মাত্র ২ ঘণ্টায় পদ্মায় বিলীন ফেরিঘাট-মসজিদ

  লৌহজং (মুন্সিগঞ্জ) প্রতিনিধি ২৮ জুলাই ২০২০, ২০:১১:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

সর্বনাশা পদ্মা নদীর প্রবল স্রোতে বিলীন হয়ে গেল লৌহজংয়ের শিমুলিয়া ঘাটের ৩নং রোরো ফেরিঘাট। একই সঙ্গে ঘাটের পাশে একটি মসজিদ ও বিআইডব্লিউটিএ'র একটি সেট পদ্মায় বিলীন হয়ে গেছে। মাত্র ২ ঘণ্টার ব্যবধানে শিমুলিয়া ঘাটের প্রায় ১৫০০ বর্গ মিটার এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

মঙ্গলবার জোয়ারের অতিরিক্ত পানির স্রোতে ফেরিঘাটটি তলিয়ে যায়। এ ছাড়াও ২ নাম্বার ফেরিঘাটটিও বিলীন হওয়ার পথে এবং ঘাটের আশপাশের এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসি'র ব্যবস্থাপক মো. শাখাওয়াত আহাম্মেদ জানান, পদ্মার তীব্র স্রোতের কারণে বিআইডব্লিউটিএ'র নবর্নিমিত একটি স্থাপনা ও একটি মসজিদ ভেঙ্গে গেছে। এ ছাড়া শাহমখদুম নামের একটি রোরো ফেরি বিকল হওয়ায় ৩ নাম্বার ঘাটের পাশে নোঙর করে রাখা হয়ে ছিল কিন্তু তীব্র স্রোতের কারণে ফেরিটি সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

এ দিকে বিআইডব্লিউটিএ'র উদ্ধারকারী জাহাজ দুরন্ত এসে পল্টুনটি টেনে উপড়ে উঠায় এবং পল্টুনে থাকা জরুরি জিনিসপত্র উদ্ধার করে জাহাজে উঠিয়ে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

মাওয়া ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. সিরাজুল কবীর জানান, শিমুলিয়া ঘাটে মাত্র ১নং ঘাটটি সচল রাখা হয়েছে। ২নং ঘাটটিও ভাঙনের মুখে তাই আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে এ ঘাটটি।

তিনি আরও জানান, ঈদকে সামনে রেখে ঘাট স্থানান্তর একটি বিকট সমস্যা দেখা দিতে পারে। এ ছাড়া মাত্র একদিন পর পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটি হবে। এর মধ্যে ঘাটের অবস্থা এমন হওয়ায় দক্ষিণবঙ্গের হাজার হাজার যাত্রী চরম বিপাকে পরার সম্ভাবনা রয়েছে। এ দিকে মঙ্গলবার সকাল থেকে দুটি ঘাট বন্ধ থাকায় ছোট-বড় ৮ শতাধিক পরিবহন রয়েছে পারের অপেক্ষায়।

ঘটনাপ্রবাহ : বন্যা ২০২০

আরও
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত