মাদারীপুর শহর রক্ষা বাঁধে ভাঙন, আতঙ্কে শহরবাসী

  টেকেরহাট (মাদারীপুর) প্রতিনিধি ০২ আগস্ট ২০২০, ১২:৪৭:১৬ | অনলাইন সংস্করণ

মাদারীপুরের আড়িয়াল খাঁ নদীর শহর রক্ষা বাঁধের লঞ্চঘাট এলাকার বেরিবাঁধসহ ওয়াকওয়ের ২০ মিটার এলাকা শনিবার বিকাল ৪টার দিকে নদীতে বিলীন হয়ে যায়। ভাঙনের ঝুঁকিতে শত শত বসতবাড়ি। এতে আতঙ্কে রয়েছে শহরবাসী।

ভাঙন প্রতিরোধে পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে বিকাল থেকেই বালুর বস্তা ফালানো হচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আড়িয়াল খাঁ নদের শহরের লঞ্চঘাট এলাকায় শনিবার বিকেলে হঠাৎ করে ভাঙ্গন শুরু হয়। পানির স্রোতে নদীর পাশে ওয়াকওয়েসহ শহর রক্ষা বাঁধের ২০ মিটার ধসে যায়। এ সময় পাশের একটি বসতঘরও নদে বিলীন হয়ে যায়। এতে আতঙ্ক ছড়িয়েছে স্থানীয়দের মাঝে।

ঝুঁকিতে থাকা মানুষেরা বসতঘর থেকে প্রয়োজনীয় মালামাল সরিয়ে নিতে শুরু করেছে। ভাঙ্গন ঝুঁকিতে রয়েছে লঞ্চঘাট, পুলিশ ফাঁড়ি, পুরান শহর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ শহরের শত শত স্থাপনা।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পার্থ প্রতীম সাহা, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. ওবাইদুর রহমান খান, পৌরসভার মেয়র মো. খালিদ হোসেন ইয়াদসহ স্থানীয় জন প্রতিনিধিরা।

ভাঙ্গন রোধে রাতের মধ্যেই বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দেন জেলা প্রশাসন ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা। এদিকে দ্রুত টেকসই বেরিবাঁধ নির্মাণ ও ডাম্বিং কার্যক্রম শুরু না হলে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা স্থানীয়দের।

স্থানীয় কামাল সরদার বলেন, হঠাৎ করে নদীতে ভাঙনের কারণে আমরা খুব আতঙ্গে আছি। এখন থেকে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হলে পুরো শহরই ভাঙনের ঝুঁকিতে পড়বে।

মাদারীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পার্থ প্রতীম সাহা বলেন, মাদারীপুর শহর রক্ষা বাধের একাংশ ভেঙে গেছে। বালুর বস্তা ফেলে ভাঙন ঠেকানোর চেষ্টা চলছে। বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত তিন শতাধিক বালুর বস্তা ভাঙন কবলিত স্থানে ফেলা হয়েছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত