ঋণের টাকা নিয়ে কোদালের কোপে স্ত্রী খুন

প্রকাশ : ২৯ মার্চ ২০১৮, ১৬:৫৮ | অনলাইন সংস্করণ

  খোকসা (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি

ঋণের টাকা পরিশোধ নিয়ে গভীর রাতে স্বামী-স্ত্রীর বাগ্বিতণ্ডায় স্ত্রীকে কোদাল দিয়ে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা করেছেন স্বামী। এ ঘটনায় ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনায় পরপরই স্বামী পালিয়ে যায়। 

বৃহস্পতিবার ওই গৃহবধূর নিজ বাড়ির রান্নাঘর থেকে হাত-পা কাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। এর আগে বুধবার রাতে খোকসা পৌর শহরের চরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

অভিযুক্ত স্বামী দেলোয়ার হোসেন আপন সুনামগঞ্জ জেলার কান্দিরগঞ্জ গ্রামের মশক মিয়ার ছেলে আর নিহত গৃহবধূ শারমিন আক্তার ভানু (৩০) খোকসা পৌর শহরের চরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ছয় বছর আগে ঢাকায় গার্মেন্টসে কাজ করতে গিয়ে শারমিন আক্তার ভানুর দেলোয়ার হোসেন ওরফে আপনের সঙ্গে বিয়ে হয়। ঢাকায় বিয়ে করে ভানু তার গ্রামের বাড়িতে এসে বাবার সম্পত্তিতে ঘর বেঁধে সংসার করতে থাকেন। আপনের সংসারে প্রায়ই দাম্পত্য কলহ লেগেই থাকত। এরই জেরে বুধবার রাতে নিজের ব্যবহৃত ভ্যান বিক্রি করে ঋণের টাকা পরিশোধ করাকে কেন্দ্র করে ঝগড়ার একপর্যায়ে কোদাল দিয়ে নৃশংসভাবে রান্নাঘরের পাশে মুখ বেঁধে গলা ও পা কেটে হত্যা করে স্বামী দেলোয়ার।  

নিহত ভানুর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ৯ বছর আগে শারমিন আক্তার ভানুর প্রথম স্বামী হিসাম আলী (৩০) বিষপানে আত্মহত্যা করে। প্রথম স্বামীর ঘরে তাদের ঝর্না নামের ৮ বছরের একটি কন্যাসন্তান রয়েছে।  

খোকসা থানার ওসি মো. বজলুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, প্রাথমিক সুরতহাল শেষে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালের পাঠানো হয়েছে।