৯৯৯-এ কল দিয়ে চর থেকে উদ্ধার পেল অর্ধশত শিক্ষার্থী
jugantor
৯৯৯-এ কল দিয়ে চর থেকে উদ্ধার পেল অর্ধশত শিক্ষার্থী

  চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি  

০৪ আগস্ট ২০২০, ১৯:২৪:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

৯৯৯-এ কল দিয়ে উদ্ধার হল যমুনা চরে আটকে পড়া অর্ধশত শিক্ষার্থী। সোমবার রাত ১২টার পর বঙ্গবন্ধু সেতু ও যমুনা নদীতে ঈদ আনন্দ ভ্রমণ করতে আসা এসব শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও আটকে পড়া শিক্ষার্থীরা জানান, সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার কামুটিয়া গ্রামের প্রায় ৫০ জন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী মিলে ইঞ্জিনচালিত একটি শ্যালো নৌকা নিয়ে বঙ্গবন্ধু সেতু ও যমুনা নদীতে আনন্দ ভ্রমণে রওনা হন। দিনভর নদীতে নির্মল বিনোদনসহ দুপুরের খাবার গ্রহণ ও সেতু দর্শন করেন শিক্ষার্থীরা। 

পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বাড়ি ফেরার পথে যমুনা নদীর মাঝে আকস্মিকভাবে নৌকার ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। অনেক চেষ্টা করেও মেশিন চালু না হওয়ায় রাত ১০টার দিকে সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলাধীন এনায়েতপুরের যমুনা চরের ধুলিয়াবাড়ি এলাকায় আটকা পড়েন শিক্ষার্থীরা। 

পরে শিক্ষার্থীরা জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ কল দিলে পুলিশ রাত ১২টার দিকে চরে গিয়ে আটকে পড়া শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করে। এছাড়া পুলিশি নিরাপত্তায় শিক্ষার্থীদের রাতযাপন শেষে মঙ্গলবার সকালে পরিবারের সঙ্গে কথা বলে নিরাপদে তাদের বাড়ি পৌঁছে দেয়া হয়। 

এ ব্যাপারে এনায়েতপুর থানার ওসি মোল্লা মাসুদ পারভেজ যুগান্তরকে জানান, আটকে পড়া শিক্ষার্থীরা জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল দিলে জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে তাদের উদ্ধার করা হয়। তবে কারও কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। সকালে নিরাপদে সবাইকে বাড়ি পৌঁছানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।
 

৯৯৯-এ কল দিয়ে চর থেকে উদ্ধার পেল অর্ধশত শিক্ষার্থী

 চৌহালী (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি 
০৪ আগস্ট ২০২০, ০৭:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

৯৯৯-এ কল দিয়ে উদ্ধার হল যমুনা চরে আটকে পড়া অর্ধশত শিক্ষার্থী। সোমবার রাত ১২টার পর বঙ্গবন্ধু সেতু ও যমুনা নদীতে ঈদ আনন্দ ভ্রমণ করতে আসা এসব শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও আটকে পড়া শিক্ষার্থীরা জানান, সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার কামুটিয়া গ্রামের প্রায় ৫০ জন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী মিলে ইঞ্জিনচালিত একটি শ্যালো নৌকা নিয়ে বঙ্গবন্ধু সেতু ও যমুনা নদীতে আনন্দ ভ্রমণে রওনা হন। দিনভর নদীতে নির্মল বিনোদনসহ দুপুরের খাবার গ্রহণ ও সেতু দর্শন করেন শিক্ষার্থীরা।

পরে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বাড়ি ফেরার পথে যমুনা নদীর মাঝে আকস্মিকভাবে নৌকার ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। অনেক চেষ্টা করেও মেশিন চালু না হওয়ায় রাত ১০টার দিকে সিরাজগঞ্জের চৌহালী উপজেলাধীন এনায়েতপুরের যমুনা চরের ধুলিয়াবাড়ি এলাকায় আটকা পড়েন শিক্ষার্থীরা।

পরে শিক্ষার্থীরা জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯-এ কল দিলে পুলিশ রাত ১২টার দিকে চরে গিয়ে আটকে পড়া শিক্ষার্থীদের উদ্ধার করে। এছাড়া পুলিশি নিরাপত্তায় শিক্ষার্থীদের রাতযাপন শেষে মঙ্গলবার সকালে পরিবারের সঙ্গে কথা বলে নিরাপদে তাদের বাড়ি পৌঁছে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে এনায়েতপুর থানার ওসি মোল্লা মাসুদ পারভেজ যুগান্তরকে জানান, আটকে পড়া শিক্ষার্থীরা জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল দিলে জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে তাদের উদ্ধার করা হয়। তবে কারও কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। সকালে নিরাপদে সবাইকে বাড়ি পৌঁছানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।