ভাঙনের হাত থেকে বাঁচতে গিয়ে মাঝ নদীতে ডুবল সহায়-সম্বল
jugantor
ভাঙনের হাত থেকে বাঁচতে গিয়ে মাঝ নদীতে ডুবল সহায়-সম্বল

  রংপুর ব্যুরো  

০৮ জুলাই ২০২০, ১৯:৫৩:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

নৌকাডুবি
নৌকাডুবি। ফাইল ছবি

রংপুরের পীরগাছায় তিস্তার ভাঙনের হাত থেকে ঘরবাড়ি অবকাঠামো ও আসবাবপত্র নিয়ে নিরাপদ স্থানে যাওয়ার পথে শেষ রক্ষা হয়নি মুকুল মিয়ার।

মাঝ নদীতে পানির তীব্র স্রোতে তার পরিবারের ১২ সদস্যসহ নৌকাটি ডুবে যায়। এ সময় পরিবারের সবাই সাঁতার কেটে জীবন বাঁচাতে পারলেও মালামাল বোঝাই নৌকাটি ডুবে যায় নদীতে।

সহায়-সম্বল হারিয়ে পরিবারটি এখন নিঃস্ব। বুধবার উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের তিস্তা নদীতে এ নৌকা ডুবির ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ওই ইউনিয়নের ২ নম্বর গাবুড়া গ্রামের সোহরাব মিয়ার ছেলে মুকুল মিয়ার (৩৫) বাড়িঘর তিস্তার ভাঙনের কবলে পড়ে। বুধবার সাড়ে ১১টায় ঘরবাড়ি ভেঙে অবকাঠামো, আসবাবপত্র, গরু, ছাগলসহ পরিবারের ১২ সদস্য নিয়ে বাঁধে আশ্রয় নিতে রওনা হন।

এ সময় হাগুরিয়া হাসিম গ্রামের কাছে পৌঁছলে নৌকাটি তিস্তার প্রবল স্রোতে ডুবে যায়। মুহূর্তের মধ্যে ঘরবাড়ি অবকাঠামো, আসবাবপত্র, গবাদিপশু, ধান-চাউলসহ নৌকাটি তিস্তায় তলিয়ে যায়।

এ সময় নৌকায় থাকা ওই পরিবারের ১২ জন সদস্য সাঁতরিয়ে নদীর পাড়ে ওঠেন। বর্তমানে পরিবারটি শিবদেব বোল্ডারের পাড় বাঁধে আশ্রয় নিয়েছে।

ঘটনার পর খবর পেয়ে বিকালে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহ মাহবুবার রহমান তাৎক্ষণিকভাবে ওই পরিবারকে নগদ ২০ হাজার টাকা ও নৌকায় মাঝি মকবুল হোসেনকে ১০ হাজার টাকা প্রদান করেন। এসময় ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আব্দুল হাকিম উপস্থিত ছিলেন।
 

ভাঙনের হাত থেকে বাঁচতে গিয়ে মাঝ নদীতে ডুবল সহায়-সম্বল

 রংপুর ব্যুরো 
০৮ জুলাই ২০২০, ০৭:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নৌকাডুবি
নৌকাডুবি। ফাইল ছবি

রংপুরের পীরগাছায় তিস্তার ভাঙনের হাত থেকে ঘরবাড়ি অবকাঠামো ও আসবাবপত্র নিয়ে নিরাপদ স্থানে যাওয়ার পথে শেষ রক্ষা হয়নি মুকুল মিয়ার।

মাঝ নদীতে পানির তীব্র স্রোতে তার পরিবারের ১২ সদস্যসহ নৌকাটি ডুবে যায়। এ সময় পরিবারের সবাই সাঁতার কেটে জীবন বাঁচাতে পারলেও মালামাল বোঝাই নৌকাটি ডুবে যায় নদীতে।

সহায়-সম্বল হারিয়ে পরিবারটি এখন নিঃস্ব। বুধবার উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের তিস্তা নদীতে এ নৌকা ডুবির ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ওই ইউনিয়নের ২ নম্বর গাবুড়া গ্রামের সোহরাব মিয়ার ছেলে মুকুল মিয়ার (৩৫) বাড়িঘর তিস্তার ভাঙনের কবলে পড়ে। বুধবার সাড়ে ১১টায় ঘরবাড়ি ভেঙে অবকাঠামো, আসবাবপত্র, গরু, ছাগলসহ পরিবারের ১২ সদস্য নিয়ে বাঁধে আশ্রয় নিতে রওনা হন।

এ সময় হাগুরিয়া হাসিম গ্রামের কাছে পৌঁছলে নৌকাটি তিস্তার প্রবল স্রোতে ডুবে যায়। মুহূর্তের মধ্যে ঘরবাড়ি অবকাঠামো, আসবাবপত্র, গবাদিপশু, ধান-চাউলসহ নৌকাটি তিস্তায় তলিয়ে যায়।

এ সময় নৌকায় থাকা ওই পরিবারের ১২ জন সদস্য সাঁতরিয়ে নদীর পাড়ে ওঠেন। বর্তমানে পরিবারটি শিবদেব বোল্ডারের পাড় বাঁধে আশ্রয় নিয়েছে।

ঘটনার পর খবর পেয়ে বিকালে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহ মাহবুবার রহমান তাৎক্ষণিকভাবে ওই পরিবারকে নগদ ২০ হাজার টাকা ও নৌকায় মাঝি মকবুল হোসেনকে ১০ হাজার টাকা প্রদান করেন। এসময় ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আব্দুল হাকিম উপস্থিত ছিলেন।