোগে যাত্রী পারাপারও হবে: রেলমন্ত্রী
jugantor
বিরল দিয়ে রেলযোগে যাত্রী পারাপারও হবে: রেলমন্ত্রী

  দিনাজপুর ও বিরল প্রতিনিধি  

০৬ জুলাই ২০২০, ২২:৩০:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

রেলমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, দিনাজপুরের বিরল স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে রেলযোগে যাত্রী পারাপারের জন্য চলতি বছরেই একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হবে। আগামী ২/৩ বছরের মধ্যেই তা বাস্তবায়ন করা হবে। এছাড়াও দুদেশের যাত্রী ও পণ্য পরিবহনে বিরল রেলওয়ে স্টেশনকে আধুনিকায়ন করার ঘোষণা দেন তিনি।

সোমবার দুপুরে বিরল স্থলবন্দর পরিদর্শনকালে এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রেলমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের সঙ্গে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থার ৮টি কানেক্টিভিটি রয়েছে। এর মধ্যে বিরল একটি। বিরল স্থলবন্দরেই যাতে ভারত থেকে আমদানিকৃত পণ্য খালাস করা যায়, তার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন আরও বলেন, বিএনপি-জামায়াত সরকারের ভ্রান্তনীতির কারণে বাংলাদেশে রেলযোগাযোগ সংকুচিত করা হয়েছিল। কিন্তু ২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০১১ সালের আলাদা রেল মন্ত্রণালয় গঠন করেছেন। তখন থেকেই বাংলাদেশে রেলযোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ২০১৩ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিনাজপুরে এসে বিরল স্থলবন্দরকে একটি পূর্ণাঙ্গ স্থলবন্দরে রূপান্তরিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তিনি যা প্রতিশ্রুতি দেন, তা রক্ষা করেন। এ জন্য তিনি ভারত সরকারের সঙ্গেও চুক্তিও করেছেন।

তিনি বলেন, বিরল স্থলবন্দরের উন্নয়নে ইতিমধ্যেই ব্যাপক কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড প্রকল্প গ্রহণ করেছেন। এছাড়াও এই স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের সঙ্গে ব্রডগেজ রেললাইন নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে এবং স্থলবন্দরের ভারত সীমান্ত পর্যন্ত আধুনিক সড়ক নির্মাণের কাজও সম্পন্ন হয়েছে। রেলপথ ও সড়কপথের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ স্থলবন্দর চালু হলে এই স্থলবন্দর দিয়ে দুদেশের ব্যাপক বাণিজ্যিক প্রসার ঘটবে।

বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সবুজার সিদ্দিক সাগরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইমাম চৌধুরী, বিরল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিনাত রহমান, বিরল উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাফিজার রহমান বানু, বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রমাকান্ত রায় প্রমুখ।

এর আগে রেলমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন ও নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বাংলাদেশ সীমান্ত পর্যন্ত স্থলবন্দর এলাকা পরিদর্শন করেন। এরপর রেলমন্ত্রী বিরল রেলওয়ে স্টেশন উদ্বোধন করেন।

বিরল দিয়ে রেলযোগে যাত্রী পারাপারও হবে: রেলমন্ত্রী

 দিনাজপুর ও বিরল প্রতিনিধি 
০৬ জুলাই ২০২০, ১০:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রেলমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, দিনাজপুরের বিরল স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে রেলযোগে যাত্রী পারাপারের জন্য চলতি বছরেই একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হবে। আগামী ২/৩ বছরের মধ্যেই তা বাস্তবায়ন করা হবে। এছাড়াও দুদেশের যাত্রী ও পণ্য পরিবহনে বিরল রেলওয়ে স্টেশনকে আধুনিকায়ন করার ঘোষণা দেন তিনি।

সোমবার দুপুরে বিরল স্থলবন্দর পরিদর্শনকালে এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

রেলমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের সঙ্গে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থার ৮টি কানেক্টিভিটি রয়েছে। এর মধ্যে বিরল একটি। বিরল স্থলবন্দরেই যাতে ভারত থেকে আমদানিকৃত পণ্য খালাস করা যায়, তার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
 
রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন আরও বলেন, বিএনপি-জামায়াত সরকারের ভ্রান্তনীতির কারণে বাংলাদেশে রেলযোগাযোগ সংকুচিত করা হয়েছিল। কিন্তু ২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০১১ সালের আলাদা রেল মন্ত্রণালয় গঠন করেছেন। তখন থেকেই বাংলাদেশে রেলযোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ২০১৩ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিনাজপুরে এসে বিরল স্থলবন্দরকে একটি পূর্ণাঙ্গ স্থলবন্দরে রূপান্তরিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তিনি যা প্রতিশ্রুতি দেন, তা রক্ষা করেন। এ জন্য তিনি ভারত সরকারের সঙ্গেও চুক্তিও করেছেন।

তিনি বলেন, বিরল স্থলবন্দরের উন্নয়নে ইতিমধ্যেই ব্যাপক কর্মসূচি নেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড প্রকল্প গ্রহণ করেছেন। এছাড়াও এই স্থলবন্দর দিয়ে ভারতের সঙ্গে ব্রডগেজ রেললাইন নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে এবং স্থলবন্দরের ভারত সীমান্ত পর্যন্ত আধুনিক সড়ক নির্মাণের কাজও সম্পন্ন হয়েছে। রেলপথ ও সড়কপথের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ স্থলবন্দর চালু হলে এই স্থলবন্দর দিয়ে দুদেশের ব্যাপক বাণিজ্যিক প্রসার ঘটবে।

বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সবুজার সিদ্দিক সাগরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইমাম চৌধুরী, বিরল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জিনাত রহমান, বিরল উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাফিজার রহমান বানু, বিরল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রমাকান্ত রায় প্রমুখ।

এর আগে রেলমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন ও নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বাংলাদেশ সীমান্ত পর্যন্ত স্থলবন্দর এলাকা পরিদর্শন করেন। এরপর রেলমন্ত্রী বিরল রেলওয়ে স্টেশন উদ্বোধন করেন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন