চাটমোহরে গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা
jugantor
চাটমোহরে গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা

  চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি  

২০ জুলাই ২০২০, ১১:০৮:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

চাটমোহরে গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা
ফাইল ছবি

পাবনার চাটমোহরে কল্পনা রানী পাল (৩৮) নামে এক গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা করেছে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা।

রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার হরিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের নিরঞ্জন পাল ওরফে নিরুর স্ত্রী। এ ঘটনার পর এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পরিবারের বরাত দিয়ে স্থানীয়রা জানান, দুই ছেলে দিনাজপুরে বসবাস করে। কল্পনা রানী স্বামী নিরঞ্জন পালের সঙ্গে হরিপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছিলেন।

হরিপুর বাজারে নিরঞ্জন পালের একটি চায়ের দোকান রয়েছে। প্রতিদিনের মতো রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে দোকান বন্ধ করে বাড়িতে প্রবেশের সময় মেইন গেট বন্ধ দেখে পেছন দিয়ে ঘরে ঢোকেন নিরঞ্জন পাল।

পরে শোবারঘরে ঢুকেই বিছানায় স্ত্রীর গলাকাটা রক্তাক্ত মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার দিলে প্রতিবেশীরা এসে পুলিশে খবর দেন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (চাটমোহর সার্কেল) সজীব শাহরীন, থানার ওসি আমিনুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান মকবুল হোসেন।

এ ব্যাপারে এএসপি সজীব শাহরীন যুগান্তরকে বলেন, হত্যার ব্যাপারে তাৎক্ষণিক কিছু জানা যায়নি। মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। হত্যার কারণ উদ্ঘাটনে পুলিশ কাজ করছে। খুনি যেই হোক তাকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান তিনি।

চাটমোহরে গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা

 চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি 
২০ জুলাই ২০২০, ১১:০৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
চাটমোহরে গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা
ফাইল ছবি

পাবনার চাটমোহরে কল্পনা রানী পাল (৩৮) নামে এক গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যা করেছে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা।

রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার হরিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের নিরঞ্জন পাল ওরফে নিরুর স্ত্রী। এ ঘটনার পর এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পরিবারের বরাত দিয়ে স্থানীয়রা জানান, দুই ছেলে দিনাজপুরে বসবাস করে। কল্পনা রানী স্বামী নিরঞ্জন পালের সঙ্গে হরিপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছিলেন।

হরিপুর বাজারে নিরঞ্জন পালের একটি চায়ের দোকান রয়েছে। প্রতিদিনের মতো রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে দোকান বন্ধ করে বাড়িতে প্রবেশের সময় মেইন গেট বন্ধ দেখে পেছন দিয়ে ঘরে ঢোকেন নিরঞ্জন পাল।

পরে শোবারঘরে ঢুকেই বিছানায় স্ত্রীর গলাকাটা রক্তাক্ত মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার দিলে প্রতিবেশীরা এসে পুলিশে খবর দেন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (চাটমোহর সার্কেল) সজীব শাহরীন, থানার ওসি আমিনুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান মকবুল হোসেন।

এ ব্যাপারে এএসপি সজীব শাহরীন যুগান্তরকে বলেন, হত্যার ব্যাপারে তাৎক্ষণিক কিছু জানা যায়নি। মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। হত্যার কারণ উদ্ঘাটনে পুলিশ কাজ করছে। খুনি যেই হোক তাকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান তিনি।