সীমান্তের ধানক্ষেতে মাদক কারাবারীর লাশ
jugantor
সীমান্তের ধানক্ষেতে মাদক কারাবারীর লাশ

  আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি  

২৪ জুলাই ২০২০, ২১:৫৭:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় সীমান্তের ধানক্ষেত থেকে নাজু মিয়া (৫০) নামে এক মাদক কারবারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার দুপুরে উপজেলার মনিয়ন্দ ইউনিয়নের ত্রিপুরা সীমান্তঘেঁষা দক্ষিণ মিনারকোট গ্রামের ধানক্ষেতের জলাশয় থেকে এ লাশ উদ্ধার করা হয়। নাজু মিয়া মনিয়ন্দ হরিপুর গ্রামের বাসিন্দা হোসেন মিয়ার ছেলে।

পুলিশ জানায়, নাজু মিয়া দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় মাদক বিক্রি করে আসছেন। তিনি এলাকার চিহ্নিত ও পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক চোরাকারবারী। তার নামে থানায় ৮টি মামলা রয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বুধবার রাতে তার সঙ্গীয় মাদক ব্যবসায়ীরা তাকে ফোনে ডেকে ঘর থেকে বের করে নিয়ে যায়। পরে তিনি আর বাড়ি ফিরে আসেননি। পরিবারের লোকজন আত্মীয়-স্বজনসহ সম্ভাব্য বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করেও তার সন্ধান পাননি।

শুক্রবার সকালে আখাউড়া উপজেলা মনিয়ন্দ দক্ষিণ মিনারকোট সীমান্তঘেঁষা একটি ধানক্ষেতের জলাশয়ে নাজুর লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী।

পরিবারের অভিযোগ, মাদক ব্যবসার সহযোগীরাই নাজুকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।

আখাউড়া থানার ওসি রসুল আহম্মদ নিজামী জানান, নিহতের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও তার হাতের মুঠোয় ছিল। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরিবার মামলা দিলে তদন্তসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
 

সীমান্তের ধানক্ষেতে মাদক কারাবারীর লাশ

 আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি 
২৪ জুলাই ২০২০, ০৯:৫৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় সীমান্তের ধানক্ষেত থেকে নাজু মিয়া (৫০) নামে এক মাদক কারবারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার দুপুরে উপজেলার মনিয়ন্দ ইউনিয়নের ত্রিপুরা সীমান্তঘেঁষা দক্ষিণ মিনারকোট গ্রামের ধানক্ষেতের জলাশয় থেকে এ লাশ উদ্ধার করা হয়। নাজু মিয়া মনিয়ন্দ হরিপুর গ্রামের বাসিন্দা হোসেন মিয়ার ছেলে।

পুলিশ জানায়, নাজু মিয়া দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় মাদক বিক্রি করে আসছেন। তিনি এলাকার চিহ্নিত ও পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক চোরাকারবারী। তার নামে থানায় ৮টি মামলা রয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বুধবার রাতে তার সঙ্গীয় মাদক ব্যবসায়ীরা তাকে ফোনে ডেকে ঘর থেকে বের করে নিয়ে যায়। পরে তিনি আর বাড়ি ফিরে আসেননি। পরিবারের লোকজন আত্মীয়-স্বজনসহ সম্ভাব্য বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করেও তার সন্ধান পাননি।

শুক্রবার সকালে আখাউড়া উপজেলা মনিয়ন্দ দক্ষিণ মিনারকোট সীমান্তঘেঁষা একটি ধানক্ষেতের জলাশয়ে নাজুর লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী।

পরিবারের অভিযোগ, মাদক ব্যবসার সহযোগীরাই নাজুকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।

আখাউড়া থানার ওসি রসুল আহম্মদ নিজামী জানান, নিহতের শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন নেই। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও তার হাতের মুঠোয় ছিল। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পরিবার মামলা দিলে তদন্তসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।