জয়পুরহাটে প্রাচীন মুদ্রা বিক্রির চেষ্টা, গ্রেফতার ৬
jugantor
জয়পুরহাটে প্রাচীন মুদ্রা বিক্রির চেষ্টা, গ্রেফতার ৬

  জয়পুরহাট প্রতিনিধি  

১৭ জুলাই ২০২০, ২১:৪০:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

জয়পুরহাটে র‌্যাব, জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই) ও প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতরের যৌথ অভিযানে ১৮৩৯ খ্রিস্টাব্দের একটি প্রাচীন বহু মূল্যবান তাম্রমুদ্রা অর্ধ কোটি টাকার বিনিময়ে গোপনে বিক্রির সময় ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতদের নিকট থেকে ১৮৩৯ খ্রিস্টাব্দের ১টি প্রাচীন ‘তাম্রমুদ্রা’, দেখতে হুবহু ওই আসল তাম্রমুদ্রার মতো ১টি নকল মুদ্রা ও তাদের ব্যবহৃত ৬টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হল কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার  সিনাইহাট-বড়গ্রামের ভগি মামুনের ছেলে জাহের আলী (৪৬),  একই উপজেলার মীরেরবাড়ি গ্রামের মৃত বক্তার আলীর ছেলে মাসুম মিয়া (২৫), নারিকেলবাড়ি গ্রামের সফিয়ত আলীর ছেলে আসাদুজ্জামান (৩২),লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার সাহারপুকুর গ্রামের মৃত আবদুল জব্বারের ছেলে মাহমুদুল হোসেন (৫৭), জয়পুরহাট জেলার পৌর এলাকার দেবীপুর মহল্লার মৃত রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে নুরুল ইসলাম (৬১) ও একই জেলার ক্ষেতলাল উপজেলার মিনিগাড়ি গ্রামের মৃত আবদুল সাত্তারের ছেলে মোতালেব হোসেন ওরফে বাবু (৬২)।

শুক্রবার সকালে র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্পের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানা গেছে, গোপন সূত্রে পাওয়া খবরের ভিত্তিতে জয়পুরহাট র‌্যাবের কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম এম মোহাইমেনুর রশিদের নেতৃত্বে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই), প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতরের প্রতিনিধিসহ একটি গোয়েন্দা দল অভিযান চালায়। তারা শুক্রবার ভোররাতে শহরের সরকারি বালিকা বিদ্যালয় সংলগ্ন প্রধান সড়কের ওপর থেকে আনুমনিক ৫০ লাখ টাকা মূল্যের ১৮৩৯ খ্রিস্টাব্দের ১টি প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন তাম্রমুদ্রা ও দেখতে হুবহু আসল তাম্রমুদ্রার মতো ১টি নকল মুদ্রাসহ ৬ জনকে আটক করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা তাম্রমুদ্রা দুটি নওগাঁ জেলার একটি পার্টির নিকট ৫০ লাখ টাকার বিনিময়ে গোপনে বিক্রির জন্য চুক্তি করে। কিন্তু তাদেরকে আসল তাম্রমুদ্রা দেখিয়ে নকল তাম্রমুদ্রা দিয়ে ওই পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করছিল। র‌্যাবের দাবি তাদের আকস্মিক অভিযানের ফলে প্রাচীন নিদর্শন বহু মূল্যবান তাম্রমুদ্রা বিক্রির প্রতারণাটি ভেস্তে যায়।

গ্রেফতারকৃতরা র‌্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে, জাহের আলী, মাসুম মিয়া ও আসাদুজ্জামান কুড়িগ্রাম হতে ওই বহু মূল্যবান পুরনো তাম্রমুদ্রা জয়পুরহাটে এনে মোতালেব হোসেন ওরফে বাবু, মাহমুদুল হোসেন ও নুরুল ইসলামের সহায়তায় গোপনে নওগাঁ জেলার একটি পার্টির নিকট ৫০ লাখ টাকার চুক্তি ও তাদেরকে আসল তাম্রমুদ্রা দেখিয়ে নকল তাম্রমুদ্রা দিয়ে পুরো টাকা হাতিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করছিল।’ তবে ওই ক্রেতা পক্ষের কেউ আটক হয়নি।

র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্পে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শুক্রবার দুপুরে তাদের জয়পুরহাট থানায় সোপর্দ করা হয়। র‌্যাবের পক্ষ থেকে তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জয়পুরহাটে প্রাচীন মুদ্রা বিক্রির চেষ্টা, গ্রেফতার ৬

 জয়পুরহাট প্রতিনিধি 
১৭ জুলাই ২০২০, ০৯:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জয়পুরহাটে র‌্যাব, জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই) ও প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতরের যৌথ অভিযানে ১৮৩৯ খ্রিস্টাব্দের একটি প্রাচীন বহু মূল্যবান তাম্রমুদ্রা অর্ধ কোটি টাকার বিনিময়ে গোপনে বিক্রির সময় ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতদের নিকট থেকে ১৮৩৯ খ্রিস্টাব্দের ১টি প্রাচীন ‘তাম্রমুদ্রা’, দেখতে হুবহু ওই আসল তাম্রমুদ্রার মতো ১টি নকল মুদ্রা ও তাদের ব্যবহৃত ৬টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হল কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট উপজেলার সিনাইহাট-বড়গ্রামের ভগি মামুনের ছেলে জাহের আলী (৪৬), একই উপজেলার মীরেরবাড়ি গ্রামের মৃত বক্তার আলীর ছেলে মাসুম মিয়া (২৫), নারিকেলবাড়ি গ্রামের সফিয়ত আলীর ছেলে আসাদুজ্জামান (৩২),লালমনিরহাট জেলার আদিতমারী উপজেলার সাহারপুকুর গ্রামের মৃত আবদুল জব্বারের ছেলে মাহমুদুল হোসেন (৫৭), জয়পুরহাট জেলার পৌর এলাকার দেবীপুর মহল্লার মৃত রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে নুরুল ইসলাম (৬১) ও একই জেলার ক্ষেতলাল উপজেলার মিনিগাড়ি গ্রামের মৃত আবদুল সাত্তারের ছেলে মোতালেব হোসেন ওরফে বাবু (৬২)।

শুক্রবার সকালে র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্পের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানা গেছে, গোপন সূত্রে পাওয়া খবরের ভিত্তিতে জয়পুরহাট র‌্যাবের কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম এম মোহাইমেনুর রশিদের নেতৃত্বে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই), প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতরের প্রতিনিধিসহ একটি গোয়েন্দা দল অভিযান চালায়। তারা শুক্রবার ভোররাতে শহরের সরকারি বালিকা বিদ্যালয় সংলগ্ন প্রধান সড়কের ওপর থেকে আনুমনিক ৫০ লাখ টাকা মূল্যের ১৮৩৯ খ্রিস্টাব্দের ১টি প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন তাম্রমুদ্রা ও দেখতে হুবহু আসল তাম্রমুদ্রার মতো ১টি নকল মুদ্রাসহ ৬ জনকে আটক করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা তাম্রমুদ্রা দুটি নওগাঁ জেলার একটি পার্টির নিকট ৫০ লাখ টাকার বিনিময়ে গোপনে বিক্রির জন্য চুক্তি করে। কিন্তু তাদেরকে আসল তাম্রমুদ্রা দেখিয়ে নকল তাম্রমুদ্রা দিয়ে ওই পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করছিল। র‌্যাবের দাবি তাদের আকস্মিক অভিযানের ফলে প্রাচীন নিদর্শন বহু মূল্যবান তাম্রমুদ্রা বিক্রির প্রতারণাটি ভেস্তে যায়।

গ্রেফতারকৃতরা র‌্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে, জাহের আলী, মাসুম মিয়া ও আসাদুজ্জামান কুড়িগ্রাম হতে ওই বহু মূল্যবান পুরনো তাম্রমুদ্রা জয়পুরহাটে এনে মোতালেব হোসেন ওরফে বাবু, মাহমুদুল হোসেন ও নুরুল ইসলামের সহায়তায় গোপনে নওগাঁ জেলার একটি পার্টির নিকট ৫০ লাখ টাকার চুক্তি ও তাদেরকে আসল তাম্রমুদ্রা দেখিয়ে নকল তাম্রমুদ্রা দিয়ে পুরো টাকা হাতিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করছিল।’ তবে ওই ক্রেতা পক্ষের কেউ আটক হয়নি।

র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্পে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে শুক্রবার দুপুরে তাদের জয়পুরহাট থানায় সোপর্দ করা হয়। র‌্যাবের পক্ষ থেকে তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।