কোনো কাজেই আসছে না যে সেতু

  সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি ২১ জুলাই ২০২০, ০০:২৩:৩২ | অনলাইন সংস্করণ

মুন্সীগঞ্জ সিরাজদিখান জৈনসার ইউনিয়নে কাঠালতলী গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে জৈনসার কাঠালতলী খাল। এই খাল পারাপারের জন্য স্থানীয় বাসিন্দাদের সুবিধার্থে সেতু নির্মাণ করা হলেও নেই সংযোগ সড়ক।

আর এ সংযোগ সড়কের অভাবে কোনো কাজেই আসছে না সেতুটি। দুই গ্রামের বাসিন্দা ও স্কুল কলেজ মাদ্রাসাগামী শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়ে পানিতে ভিজে খাল পার হতে হচ্ছে।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, সেতুটি নির্মাণের পর তারা কিছুটা আনন্দিত হলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে এই সেতুর দুই পাশে সংযোগ সড়কে মাটির কাজ না করায় চলাচল করতে অসুবিধা হওয়ায় সেতুটি তাদের কপালে দুর্ভোগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাদের দাবি জনস্বার্থে সেতুটির দুই পার্শ্বের সংযোগ সড়ক নির্মাণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

জানা গেছে, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের অর্থায়নে এবং উপজেলা ত্রাণ শাখার বাস্তবায়নে ১৩ নং জৈনসার ইউনিয়নের কাঠালতলী মুজাহিদ পাড়া গ্রামে মোতালেব ফকিরের বাড়ির নিকট কাঠালতলী খালের' উপর ৩৩ লাখ ১৬ হাজার ৭৯৪ টাকা ব্যয়ে ৩৮ ফুট দৈর্ঘ্যের আরসিসি সেতু, পাকা কালভার্ট নির্মাণ করা হয়। প্রায় ছয়মাস পার হলেও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সংযোগ সড়কের মাটির কাজ রহস্যজনক কারণে শেষ না করায় সেতুটি চার পাশে পানি বেষ্টিত হয়ে পড়ে আছে।

বন্যার আনাগোনায় খালের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় মুজাহিদপাড়া কাঠালতলীসহ পার্শ্ববর্তী গ্রামের লোকজনেরা ঝুঁকি নিয়ে পানিতে ভিজে পারাপার হচ্ছে। শিক্ষার্থীরা পারাপার হতে গিয়ে পানিতে পড়ে বই-খাতা, জামা-কাপড় নষ্ট করছে।

মুজাহিদ পাড়া গ্রামের বাসিন্দা সামসুল আলম, পারভীন বেগম, সাইফুল আলম রাজুসহ বেশ কয়েকজন জানান, সেতু করছে কিন্তু সেতু পার হওয়ার কোনো রাস্তা নাই। কবে মাটি ফেলে রাস্তা করবে কে জানে? রাস্তা না হলে এই সেতু গ্রামের মানুষের কোনো উপকারে আসবে না।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আইমিন সুলতানা সাংবাদিকদেরকে জানান, বিষয়টি আমার জানা আছে। ব্রিজটির কাজ এখনো শেষ হয়নি। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সিকিউরিটি অর্থ জমা আছে, শিগগিরই সংযোগ সড়ক নির্মাণের কাজ করা হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত