‘বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম ছিলেন দেশপ্রেমিক শিল্পোদ্যোক্তা’
jugantor
‘বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম ছিলেন দেশপ্রেমিক শিল্পোদ্যোক্তা’

  চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২৯ জুলাই ২০২০, ২৩:২০:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

দৈনিক যুগান্তর ও যমুনা টেলিভিশনসহ ৪১ প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে।

শোকসভায় বক্তারা প্রয়াত নুরুল ইসলামের জীবদ্দশায় তার কর্মময় জীবনের উপর নানা আলোচনা ও স্মৃতি চারণ করেন। বক্তারা বলেন, যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম দেশপ্রেমিক সাহসী শিল্পোদ্যোক্তা ছিলেন। স্বাধীনতাযুদ্ধেও ছিল তার অগ্রণী ভূমিকা। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ছিলেন স্পষ্টভাষী। এত বড় শিল্পপতি হয়েও তিনি সাদামাটা জীবনযাপন করতেন।

তারা বলেন, সাহসিকতার সঙ্গে তিনি যুগান্তর ও যমুনা টিভিকে দেশের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যমে পরিণত করেছেন। তার মৃত্যুতে দেশের শিল্প ও গণমাধ্যমের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। তিনি দেশের বৃহৎ শিল্পকারখানা গড়ে তোলার মাধ্যমে দেশের হাজার হাজার যুবককে কর্মসংস্থান দিয়েছেন। এতে লাখো লাখো মানুষ জীবিকা নির্বাহ করছে।

বুধবার বিকাল ৫টায় হবিগঞ্জের চুনারুঘাট প্রেস ক্লাবের আয়োজনে শোকসভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন প্রেস ক্লাব সভাপতি মো. কামরুল ইসলাম। ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জামাল হোসেন লিটনের পরিচালনায় শোকসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন যুগান্তরের সিনিয়র রিপোর্টার আলমগীর হোসেন।

এতে বক্তব্য রাখেন চুনারুঘাট রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ও যুগান্তর প্রতিনিধি আবুল কালাম আজাদ, চুনারুঘাট প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি মহিদ আহমেদ চৌধুরী, জাহাঙ্গীর আলম, যুগ্ম-সম্পাদক ইসমাইল হোসেন বাচ্চু, জুনায়েদ আহমেদ, ক্লাব সদস্য অ্যাডভোকেট মোস্তাক আহমেদ, মো. ওয়াহিদুর রহমান জিত, চুনারুঘাট সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি খন্দকার আলাউদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক জুবায়ের আহমেদ প্রমুখ।

পরে মিলাদ মাহফিল শেষে দোয়া পরিচালনা করেন কোর্ট মসজিদের দ্বিতীয় ইমান মাওলানা আবদুল কাইয়ূম।

‘বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম ছিলেন দেশপ্রেমিক শিল্পোদ্যোক্তা’

 চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২৯ জুলাই ২০২০, ১১:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দৈনিক যুগান্তর ও যমুনা টেলিভিশনসহ ৪১ প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে।

শোকসভায় বক্তারা প্রয়াত নুরুল ইসলামের জীবদ্দশায় তার কর্মময় জীবনের উপর নানা আলোচনা ও স্মৃতি চারণ করেন। বক্তারা বলেন, যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম দেশপ্রেমিক সাহসী শিল্পোদ্যোক্তা ছিলেন। স্বাধীনতাযুদ্ধেও ছিল তার অগ্রণী ভূমিকা। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ছিলেন স্পষ্টভাষী। এত বড় শিল্পপতি হয়েও তিনি সাদামাটা জীবনযাপন করতেন।

তারা বলেন, সাহসিকতার সঙ্গে তিনি যুগান্তর ও যমুনা টিভিকে দেশের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যমে পরিণত করেছেন। তার মৃত্যুতে দেশের শিল্প ও গণমাধ্যমের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। তিনি দেশের বৃহৎ শিল্পকারখানা গড়ে তোলার মাধ্যমে দেশের হাজার হাজার যুবককে কর্মসংস্থান দিয়েছেন। এতে লাখো লাখো মানুষ জীবিকা নির্বাহ করছে।

বুধবার বিকাল ৫টায় হবিগঞ্জের চুনারুঘাট প্রেস ক্লাবের আয়োজনে শোকসভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন প্রেস ক্লাব সভাপতি মো. কামরুল ইসলাম। ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জামাল হোসেন লিটনের পরিচালনায় শোকসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন যুগান্তরের সিনিয়র রিপোর্টার আলমগীর হোসেন।

এতে বক্তব্য রাখেন চুনারুঘাট রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারণ সম্পাদক ও যুগান্তর প্রতিনিধি আবুল কালাম আজাদ, চুনারুঘাট প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি মহিদ আহমেদ চৌধুরী, জাহাঙ্গীর আলম, যুগ্ম-সম্পাদক ইসমাইল হোসেন বাচ্চু, জুনায়েদ আহমেদ, ক্লাব সদস্য অ্যাডভোকেট মোস্তাক আহমেদ, মো. ওয়াহিদুর রহমান জিত, চুনারুঘাট সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি খন্দকার আলাউদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক জুবায়ের আহমেদ প্রমুখ।

পরে মিলাদ মাহফিল শেষে দোয়া পরিচালনা করেন কোর্ট মসজিদের দ্বিতীয় ইমান মাওলানা আবদুল কাইয়ূম।

 

ঘটনাপ্রবাহ : যমুনা গ্রুপ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন