দেশে ফেরার আকুতি ব্রেন টিউমারে আক্রান্ত শ্রীমঙ্গলের রিমার

  শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি ০৯ জুলাই ২০২০, ১৯:৪৫:২৩ | অনলাইন সংস্করণ

একটু স্বচ্ছলতার সঙ্গে বেঁচে থাকার আশা নিয়ে ওমানে পাড়ি জমান শ্রীমঙ্গলের সালমা আক্তার রিমা (২৭)। পিতৃহারা রিমার সংসার বলতে একমাত্র মা।

স্বামীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর ৬ বছরের শিশু কন্যা ফেলে দেড় বছর আগে কাজের সন্ধানে ওমান যান তিনি। এক বছরের মাথায় তা এখন দুঃস্বপ্ন হয়ে দেখা দিয়েছে।

জানা গেছে, শ্রীমঙ্গল শহরের রবার্ট হল রোডের এক রুমের একটি ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন রিমা, তার মা ও ছয় বছরের শিশু কন্যা। মা সখিনা বেগম ঘরে তৈরি পরোটা, সিঙ্গারা, সমুচা বিক্রি করেন। এ দিয়েই ৩ জনের সংসার চলত। ছোট থাকতেই রিমা বাবাকে হারান।

রিমার বিয়ে হয়েছিল ৭ বছর আগে। স্বামী পেশায় বাবুর্চি। ৪ বছরের সংসার জীবনে রিমা কখনও সুখের মুখ দেখেননি। যৌতুকের জন্য নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ৩ বছরের শিশু কন্যাকে নিয়ে মায়ের কাছে ফিরে আসেন তিনি।

মায়ের কষ্টের সংসারে একটু স্বচ্ছলতা ফেরাতে স্বপ্ন নিয়ে বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। দালালের মিষ্টি কথা আর অনেক টাকা রোজগারের প্রলোভনে বিদেশ পাড়ি জমান রিমা। ওমানের রাজধানী মাসকাটের একটি বাসায় হাউজ কিপারের কাজ পান তিনি।

কিন্তু রিমার ভাগ্যে তখনও কঠিন সময় অপেক্ষা করছিল। শুরুতে রিমার মাথায় একটু সমস্যা দেখা দেয়। পরে পরীক্ষা করে ব্রেন টিউমার ধরা পড়ে।

বুধবার টেলিফোনের মাধ্যমে যুগান্তরকে এ সব কথা জানান তিনি।

রিমা জানান, ব্রেন টিউমার ধরা পড়ায় কফিল (যার স্পন্সরে বিদেশে পাড়ি জমান) রিমাকে দেশে পাঠিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু রিমা শূন্য হাতে দেশে ফিরতে রাজী নন।

কিন্তু কফিল তাকে পাসপোর্ট ফিরিয়ে দিতে অস্বীকৃতি জানালে তিনি অন্যত্র চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। পরে একজন বাংলাদেশি মেয়ের সহায়তায় রিমা গত বছর ওই স্থান থেকে পালিয়ে যান। পরে মাসকাটের মাত্রা নামক এলাকায় ওই বাংলাদেশি মেয়ের আশ্রয়ে থেকে কয়েক মাস লুকিয়ে যখন যা পান কাজ করতে থাকেন।

কিন্তু বৈশ্বিক মহামারী করোনার হানায় রিমার স্বপ্ন ভেঙে যায়। লকডাউনের কবলে এখন কর্মহীন রিমা দেশে ফেরার অপেক্ষায় প্রহর গুনছেন। কিন্তু পাসপোর্ট ছাড়া দেশে ফেরাও সম্ভব নয়।

রিমা বলেন, এখন দেশে ফিরে টিউমারের অপারেশন না করালে ক্যান্সারের ঝুঁকির কথা বলেছে সে দেশের চিকিৎসকরা। ফলে সব হারিয়ে রিমা দেশে ফিরে আসতে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এ ব্যাপারে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মনিরুছ সালেহীনের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মো. রফিক জানান, এ বিষয়টি আবেদন আকারে জমা দিলে মেয়েটিকে দেশে ফেরানোর বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়া হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত