বান্দরবানে গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত
jugantor
বান্দরবানে গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

  বান্দরবান প্রতিনিধি  

৩০ জুলাই ২০২০, ১৫:০৩:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

বান্দরবানে গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শাহ আলম (৪৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

পুলিশের দাবি, নিহত শাহ আলম ইয়াবা ব্যবসায়ী। নিহতের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের চীন-মৈত্রী সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের চীন-মৈত্রী সড়কের পার্শ্ববর্তী এলাকায় পুলিশের হাতে গ্রেফতার আসামি শাহ আলমকে নিয়ে ইয়াবা উদ্ধারে যায় পুলিশ। এ সময় সেখানে ওঁৎ পেতে থাকা মাদক চোরাকারবারি চক্রের ১০-১২ সদস্য গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।

এতে পুলিশ বাধা দিলে গুলি চালায় চোরাকারবারিরা। পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ হয় শাহ আলম। আহতাবস্থায় হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এ সময় পুলিশের দুই সদস্যও গুলিবিদ্ধ হয়।

তবে তাদের নাম পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৪০ হাজার ইয়াবা, একটি দেশীয় তৈরি অস্ত্র এবং দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি মো. আলমগীর হোসেন জানান, পুলিশের হাতে গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ীর তথ্যের ভিত্তিতে ইয়াবা চালান উদ্ধারে গেলে চোরাকারবারি চক্রের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে তার মৃত্যু হয়।

নিহতের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় পলাতক আসামিদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বান্দরবানে গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত

 বান্দরবান প্রতিনিধি 
৩০ জুলাই ২০২০, ০৩:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বান্দরবানে গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ যুবক নিহত
ফাইল ছবি

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় গ্রেফতারের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শাহ আলম (৪৫) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

পুলিশের দাবি, নিহত শাহ আলম ইয়াবা ব্যবসায়ী। নিহতের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের চীন-মৈত্রী সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের চীন-মৈত্রী সড়কের পার্শ্ববর্তী এলাকায় পুলিশের হাতে গ্রেফতার আসামি শাহ আলমকে নিয়ে ইয়াবা উদ্ধারে যায় পুলিশ। এ সময় সেখানে ওঁৎ পেতে থাকা মাদক চোরাকারবারি চক্রের ১০-১২ সদস্য গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।

এতে পুলিশ বাধা দিলে গুলি চালায় চোরাকারবারিরা। পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ হয় শাহ আলম। আহতাবস্থায় হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এ সময় পুলিশের দুই সদস্যও গুলিবিদ্ধ হয়।

তবে তাদের নাম পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৪০ হাজার ইয়াবা, একটি দেশীয় তৈরি অস্ত্র এবং দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি মো. আলমগীর হোসেন জানান, পুলিশের হাতে গ্রেফতার মাদক ব্যবসায়ীর তথ্যের ভিত্তিতে ইয়াবা চালান উদ্ধারে গেলে চোরাকারবারি চক্রের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে তার মৃত্যু হয়।

নিহতের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় পলাতক আসামিদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : মাদকবিরোধী অভিযানে নিহত

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন