বিয়ের দাবিতে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ৫ দিন ধরে প্রেমিকার অনশন 
jugantor
বিয়ের দাবিতে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ৫ দিন ধরে প্রেমিকার অনশন 

  পাবনা প্রতিনিধি  

২৯ জুলাই ২০২০, ২১:৪৮:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

ছাত্রলীগ নেতা
ছাত্রলীগ নেতা। ছবি: সংগৃহীত

বিয়ের দাবিতে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ৫ দিন ধরে অনশন করছেন এক তরুণী (১৬)। এ ঘটনা ঘটেছে পাবনার সুজানগর উপজেলার চরভবানীপুর গ্রামে। 

প্রেমিক আলী রেজা শুক্রবার ওই তরুণীকে বিয়ের কথা বলে তাদের বাড়িতে ডেকে আনে। কিন্তু বাড়ির লোকজনের চাপে তিনি কিছুক্ষণের মধ্যেই আত্মগোপন করে বলে তরুণীর পরিবারের লোকজন অভিযোগ করেছেন। বিয়ের আগে তারা মেয়েকে আর ঘরে ঠাঁই দিতেও রাজি নন। উভয় সংকটে পড়ে ওই তরুণী বিয়ের দাবিতে অনড় থেকে শুক্রবার থেকে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান করছেন। 

প্রেমিক আলী রেজা সুজানগর উপজেলার চরভবানীপুর গ্রামের আনছের আলী মণ্ডলের ছেলে এবং উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।  

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ছাত্রলীগ নেতা আলী রেজার সঙ্গে পাবনা সদর উপজেলার সুখচর গ্রামের ওই তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার দুপুরে প্রেমিক আলী রেজা মীম খাতুন বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বাড়ি থেকে ভাগিয়ে নিয়ে আসেন। প্রথমে একজন আত্মীয়র বাড়ি উঠলেও পরে নিজেদের বাড়ি নিয়ে আসেন। এরপরই তিনি আত্মগোপন করেন। 

তরুণীর স্বজনরা জানান, পারিবারিক চাপেই আলী রেজা আত্মগোপন করেছেন। এখন আলী রেজার পরিবারের কোনো কোনো ব্যক্তি অর্থের বিনিময়ে অপোষ রফার প্রস্তাব দিচ্ছেন। কেউ কেউ হুমকিও দিচ্ছেন। 

এ ব্যাপারে প্রেমিক আলী রেজার চাচা ও সুজানগর মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) শাহজাহান আলী তাদের বাড়িতে মীমের অবস্থান করার কথা স্বীকার করেন। তবে তিনি বলেন, আলী রেজাকে আত্মগোপনে থাকতে কেউ কোনো চাপ দেননি। সে আগে থেকেই বাড়িতে নেই। বিষয়টি পুলিশকেও জানানো হয়েছে।

সুজানগর থানার ওসি (তদন্ত) হাদিউল ইসলাম বলেন, বিষয়টি তাদের জানা নেই। তারা কোনো লিখিত অভিযোগও পাননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিয়ের দাবিতে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ৫ দিন ধরে প্রেমিকার অনশন 

 পাবনা প্রতিনিধি 
২৯ জুলাই ২০২০, ০৯:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ছাত্রলীগ নেতা
ছাত্রলীগ নেতা। ছবি: সংগৃহীত

বিয়ের দাবিতে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ৫ দিন ধরে অনশন করছেন এক তরুণী (১৬)। এ ঘটনা ঘটেছে পাবনার সুজানগর উপজেলার চরভবানীপুর গ্রামে।

প্রেমিক আলী রেজা শুক্রবার ওই তরুণীকে বিয়ের কথা বলে তাদের বাড়িতে ডেকে আনে। কিন্তু বাড়ির লোকজনের চাপে তিনি কিছুক্ষণের মধ্যেই আত্মগোপন করে বলে তরুণীর পরিবারের লোকজন অভিযোগ করেছেন। বিয়ের আগে তারা মেয়েকে আর ঘরে ঠাঁই দিতেও রাজি নন। উভয় সংকটে পড়ে ওই তরুণী বিয়ের দাবিতে অনড় থেকে শুক্রবার থেকে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান করছেন।

প্রেমিক আলী রেজা সুজানগর উপজেলার চরভবানীপুর গ্রামের আনছের আলী মণ্ডলের ছেলে এবং উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ছাত্রলীগ নেতা আলী রেজার সঙ্গে পাবনা সদর উপজেলার সুখচর গ্রামের ওই তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার দুপুরে প্রেমিক আলী রেজা মীম খাতুন বিয়ে করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বাড়ি থেকে ভাগিয়ে নিয়ে আসেন। প্রথমে একজন আত্মীয়র বাড়ি উঠলেও পরে নিজেদের বাড়ি নিয়ে আসেন। এরপরই তিনি আত্মগোপন করেন।

তরুণীর স্বজনরা জানান, পারিবারিক চাপেই আলী রেজা আত্মগোপন করেছেন। এখন আলী রেজার পরিবারের কোনো কোনো ব্যক্তি অর্থের বিনিময়ে অপোষ রফার প্রস্তাব দিচ্ছেন। কেউ কেউ হুমকিও দিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে প্রেমিক আলী রেজার চাচা ও সুজানগর মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) শাহজাহান আলী তাদের বাড়িতে মীমের অবস্থান করার কথা স্বীকার করেন। তবে তিনি বলেন, আলী রেজাকে আত্মগোপনে থাকতে কেউ কোনো চাপ দেননি। সে আগে থেকেই বাড়িতে নেই। বিষয়টি পুলিশকেও জানানো হয়েছে।

সুজানগর থানার ওসি (তদন্ত) হাদিউল ইসলাম বলেন, বিষয়টি তাদের জানা নেই। তারা কোনো লিখিত অভিযোগও পাননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।